[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৭ নভেম্বর ২০১৮
bangla news

‘মিস্টার ফিফটি’র জন্মদিন

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৮-১৭ ৫:২৩:১৫ এএম
হাবিবুল বাশার সুমন-ছবি: সংগৃহীত

হাবিবুল বাশার সুমন-ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সফল অধিনায়ক হাবিবুল বাশার। মূলত তার সময়েই বাংলাদেশ দলের ‘টাইগার’ হয়ে উঠার শুরু। আর ব্যাটসম্যান বাশার তো ছিলেন টেস্ট দলের প্রধান ভরসা। একসময় বাংলাদেশের টেস্ট ম্যাচ মানেই তার ব্যাট থেকে হাফসেঞ্চুরি, আর সেই থেকে তার নামকরণ হলো ‘মিস্টার ফিফটি’। আজ এই কীর্তিমান ক্রিকেটারের জন্মদিন।

১৯৭২ সালের আজকের দিনে (১৭ আগস্ট) কুষ্টিয়া জেলার নাগাকান্দা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন বাংলাদেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা টেস্ট ব্যাটসম্যান হাবিবুল বাশার সুমন। 

হাবিবুল বাশারের প্রসঙ্গ উঠলে সবার আগে তার নেতৃত্বের কথাই বলতে হবে। তার নেতৃত্বে দুর্বল ক্রিকেটশক্তি থেকে উদীয়মান ক্রিকেটশক্তিতে পরিণত হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট ম্যাচ জেতার স্বাদ পায় তার অধিনায়কত্বেই। ২০০৫ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জেতা সেই ম্যাচ বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসেই এক দারুণ মাইলফলক। সেবারই প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বাদও তার নেতৃত্বে আসে। শুধু তাই নয়, প্রথম ওয়ানডে সিরিজ জয়ও তার নেতৃত্বেই আসে।

অধিনায়ক বাশারের অধীনে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং শ্রীলঙ্কার মতো বাঘা বাঘা দলকে হারায় বাংলাদেশ। এর মধ্যে কার্ডিফে মোহাম্মদ আশরাফুলের অনবদ্য সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দেওয়া ম্যাচটি বহুদিন বাংলাদেশের ক্রিকেটের উজ্জ্বল বিজ্ঞাপন হয়ে ছিল। আর ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দেওয়ার সেই স্মৃতি আজও এদেশের ক্রিকেটভক্তদের হৃদয়ে দোলা দিয়ে যায়। ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের আবেগ আর ভালবাসা সেই থেকেই সীমাহীন।

অন্যদিকে ব্যাটসম্যান বাশার ছিলেন টেস্ট দলের মূল ভরসা। টেস্ট ম্যাচে ব্যাট হাতে বাশার নামা মানেই একসময় ধরেই নেওয়া হতো কমপক্ষে ফিফটি করবেনই তিনি। ১৯৯৫ সালে এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন তিনি। তবে ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফি, এমনকি ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপেও খেলতে পারেন নি তিনি।

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে বাশারের নাম অনেক কারণেই স্থায়ী আসন লাভ করেছে। বাংলাদেশের টেস্ট ইতিহাসের প্রথম ফিফটি তার ব্যাট থেকেই এসেছে। ২০০০ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্ট ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে তার ব্যাট থেকে আসে ৭১ রান আর দ্বিতীয় ইনিংসে দলের ভরাডুবির মাঝেও দলের ইনিংস সেরা ৩০ রান আসে তার ব্যাট থেকে। 

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের একসময়ের রেকর্ড ব্যক্তিগত ৩০০০ এর উপর রান আর ৩ সেঞ্চুরিসহ ২৪ ফিফটির মালিকও ছিলেন হাবিবুল বাশার। ২০০৭ সাল পর্যন্ত একমাত্র বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ত্রিশের উপর গড়ের মালিক ছিলেন তিনি। টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে একসময় হাফসেঞ্চুরির রেকর্ডধারী বাশারকে ‘মিস্টার ফিফটি’ উপাধিও দেওয়া হয়।

২০০৭ সালের বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে দল ও একই বছর টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ান বাশার। ওই বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকেও সরে দাঁড়ান বাশার। ২০০৯-১০ মৌসুম শেষে সবধরনের ক্রিকেট থেকেই সরে দাঁড়ান তিনি। 

বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নির্বাচক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন হাবিবুল বাশার।

অধিনায়ক বাশারের ক্যারিয়ার

মোট টেস্ট ম্যাচ (২০০৩-২০০৭)- ১৮, জয়- ১, পরাজয়- ১৩, ড্র- ৪।
মোট ওয়ানডে ম্যাচ (২০০৪-২০০৭)- ৬৯, জয়- ২৯, পরাজয়- ৪০। 

একনজরে বাশারের ব্যাটিং ক্যারিয়ার

৫০ টেস্টের ক্যারিয়ারে ৯৯ ইনিংসে ৩০২৬ রান করেছেন বাশার। সর্বোচ্চ ১১৩; গড় ৩০.৮৭। সেঞ্চুরি তিনটি, ২৪টি হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ স্কোর- ১১৩।

ওয়ানডেতে ১১১ ম্যাচে ২১৬৮ রান করেছেন বাশার। হাফ সেঞ্চুরি ১৪টি। সর্বোচ্চ স্কোর-৭৮।

আজ বাংলাদেশ ক্রিকেটের কিংবদন্তি হাবিবুল বাশার সুমনের তথা ‘মিস্টার ফিফটি’র ৪৬তম জন্মদিন। বাংলানিউজের পক্ষ থেকে তাকে জন্মদিনের অঢেল শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৫ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০১৮
এমএইচএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ক্রিকেট
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db