ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ মে ২০১৯
bangla news

সহজ প্রতিপক্ষ কঠিন চ্যালেঞ্জ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১০-২০ ৭:৫৯:১৫ পিএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

ঢাকা: প্রতিপক্ষ বিবেচনায় জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশের চাইতে কোনোভাবেই শক্তিশালী নয়। ওয়ানডেতে টাইগারদের সাম্প্রতিক ফর্ম, ঘরের মাঠে তাদের ধারাবাহিক সাফল্য এমনকি পরিসংখ্যানেও মাসাকাদজাদের চাইতে যোজন যোজন এগিয়ে মাশরাফিরা।

২০০১ সালের পর দলটির বিপক্ষে ঘরের মাঠে প্রতিটি সিরিজেই জয়ের সুখস্মৃতি নিয়ে মাঠ ছেড়েছে লাল সবুজের দল। সমৃদ্ধ পরিসংখ্যানের শেষ এখানেই নয়।  আজ অব্দি দলটির সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে ৬৯টি ম্যাচের ৪১টিই বাংলাদেশ নিজেদের করে নিয়েছে।

কিন্তু তারপরেও রোববার (২১ অক্টোবর) শুরু হওয়া  তুলনামূলক সহজ সিরিজটিতে দু’দুটি চ্যালেঞ্জ নিতেই হচ্ছে স্বাগতিক বাংলাদেশকে। এর প্রথমটি সহজ দলটির বিপক্ষেও চাপমুক্ত হয়ে খেলা। আর অপরটি হলো, নতুনদের কাছ থেকে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স।

এশিয়া কাপ দিয়ে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া তরুণ নাজমুল হোসেন শান্তকে এই সিরিজেও টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট রেখে দিয়েছে। নতুন মুখ হিসেবে দলে এসেছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফর্ম করা ফজলে রাব্বি। আর  ফেরানো হয়েছে পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে। কারণ এটিই ২০১৯ বিশ্বকাপ সামনে রেখে ব্যাকআপ প্লেয়ার তৈরির সিরিজ।

ব্যাকআপ প্লেয়ার তৈরির এই প্রচেষ্টাটি অবশ্য এমনি এমনি আসেনি। ইনজুরি বাগড়ায় সাকিব, তামিম চলতি সিরিজে খেলতে পারছেন না। বিশ্বকাপের আসর কিংবা অনাগত দিনগুলোতেও যে এর পুনরাবৃত্তি হবে না তারই বা গ্যারান্টি কোথায়? তাই টাইগার টিম ম্যানেজমেন্টের এমন প্রস্তুতি। এখন দেখার বিষয় হলো ব্যাকআপরা ব্যাটে বলে জ্বলে উঠে ম্যানেজমেন্টর আস্থার প্রতিদান কতখানি দিতে পারেন এবং টিম ম্যানেজমেন্ট তাদের পরিকল্পনায় কতটুকু সফল হন।

অপরটি হলো চাপ। তুলনামূলক সহজ প্রতিপক্ষ। তাই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জিতলে সেটা স্বাভাবিক বলেই গন্য করা হবে। কিন্তু হেরে গেলেই বিপদ। নিন্দুকেরা দুয়োধ্বনি তুলবেন,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোও আপত্তিকর শব্দে বাক্যে সরগরম হবে। ‘জিম্বাবুয়ের সাথেও পারে না!’ এছাড়া র‌্যাংকিংয়ে পিছিয়ে যাওয়ার ব্যাপার তো আছেই। ঠিক এমন এক প্রচ্ছন্ন চাপ নিয়েই রোববার(২১ অক্টোবর) থেকে সফরকারী দলটির বিপক্ষে হোম সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে টাইগার অধিনয়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা ও তার দল।

খোদ স্বাগতিক দলপতি মাশরাফিই সেকথা শনিবার (২০ অক্টোবর) সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন।

‘চ্যালেঞ্জটা প্রতি ম্যাচে যেটা থাকে সেটাই। সবার প্রত্যাশা, আমরা জিতব এবং জেতার আশাই করছে সবাই। সেটা খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়, অন্য দলের সাথে যেই চ্যালেঞ্জটা নিয়ে খেলেছি, গত এশিয়া কাপে যেভাবে খেলেছি, সেটাই থাকবে। আর ওদের প্রায় সব সিনিয়র প্লেয়াররা কাম ব্যাক করেছে। আর ব্জিম্বাবুয়ে দলের নিজেদের মাটিতে সবচেয়ে ভাল রেকর্ড বাংলাদেশেই। সুতরাং আমাদের ১০০ ভাগ দিয়েই খেলতে হবে। হয়তো জিতলে সবাই বলবে, এটাই হওয়ার কথা ছিল। হারলে কিন্তু ভিন্ন কথা হবে, এটাই স্বাভাবিক হারটা আমরা খুব সহজে নিতে পারি না।।’

দিনের অপর সংবাদ সম্মেলেনে জিম্বাবুইয়ান দলপতি হ্যামিলটন মাসাকাদজা যা বললেন তাতে মাশরাফিদের চাপ বোধ হয় আরও বেড়ে গেল। কেননা ঘরের মাঠে প্রায় চারবছর অপ্রতিরোধ্য দলটির বিপক্ষে নিজেদেরেই ফেভারিট বলেছেন। তার কারণ অবশ্য একটি নয়, দুটি। প্রথমত বাংলাদেশ তাদের অনেক দিনের চেনা প্রতিপক্ষ। আর দ্বিতীয়টি দলটিতে আছে অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের উপস্থিতি।

‘আমি মনে করি গত কয়েকবছরের বাংলাদেশ বেশ এগিয়েছে, বিশেষ করে ঘরের মাঠে।আমরা তাদের বিপক্ষে অসংখ্য ম্যরচ খেলেছি। অতএব এখনও আমাদের সুযোগ আছে। আর আপনি যদি ফেবারিটের ট্যাগের কথা বলেন, আমি এটা জিম্বাবুয়ের ওপরেই রাখবো।’

রোববার (২১ অক্টোবর) মিরপুর শের ই বাংলা স্টেডিয়মে তিন ম্যাচ সিরিজের ওয়ানডের প্রথম এই ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৫ ঘণ্টা, ২০ অক্টোবর, ২০১৮
এইচএল/এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14