bangla news

বিশ্বকাপের ভেন্যুর আশপাশের একি হাল!

92 |
আপডেট: ২০১৪-০৪-০১ ২:৫৫:০০ পিএম
ছবি:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি:বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

টি২০ বিশ্বকাপ শেষের পথে। অথচ এই টুর্নামেন্টের সাজসজ্জা ও অন্যান্য প্রস্তুতির বেহাল দশা। টি২০ বিশ্বকাপের মূল ভেন্যু মিরপুরের শেরে-এ বাংলা স্টেডিয়ামে আশপাশেই সড়কের হালই বেশি খারাপ। ফুটপাথ দিয়ে তো হাঁটারই উপায় নেই।

ঢাকা: টি২০ বিশ্বকাপ শেষের পথে। অথচ এই টুর্নামেন্টের সাজসজ্জা ও অন্যান্য প্রস্তুতির বেহাল দশা। টি২০ বিশ্বকাপের মূল ভেন্যু মিরপুরের শেরে-এ বাংলা স্টেডিয়ামে আশপাশেই সড়কের হালই বেশি খারাপ। ফুটপাথ দিয়ে তো হাঁটারই উপায় নেই।

এ হাল হোম অব ক্রিকেটের অদূরে মিরপুর গোল চক্করের আশপাশের সড়কের। এমনকি এসবের সব সঠিকভাবে সম্পন্ন করার দায়িত্ব যে ঢাকা সিটি করপোরেশন তাদেরও বেহাল দশা। খোদ মিরপুরে সিটি করপোরেশনের আঞ্চলিক অফিসের সামনের সড়কের রাস্তা ও ফুটপাথ জরাজীর্ণ।

সড়ক বিভাজনের ওপর টাইগার দলপতি মুফফিকসহ অন্য খেলোয়াড়ের বিশালাকার ছবি শোভা পাচ্ছে। এই ছবির পেছনেই লম্বা সড়ক বিভাজনের দিকে তাকানোর উপায় নেই।



গোল চক্কর থেকে মিরপুর ১১ নম্বর পর্যন্ত সড়কের অবস্থা আরো জরাজীর্ণ। উল্টো দিকে মিরপুর গোল চক্কর থেকে আগারগাঁও সড়কের বিভাজনের কাজ এখনো কোথাও কোথাও চলছে। ফুটপাথ ব্যবহার উপযোগী নেই। কিন্তু এই সড়ক দিয়েই বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া সব খেলোয়াড় ও দেশি-বিদেশি দর্শকরা ভেন্যুতে যান।



বাংলাদেশে টি২০ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে তা নির্ধারিত হয়েছিল কয়েক বছর আগেই। এজন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও সরকারের তরফ থেকে আগে থেইে প্রস্তুতি নেওয়ার কথা। সে-ই অনুযায়ী তা নেওয়াও হয়েছে। কিন্তু খোদ ভেন্যুর আশপাশের সড়ক, ফুটপাথ ও সড়ক বিভাজনের এই ধীর প্রস্তুতি দেখে বিস্মিত দর্শকরা। কারণ আর কয়েকদিন পরেই এই বিশ্ব আসরের সমাপ্তি হতে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলা দেখে ফেরা দর্শক মনিরুল ইসলাম বললেন, এত সুন্দর মাঠ থেকে বেরিয়ে একটু এগোতেই যদি রাস্তার হাল এরকম থাকে তাহলে তো বিদেশি দর্শক ও খেলোয়াড়দের সামনে মাথা নিঁচু হয়ে যায়।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ০২, ২০১৪ 

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-04-01 14:55:00