bangla news

মাশরাফির বোলিংয়ে খুশি সাকিব

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-১২-০৬ ৮:৫৮:১২ এএম

ভালো খেলেও প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে বাংলাদেশ অধিনায়ককে। প্রশ্নটা ব্যক্তিগত পারফরমেন্স নিয়ে নয়। জিম্বাবুয়ের সঙ্গে দলের ব্যাটিং নিয়ে। টানা তিন ম্যাচের কোনটিতেই বড় স্কোর হয়নি। ....

ঢাকা: ভালো খেলেও প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে বাংলাদেশ অধিনায়ককে। প্রশ্নটা ব্যক্তিগত পারফরমেন্স নিয়ে নয়। জিম্বাবুয়ের সঙ্গে দলের ব্যাটিং নিয়ে। টানা তিন ম্যাচের কোনটিতেই বড় স্কোর হয়নি। বিশ্বকাপের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ক্রিকেট বোদ্ধারা ব্যাটিং নিয়ে শঙ্কা মুক্ত হতে পারছেন না।

অধিনায়ক সাকিব আল হাসান অবশ্য এতে বিচলিত নন। বরং বিশ্বকাপে অনেক ভালো ব্যাটিং হবে বলে বিশ্বাস,“আমরা এখানে ২৪০ থেকে ২৫০ করতে পারছি। প্রত্যেকের ব্যাট থেকে রান এলে বিশ্বকাপেও ভালো করা সম্ভব। অন্তত ২৮০ রান করা সম্ভব। যদিও একসঙ্গে সবার পক্ষে ভালো খেলা সম্ভব নয়।”

বাংলাদেশ অধিনায়ক একেবারে অমূলক কিছু বলেননি। ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপের আগেও জিম্বাবুয়ের সঙ্গে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে যার সুফলও পেয়েছে। এবার দেশের মাটিতে হবে বিশ্বকাপ। খেলাও হচ্ছে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। অতএব প্রস্তুতি অংশ হিসেবে প্রতিপক্ষ হিসেবে জিম্বাবুয়ে একেবারে মন্দ নয়। অন্তত জয়ের অভ্যাসে থাকবে বাংলাদেশ। ক্রিকেটারদের মনবলও থাকবে চাঙ্গা।

অবশ্য এখনো সিরিজ জেতা হয়নি স্বাগতিকদের। চট্টগ্রামে একটি জয় পেলে সিরিজ নিশ্চিত হবে। জয়ের মধ্যে থাকায় বাকি দুই ম্যাচেও সাফল্যের ব্যাপারে আশাবাদি সাকিব,“আমার মনে হয় না চট্টগ্রামে কোন অসুবিধা হবে। দলের সবাই চাঙ্গা হয়ে আছে। খেলায় কি করতে হবে, সবাই জেনে গেছে। আমার মনে হয় মিরপুরের চেয়েও ভালো খেলা হবে চট্টগ্রামে। ওই মাঠে বল গ্রিপ করতে সুবিধা। বিশেষ করে স্পিনাররা ভালো করবে।”

তৃতীয় ম্যাচেও ৬৫ রানের বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এরচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পেস বোলাররা ফর্ম ফিরে পেয়েছেন। সাকিবের দৃষ্টিতে,“মাশরাফি ভাই ভালো বোলিং করেছে এটাই আমাদের জন্য বড় অর্জন। পরের ম্যাচগুলোতে এই পারফরমেন্স কাজে দেবে। খুবই ভালো বোলিং করেছেন তিনি। আমি আগেই বলেছি কয়েকটা ম্যাচ গেলেই আগের ছন্দে ফিরতে পারবেন মাশরাফি ভাই।”

১০ ওভারে একটি মেডেন ওভারসহ ২০ রান খরচায় একটি উইকেট নিয়েছেন নড়াইল এক্সপ্রেস। বাংলাদেশ দলের জন্য বড় পাওয়া আব্দুর রাজ্জাকের ফর্মে থাকা। বোলিং অ্যাকশন শুধরানোর পরে সবচেয়ে ভালো সময় পার করছেন বাঁহাতি এই স্পিনার। তৃতীয় ম্যাচেও ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন।

দেখতে দেখতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৫০টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। যার মধ্যে জয় পেয়েছে ২৭টিতে। সর্বশেষ জয় এসেছে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ অলরাউন্ডার সাকিবের হাত ধরে।
 
এদিকে জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক পরাজয়ের কারণ হিসেবে শিশিরকেই দুষলেন,“বল গ্রিপ করা যাচ্ছিলো না। অনেক কষ্টে বোলিং করতে হয়েছে। কিন্তু কাজটা সহজ ভাবে করতে পারলে আমাদের জন্যও সুযোগ থাকতো।”

জিম্বাবুয়েন কোচের দৃষ্টিতে খুবই ভালো ব্যাটিং করেছেন প্রসপার উৎসেয়া। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন অ্যালান বুচার,“খুবই ভালো খেলা হয়েছে। চাপের মধ্যে থেকেও উৎসেয়া যেভাবে রান করেছে দলের জন্য একে ইতিবাচক বলতে হবে। অন্যরা এভাবে খেলতে পারলে আমরা একটা সুযোগ পেতে পরি।”

তবে সবশেষে অ্যালান স্বাগতিক স্পিনার আব্দুর রাজ্জাককে কৃতিত্ব দিয়েছেন,“মূলত রাজ্জাকই ব্যবধান গড়ে দিয়েছে।”

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-12-06 08:58:12