bangla news

বিসিবির পাঠশালায় ক্রিকেটারদের এক সেশন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৯-২৫ ৯:১৬:৫৯ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পাঠশালার পন্ডিত মশাই অনেক নিয়ম কানুন শেখাতেন। শিশু শিক্ষার্থীদের উচ্চস্বরে সেগুলো পড়তে হতো। গুরুর শিক্ষা শেষপর্যন্ত কেউ কেউ মনে রাখেন। আবার কেউ কেউ সেগুলো ভুলে আপন খেয়ালে চলেন।

ঢাকা: পাঠশালার পন্ডিত মশাই অনেক নিয়ম কানুন শেখাতেন। শিশু শিক্ষার্থীদের উচ্চস্বরে সেগুলো পড়তে হতো। গুরুর শিক্ষা শেষপর্যন্ত কেউ কেউ মনে রাখেন। আবার কেউ কেউ সেগুলো ভুলে আপন খেয়ালে চলেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) একটি পাঠশালা খুলেছে। শিক্ষক বিসিবি পরিচালকবৃন্দ এবং দুই একজন বেতনভুক্ত কর্মচারি। বিসিবি পাঠশালার কর্মশালায় ছাত্র চুক্তিভুক্ত সব ক্রিকেটার। ক্রিকেটের পন্ডিত মশাইগণ ক্রিকেটারদের জ্ঞান দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। একাগ্র শিক্ষার্থীরা কিছু জ্ঞান নেওয়ার আগ্রহ দেখিয়েছেন। অধিকাংশই বিজ্ঞ কর্মকর্তাদের লেকচার শুনে হাই তুলেছেন। সেশন শেষে বাড়ি ফেরার পর কেউ কেউ বলেছেন,“শিখলাম কি করলে ফাইন হবে। সেগুলো যাতে না করি, সে ভাবে চলতে বলা হয়েছে।”

সত্য মিথ্যা যাচাইয়ের উপায় নেই। ক্রিকেটারদের কোন ভাবেই কর্মকর্তাদের মুখোমুখি করা যাবে না। অতএব উভয় পক্ষের ভাষ্য তুলে ধরাই উত্তম। কর্মশালায় যা হয়েছে সে বিষয়ে বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমাম ছোটখাটো একটা ব্রিফিং দিয়েছেন। একজন ক্রিকেটারের প্রত্যহিক জীবনের আচরণবিধিগুলো কেমন হবে সেবিষয়ে তুলে ধরা হলো:


রাবীদ ইমামের তথ্য মতে:

১.    খেলার মাঠের আচরণ।

২.    কমার্শিয়াল বিষয়ে সংক্ষিপ্ত ধারণা। বিসিবির চুক্তিভুক্ত স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের শর্ত মেনে চলা। বিসিবি এবং আইসিসির সঙ্গে সাংঘর্ষিক কোন স্পন্সরের সঙ্গে যুক্ত না হওয়ায়। যে কোন বিজ্ঞপনের মডেল হওয়ার আগে বিসিবির অনুমোদন নেওয়া।

৩.    সংবাদ মাধ্যম বিষয়ক জ্ঞান: কোন সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার দেওয়ার আগে বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজারের অনুমোদন নেওয়া। যে কোন সংবাদ ব্রিফিংয়ে ঝুকিপূর্ণ কথা না বলা। বিসিবির পলিসির ধারে কাছে না চাপা। কলাম লেখার আগে বিসিবির অনুমোদন নেওয়া। এক্ষেত্রে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের কাছে আবেদন করতে হবে আগ্রহী পত্রিকাকে। ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ থেকে মিডিয়া বিভাগের ছাড়পত্র এবং সর্বশেষ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমোদ নেওয়ার পর কলাম পাওয়া যাবে।


৪.    বিশেষ সাক্ষাৎকার নেওয়ার ক্ষেত্রে একজন সাংবাদিককে আগে থেকে অনুমতি নিতে হবে। অনুমতি পাওয়া গেলে খেলোয়াড় তার অবসর সময়ের সাক্ষাৎকার দেবেন।

এছাড়াও অনেকগুলো বিষয়ে ক্রিকেটারদের আলোকিত করার চেষ্টা করেছেন বিসিবি মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস, ক্রিকেট পরিচালানা বিভাগের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন সিরাজ, শৃঙ্খলা কমিটির চেয়ারম্যান সিরাজউদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীর, জেনারেল ম্যানেজার নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন, বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমাম, ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজার সাব্বির খান। সেশন শেষে ক্রিকেটারদের প্রতিক্রয়া অন্যরকমই ছিলো!

বাংলাদেশ সময়: ১৯০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2011-09-25 09:16:59