ঢাকা, বুধবার, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৯ জুন ২০১৯
bangla news

গৌতম গম্ভীরকে ‘বেকুব’ বললেন আফ্রিদি

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৫-২৫ ৫:১৩:১১ পিএম
শহীদ আফ্রিদি ও গৌতম গম্ভীরের সম্পর্ক সেই ২০০৭ সাল থেকেই তিক্ত-ছবি: সংগৃহীত

শহীদ আফ্রিদি ও গৌতম গম্ভীরের সম্পর্ক সেই ২০০৭ সাল থেকেই তিক্ত-ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে যে চাপানউতোর চলে তা এবার অনেকটাই অনুপস্থিত। কিন্তু আগুন জ্বালানোর দায়িত্বটা যেন নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছেন শহীদ আফ্রিদি ও গৌতম গম্ভীর। এবার তো তাদের সম্পর্কের তিক্ততা নতুন মাত্রা পেল।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সন্ত্রাসী হামলার জেরে বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে বয়কট করার আহবান জানিয়েছিলেন গম্ভীর। সর্বশেষ নির্বাচনে জেতার পরও একই মন্তব্য করেন তিনি।

সম্প্রতি পাকিস্তানের স্থানীয় এক টেলিভিশন চ্যানেলে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আফ্রিদি বলেছেন, ‘আপনার কি মনে হয়, গম্ভীর কথা বলার সময় নিজের বুদ্ধির প্রয়োগ করে? ও একজন বেকুব! কোনো শিক্ষিত মানুষ কি এভাবে কথা বলে?’

এটুকু বলেই থামেননি আফ্রিদি। বরং তাকে নির্বাচিত করায় ভারতীয়দেরও একহাত নিয়ে বলেন, ‘ভারতীয়রা এমন এক লোককে ভোট দিয়েছে, যার কোনো বুদ্ধিই নেই।’

এর আগেও দু’জনে বাকযুদ্ধে জড়িয়েছিলেন। কথার এই লড়াইটা শুরু করেন মূলত আফ্রিদিই। সম্প্রতি প্রকাশিত হওয়া পাকিস্তানি অলরাউন্ডারের আত্মজীবনী ‘গেম চেঞ্জার’ বইয়ে ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীরকে নিয়ে বেশ আপত্তিজনক কথা লিখেছেন। যা প্রকাশিত হওয়ার পরই গম্ভীর টুইট করে আফ্রিদিকে এক প্রকার মানসিক রোগিই আখ্যা দেন।

আত্মজীবনীতে গম্ভীরকে ব্যক্তিগত শত্রু হিসেবে তুলে ধরে ব্যক্তিত্বহীন আখ্যায়িত করেন আফ্রিদি। লেখেন, ‘কিছু শত্রু থাকে ব্যক্তিগত, আর কিছু পেশাগত। প্রথমটি গম্ভীরকেই বলা যায়। সে এবং তার আচরণে বেশ সমস্যা আছে। তার কোনো ব্যক্তিত্ব নেই। ক্রিকেটের মতো দুর্দান্ত বিষয়ে তিনি এক অদ্ভুত চরিত্র। যার কোনো বিরাট রেকর্ড নেই কিন্তু প্রচণ্ড ঔদ্ধত্য আছে।’

‘ডন ব্রাডম্যান ও জেমস বন্ডের মিশ্রিত আচরণ তার (গম্ভীরের)। করাচীতে আমরা তার মতো লোককে কৃপণ বলি। এটা সত্যি আমি হাসিখুশি ও ইতিবাচক লোক পছন্দ করি। সে আক্রমণাত্মক বা প্রতিদ্বন্দ্বী কিনা সেটা ব্যাপার নয়। কিন্তু তাকে অবশ্যই ইতিবাচক হতে হবে যা, অবশ্যই গম্ভীর নন।’

৩৭ বছর বয়সী ভারতীয় সাবেক ওপেনার নিজের সম্পর্কে এসব কিছুতেই সহ্য করতে পারেননি। তিনিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে আফ্রিকে মানসিক রোগী আখ্যা দিয়ে একটি পোষ্ট দেন। সেখানে লেখেন, ‘শহীদ আফ্রিদি আপনি একজন হাস্যকর মানুষ। যাই হোক আমরা এখনও পাকিস্তানিদের জন্য চিকিৎসা ভিসা প্রদান করি। আমি ব্যক্তিগতভাবে আপনাকে একজন মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞের কাছে নিয়ে যাবো।’

দু’জনেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে পুরোপুরি অবসর নিয়েছেন। ক্রিকেট থেকে সরে যাওয়ার পর রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন গম্বীর। ভারতের সর্বশেষ লোকসভা নির্বাচনে ক্ষমতাসীন বিজেপির হয়ে নির্বাচনে লড়া বিশাল জয় পেয়েছেন এই সাবেক বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। অন্যদিকে ক্রিকেট থেকে এখনও পুরোপুরি সরে না গেলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন আফ্রিদি। অবসরে আত্মজীবনী আর বিতর্ক যেন তার নিত্যসঙ্গী।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১২ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০১৯
এমএইচএম/এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-05-25 17:13:11