ঢাকা, শনিবার, ৯ চৈত্র ১৪২৫, ২৩ মার্চ ২০১৯
bangla news

টুর্নামেন্টে ঢাকা আবাহনী এখন ‘অতীত’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-২৩ ৮:০২:২৪ এএম
কোরিয়ার পোচেন সিটিজেন ফুটবল ক্লাব বনাম মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ক্লাবের মধ্যকার খেলার একটি মুহূর্ত।  ছবি: উজ্জ্বল ধর, বাংলানিউজ

কোরিয়ার পোচেন সিটিজেন ফুটবল ক্লাব বনাম মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ক্লাবের মধ্যকার খেলার একটি মুহূর্ত। ছবি: উজ্জ্বল ধর, বাংলানিউজ

এমএ আজিজ স্টেডিয়াম থেকে: শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টুর্নামেন্টের বৃহস্পতিবারের বিকালের ম্যাচটা দু বিদেশি ক্লাবের হওয়ায় এদেশীয় দর্শকদের জন্য তেমন আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল না। তবুও মাঠে এসেছিল শ’কয়েক দর্শক। কারণ একটাই এই ম্যাচটার উপরই টুর্নামেন্টে সামান্য টিকে থাকার সম্ভাবনার সুতোটা লেগে ছিল দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ঢাকা আবাহনীর। কিন্তু কোরিয়ান পোচন সিটিজেন ও মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হওয়ায় সেই সুতোটা একেবারে ছিঁড়ে গেল।

টুর্নামেন্টে এখন ঢাকা আবাহনী অতীত। সন্ধ্যা সাতটা থেকে শুরু হওয়ার এফসি আলগার বিপক্ষে তাদের খেলাটা কেবলই নিয়মরক্ষার।

এদিন শুরু থেকেই হালকা মেজাজে খেলতে থাকে। তবে সময় গড়াতেই উভয় দলই আসল ফুটবলে ফেরে। শুরু হয় আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ। ২৮মিনিটে পোচন প্রথম বড় আক্রমণে যায়। ২৮ মিনিটে পার্ক সিউং রায়েলের প্রচেষ্টা রুখে দেন টিসি স্পোর্টসের গোলরক্ষক কিরন কুমার। কিন্তু প্রথামার্ধের অতিরিক্ত সময়ে গোল করে এগিয়ে যায় টিসি স্পোর্টসই।মধ্যমাঠের খেলোয়াড় ইব্রাহিম ইয়ামিনের বাড়ানো বল পোচনের জালে পৌঁছে দেন ফরোয়ার্ড এজিকিয়েল। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে টিসি স্পোর্টস।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই পোচন সিটিজেন গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে। অন্যদিকে টিসি স্পোর্টস খেলতে থাকে রক্ষণাত্বক।৫৩মিনিটে প্রথম আক্রমণে যায় পোচন। বদলী খেলোয়াড় লি মিন কউ’র বাড়ানো বল ধরে আরেক বদলী খেলোয়াড় লি জিন ওউ  দেন কিম চাং হিউকে। হিউ’র শটটা দুর্দান্তভাবে ঠেকিয়ে দেন গোলকিপার।

৫৭ মিনিটে আবারও আক্রমণে যায় কোরিয়ান পোচন শহরের তৃতীয় বিভাগের দলটি। এবার বাম প্রান্ত থেকে কো জি ম্যানের মাইনাস গোলকিপারের গায়ে লেগে ফেরত আসে পোচনের কিম সিউয়ং জিনের কাছে। এরপর জিন যে শটটি নেন তা টিসি স্পোর্টসের রক্ষণভাগ ক্লিয়ার করে দিলে গোলবঞ্চিত হয় কোরিয়ান দলটি।কোরিয়ার পোচেন সিটিজেন ফুটবল ক্লাব বনাম মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ক্লাবের মধ্যকার খেলার একটি মুহূর্ত

পোচনের একের পর আক্রমণ মার খাওয়ার পর উল্টো গোল ব্যবধান বাড়ার সুযোগ পায় টিসি স্পোর্টস। ৬১ মিনিটে ইব্রাহিম মাহমুদির শট ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক। তবে ৭৬ মিনিটে ডিবক্সে আগুয়ান জাং ইয়ং আইকে’কে প্রতিপক্ষের আজম মোহাম্মদ ফেলে দিলে পেনাল্টির নির্দেশ দেন ভারতীয় রেফারি সন্তোষ কুমার।

তবে কো জি ম্যানের নেওয়া শটটি গোলবারে লেগে ফেরত আসে পার্ক জুং সো’র কাছে। তিনি গোল করতে দেরি করেন নি। ফলে সমতায় ফেরে পোচন। এভাবে ১-১ গোলে শেষ হয় খেলা।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে পোচনের কোচ সোন ওন ইয়ং বলেন, ‘আমার জেতার জন্য খেলেছি। তবে দুর্ভাগ্যভাবে ড্র করতে পেরেছি। তবুও আমার ছেলেদের পারফরম্যান্সে আমি খুশি।’

অন্যদিকে টিসি স্পোর্টসের কোচ নাজিম মোহাম্মদ বলেন, ‘আমার টিম ভালো খেলেছে। জেতাটা লক্ষ্য ছিল। তবুও আক্ষেপ নেই। সেমিফাইনালে যে দল পড়বে না কেনো-জেতার জন্যই খেলবো।’

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৭

টিএইচ/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14