bangla news

টাইগারদের বোলিং প্রসংশায় নবী

87 |
আপডেট: ২০১৪-০৩-১৬ ১০:৩৩:০০ এএম

প্রস্তুতি ম্যাচে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছিলো বাংলাদেশ। সেই আত্মবিশ্বাসকে আফগানদের বিপক্ষে শতভাগ কাজে লাগিয়েছে মুশফিকরা। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে একের পর এক হার ও এশিয়া কাপে শূন্য হাতে বিদায় নেয় পর টাইগার দলপতির মুখে একটি কথা বার বার শোনা যায় একটি জয় অপেক্ষায় আছি, একটি জয় আমাদের আবার ফিরিয়ে দিতে পারে।

ঢাকা: প্রস্তুতি ম্যাচে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছিলো বাংলাদেশ। সেই আত্মবিশ্বাসকে আফগানদের বিপক্ষে শতভাগ কাজে লাগিয়েছে মুশফিকরা। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে একের পর এক হার ও এশিয়া কাপে শূন্য হাতে বিদায় নেয় পর টাইগার দলপতির মুখে একটি কথা বার বার শোনা যায় একটি জয় অপেক্ষায় আছি, একটি জয় আমাদের আবার ফিরিয়ে দিতে পারে।

হারের বৃত্ত থেকে বের হতে মুখিয়ে ছিলো টাইগাররা। দুই প্রস্তুতি ম্যাচে পেলো জয়ের দেখা এবং এই প্রথম ৯ উইকেট বড় জয় পেলো  আফগানদের বিপক্ষে। বিগত কয়েকদিন যাবত আজকের ম্যাচটি নিয়ে ছিলো নানা শঙ্কা। কিন্তু শঙ্কাকে পাত্তাই দিলো না লাল-সবুজরা। আফগানরা ব্যাট করতে নেমে ১৭.১ ওভারে টাইগারদের বোলিং তোপের কাছে সবকটি উইকেট হারায়। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আফগানিস্তানের ৭২ রানই সর্বনি¤œ। এর আগে ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বনি¤œ ৮০ রানের রেকর্ড ছিলো তাদের।

আজকের এই ম্যাচের আগে মোহাম্মদ নবী অহংকারের সঙ্গে বারবার বলেছেন ছোট ফরমেটের খেলায় আমাদের চেয়ে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে। তার কথার সঠিক জবাব আজ মাঠে দিলো মুশফিকরা। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। আজকের ম্যাচ জয়ের অন্যতম কারণ হিসেবে তিনি বাংলাদেশের বোলিংকে দেখছেন। ‘আমাদের কিছু উইকেট হারানো ভুল ছিলো, শুরুটাও খারাপ ছিলো। প্রথম বলে প্রথম উইকেট হারিয়ে আমাদের পুরো দলকে একটি চাপের মধ্যে পড়ে যায়। গুলবাদিন তৃতীয় স্থানে খেলে। সে ভালো খেলে কিন্তু সাকিব ও রাজ্জাকের ভালো বোলিংয়ে প্রথম সারির চার ব্যাটসম্যানের উইকেট তুলে নেয় তারা। যার ফলে আমরা চাপে পড়ে যাই।’

সমস্ত খেলের ক্রেডিট বাংলাদেশকে দিয়ে তিনি আরো বলেন,‘আমরা এই উইকেটে এমনটি প্রত্যাশা করিনি। ওরা ভালো বোলিং করেছে। ওরা অতিরিক্ত বাউন্স দিয়েছে এমনটি মিডঅনেও তারা অনেক পরিশ্রম দিয়েছে। যদি স্কোর বোর্ডে ভালো একটা রান তুলতে পারতাম তাহলে কিছু একটা প্রত্যাশা করা যেতো।’

অতিআত্মবিশ্বাস ছিলো কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন,‘না আমাদের অতিআত্মবিশ্বাস ছিলো না। এমনিতে আত্মবিশ্বাস ছিলো ভালো খেলার। আজ বাংলাদেশ ভালো ক্রিকেট খেলেছে তাই তারা জয় পেয়েছে। অন্যথায় এরা দুর্বল দলের মাতোই।’

এশিয়া কাপের ম্যাচ ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের ম্যাচের মধ্যে পার্থক্য দেখছেন তিনি। ‘এশিয়া কাপের খেলা আর আজকের খেলার মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। এ ম্যাচে ভালো স্পিনার ছিলো। ইনশাআল্লাহ আমরা সামনে চেষ্টা করবো আরো ভালো করার। স্পিনারদের দিয়ে আরো ভালো করার চেষ্টা করবো। উপমহাদেশের কন্ডিশন, বিশেষ করে বাংলাদেশের কন্ডিশন একটু ব্যতিক্রম। পরবির্ত দুই খেলায় আমরা জয়ের ধারায় ফিরার চেষ্টা করবো।’

ম্যাচ হারের পরও সুপার টেনে যাওয়ার জন্যে প্রত্যাশা জাগিয়ে রেখেছেন তিনি। ‘আমরা চেষ্টা করবো পরবর্তি দুটি খেলায় ভালো করার। ক্রিকেটে যেকোন কিছু হতে পারে। যদি বাংলাদেশ একটি ম্যাচে হারে আর আমরা ভালো করি তাহলে একটি সুযোগ থাকবে সুপার টেনে উঠার। যদি আজ আমরা ১৩০/১৪০ করতে পারতাম তাহলে কিছু একটা করা যেতো। ’

বাংলাদেশ সময়: ২০২৭ ঘণ্টা, ১৬ মার্চ ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-03-16 10:33:00