bangla news

শিরোপা সম্ভাবনা জাগালো গাজী ট্যাঙ্ক

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০১-৩১ ৯:৪৭:১৬ এএম

প্রিমিয়ার ক্রিকেটের সুপার লিগের তৃতীয় রাউন্ডে হোঁচট খেলো দুই জায়ান্ট আবাহনী ও মোহামেডান। গাজী ট্যাঙ্ক ক্রিকেটার্সের কাছে পাঁচ উইকেটে হেরেছে আবাহনী। মোহামেডান ১২ রানে ধরাশায়ী হয়েছে ওল্ডডিওএইচএসের কাছে।

ঢাকা: প্রিমিয়ার ক্রিকেটের সুপার লিগের তৃতীয় রাউন্ডে হোঁচট খেলো দুই জায়ান্ট আবাহনী ও মোহামেডান। গাজী ট্যাঙ্ক ক্রিকেটার্সের কাছে পাঁচ উইকেটে হেরেছে আবাহনী। মোহামেডান ১২ রানে ধরাশায়ী হয়েছে ওল্ডডিওএইচএসের কাছে। অন্যদিকে বিমান ৮৩ রানে ভুপাতিত হয়েছে ক্রিকেট কোচিং স্কুলের (সিসিএস) কাছে।

জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতিতে আবাহনীর অবস্থান একটু বেশিই টালমাটাল হয়ে পড়েছে। সুপার লিগের প্রথম ম্যাচে হোঁচট খায় বিমানের সামনে। পরের ম্যাচ জিতলেও সোমবার এসে ফের অঘটনের শিকার। বিকেএসপি মাঠে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ২১৮ রান তোলে আবাহনী। মার্শাল আয়্যুব ৬৯ ও রজত ভাটিয়া ৭০ রান করেন। সানজামুল ইসলাম, সাব্বির রহমান ও নাসির হোসেন দুটি করে উইকেট নেন।

দন্তহীন বোলিং দিয়ে গাজীর ব্যাটিং লাইনে ফাটল ধরাতে পারেনি আবাহনী। বিশেষ করে নাসির হোসেনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের সামনে অসহায় হয়ে পড়েন আকাশী-নীল বোলাররা। ১২২ বলে সাতটি চার ও দুটি ছয়ের মার দিয়ে হার না মানা ১০২ রান করেন নাসির। অলক কাপালি রানআউট হয়েছেন ৩৪ রান নিয়ে। আবাহনীর আবুল হোসেন পেয়েছেন দুই উইকেট।

শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে দারুণ ব্যাটিং করে ওল্ডডিওএইচএস। জাতীয় দলের সাবেক ওপেনার জাভেদ ওমরের ব্যাট থেকে আসে ৫৫ রান। শেষদিকে এসে ঝলক দেখলেন জাতীয় দলের আরেক সাবেক ক্রিকেটার আফতাব আহমেদ। তার ব্যাট থেকে আসে ৮৪ রান। ইনিংস শেষে ওল্ডডিওএইচএসের সংগ্রহ দাঁড়ায় আট উইকেটে ২৭৯ রান। ১০ ওভারে ৭৫ রান দিয়ে চার উইকেট নেন মোহামেডানের নূর হোসেন।

জবাবে শুরুটা ভালোই ছিলো মোহামেডানের। নাজিমুদ্দিন করেন ৪৭ রান। তবে শোয়েব মালিকের ১১১ রানের ইনিংসটি বৃথাই গেছে। শেষদিকে রানের গতি মন্থর হয়ে পড়ায় নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৬৭ রান করতে পারে লিগ চ্যাম্পিয়নরা। মূলত তানভির হায়দারের মারাত্মক বোলিংয়ের সামনে মন্থর হয়ে পড়েছিলো মোহামেডান। ১০ ওভারে ৪৫ রান দিয়ে ছয় উইকেট নেন তিনি।

এদিকে সিসিএস আগে ব্যাটিং করে পাঁচ উইকেটে ৩২১ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর সংগ্রহ করে। অমিত মজুমদার ৮৪, শুভাগতহোম চৌধুরী ৭৯ এবং সুলেমান খান অপরাজিত ৫৬ রান করেন। জবাবে ২৪০ রানে অল-আউট হয় গতবারের রানার্সআপ বিমান বাংলাদেশ। অভিষেক মিত্র ৬২, তুষার ইমরান ৪৭ এবং জহুরুল ইসলাম ৮৪ রান করেন।

সিসিএসের নাজমুল হোসেন চারটি এবং সৈকত আলী দুটি উইকেট নেন।

এখন পর্যন্ত ২২ পয়েন্ট করে নিয়ে লিগে যুগ্মভাবে শীর্ষ স্থানে রয়েছে গাজী ট্যাঙ্ক ও আবাহনী। ১৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে মোহামেডান। ওল্ডডিওএইচএসের পয়েন্ট ১৮। শেষ দুই ম্যাচে জয় পেলে রানরেটে এগিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়ন হবে গাজী ট্যাঙ্ক। 

বাংলাদেশ সময়: ২০৩২ ঘন্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-01-31 09:47:16