ঢাকা, শুক্রবার, ৬ বৈশাখ ১৪২৬, ১৯ এপ্রিল ২০১৯
bangla news

নিদাহাস ট্রফির উদাহরণ টেনে ধোনির পাশে দাঁড়ালেন সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-১৩ ৭:১৮:৫৭ পিএম
নিদাহাস ট্রফিতে আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়ান সাকিব (বামে), একই কাজ আইপিএলে করেছেন ধোনি (ডানে)-ছবি: সংগৃহীত

নিদাহাস ট্রফিতে আম্পায়ারের সঙ্গে তর্কে জড়ান সাকিব (বামে), একই কাজ আইপিএলে করেছেন ধোনি (ডানে)-ছবি: সংগৃহীত

‘নো বল’ ইস্যুতে আম্পায়ারের সঙ্গে নিয়ম বহির্ভূতভাবে তর্কে জড়িয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। এজন্য সমালোচনার পাশাপাশি শাস্তির মুখোমুখিও হতে হয়েছে তাকে। ঠিক ১৩ মাস আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রায় একই কাজ করেছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও। তিনি নিজেই দুটি ঘটনার মধ্যে মিল খুঁজে পাচ্ছেন।

রাজস্তান রয়্যালসের বিপক্ষে ম্যাচে শেষ ওভারে জয়ের জন্য চেন্নাই সুপার কিংসের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। বেন স্টোকসের করা চতুর্থ বলটি ফুলটস দিলে নন-স্ট্রাইকিং প্রান্তের আম্পায়ার উল্লাস গান্ধী উচ্চতার জন্য নো বলের সংকেত দেন। তবে স্কয়ার লেগ আম্পায়ার তার সিদ্ধান্তে সাড়া দেননি। ফলে নো বল বাতিল করা হয়। এ নিয়ে ব্যাটসম্যানরা আম্পায়ারের সঙ্গে মাঠেই তর্কে জড়ান।

দলের অমন গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে মাথা ঠাণ্ডা রাখতে পারেননি সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ধোনি, যিনি ‘ক্যাপ্টেন কুল’ নামেই পরিচিত। নিজে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলেও মাঠে ঢুকে ওই নো বল নিয়ে রীতিমত আম্পায়ারের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। নিয়ম ভাঙার অপরাধে তার ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ কেটে রাখা হয়। ধোনির এমন আচরণে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

রোববার (১৩ এপ্রিল) দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে মাঠে নামবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ম্যাচের আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় ধোনির ওই আচরণের বিষয়ে মন্তব্য করতে বললে সাকিব বলেন, ‘নিদাহাস ট্রফিতে আমিও একই কাজ করেছিলাম। তাই আমি এ বিষয়ে মন্তব্য করতে পারি না।'

গত বছর নিদাহাস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচেও অনেকটা একই আচরণ করেন সাকিব। জিতলেই ফাইনাল, এমন সমীকরণ ছিল দুই দলের সামনেই। শেষ ওভারে আম্পায়ারের এক বিতর্কিত সিদ্ধান্তে দুই দলেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। আম্পায়ার ‘নো বল’র ইশারা না করার প্রতিবাদে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ ও রুবেল হোসেনকে মাঠে ছেড়ে চলে আসতে বলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব।

২ বলে ৬ রান দরকার এমন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে অমন অনভিপ্রেত ঘটনার পরও মাহমুদউল্লাহ’র বীরত্বে ম্যাচটা শেষ পর্যন্ত জিতে নেয় বাংলাদেশ। কিন্তু দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে ম্যাচ শেষে হালকা বাদানুবাদ হতেও দেখা যায়, এমনকি কেউ একজন ড্রেসিং রুমের কাঁচও ভেঙে ফেলেন। এই ঘটনার জেরে সাকিব ও নুরুল হাসানকে ম্যাচ ফি'র ৫০ শতাংশ জরিমানা করার পাশাপাশি তাদের নামের পাশে ১টি করে ডিমেরিট পয়েন্ট যুক্ত হয়।

নিজে একই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কারণেই কিনা ধোনির আচরণকে কিছুটা হালকাভাবেই নিলেন সাকিব, ‘এটা ম্যাচের উত্তেজনাকর মুহূর্তে ঘটেছে এবং আপনি ক্রিকেটার হিসেবে কতটা প্যাশনেট এটা থেকে সেটাই বুঝা যায়।'

আইপিএলের এবারের আসরে হায়দরাবাদের হয়ে মাত্র এক ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছেন সাকিব। তাকে ছাড়াই দল টানা জয়ের ধারায় ছিল। কিন্তু ক্রমেই পারফরম্যান্সের বিচারে বাকিরা তাদের ছাড়িয়ে যাচ্ছে। সাকিবও দলের তিন বিভাগেই (ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং) উন্নতির সুযোগ দেখছেন।

দলের অবস্থান যাই থাকুক, একাদশে সুযোগ না পাওয়াটা অনেক হতাশার। সাকিবও তা স্বীকার করলেন। তবে সেই সঙ্গে এটাও মনে করিয়ে দিলেন চার বিদেশি খেলোয়াড় (ডেভিড ওয়ার্নার, জনি বেয়ারস্টো, রশিদ খান ও মোহাম্মদ নবী) দারুণ খেলছেন।

সাকিব বলেন, ‘সব বিদেশি খেলোয়াড়রা ভালো খেলছেন। এটা হতাশার (দলে সুযোগ না পাওয়া) তবে আপনাকে পরিস্থিতি বুঝতে হবে। দলের ম্যানেজমেন্টের জন্যও কঠিন। আমাকে ফিট এবং প্রস্তুত থাকতে হবে। সামনেই বিশ্বকাপ এবং এটা অনেক বড় প্রেরণা। তাই যখনই আমার সুযোগ চলে আসবে আমি দু’হাত ভরে নেবো। আমি এখন স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি অনুশীলন করছি।'

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩, ২০১৯
এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট আইপিএল সাকিব আল হাসান
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14