ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ০৬ জুন ২০২৩, ১৭ জিলকদ ১৪৪৪

খেলা

বাফুফের অপেশাদারিত্বে হতাশ ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৫২ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০২৩
বাফুফের অপেশাদারিত্বে হতাশ ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

ফ্রান্সের প্যারিসে অনুষ্ঠিতব্য অলিম্পিক গেমসের নারী ফুটবল ইভেন্টের বাছাইপর্বে বাংলাদেশ দলের অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে। কিন্তু আজ (২৯ মার্চ) এক ভিডিও বার্তায় বাফুফে জানিয়েছে আর্থিক সংকটের কারণে তারা সেখানে খেলতে পারছে না।

 ভিডিও বার্তায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাছে আবেদন করে সাহায্য পায়নি বলে দাবি করেন বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ।  

বাফুফের সাহায্য চাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বাস্তব দিক তুলে ধরেছেন। তার দাবি, বাফুফে কোনো রকম অগ্রিম অবগতি ছাড়াই হঠাৎ করে সাহায্য চেয়েছে। যা অপেশারাদারিত্বেরই প্রকাশ। ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জানান কোনো রকম প্রস্তুতি বা পরিকল্পনা ছাড়াই সরকারে উপর এভাবে দোষ চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।  

ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে প্রত্যেক ইভেন্টের জন্য আগে থেকেই আর্থিক সাহায্যের আবেদন করতে হয়। অন্যান ফেডারেশনগুলো আগে  থেকেই নিজেরে পরিকল্পনা করে। অর্থবছরের শুরুতেই তাদের কোন কোন ইভেন্ট রয়েছে এবং এর খচর বিষয়ে মন্ত্রনালয়কে অবগত করেন।  এরপর খাত অনুযায়ী বরাদ্দ দেওয়া হয়। এমনটা জানিয়ে জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘সব ফেডারেশনকেই খাত অনুযায়ী অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়। অর্থবছরের শুরুতে আর্চারি কি পরিমাণ টাকা চাইছে, সেই অনুযায়ী টাকা দেয়া হচ্ছে। দাবা কি চাইছে, সে অনুযায়ী টাকা হচ্ছে। সব ফেডারেশনের ক্ষেত্রেই বিষয়টা একই। অর্থবছরের শুনরুতে যে পরিকল্পনা আসে সে অনুযায়ী আমরা টাকা দেই। ’

তবে বাফুফে কিছু না জানিয়েই হুটট করে মন্ত্রনালয়ের কাছে টাকা চেয়ে চিঠি দিয়েছে চার-পাঁচ দিন আগেই। বাফুফের হুট করে টাকা চাওয়ার বিষয় নিয়ে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বরেন, ‘হঠাৎ করে যদি বলে যে, আমাদেরকে সোয়া এক কোটি বা দেড় কোটি টাকা দিতে হবে, তাহলে কোথা থেকে আমরা দেব? এটা তো কোনো বেসরকারি কোনো প্রতিষ্ঠান না যে আমরা চাইলেই টাকা দিয়ে দেব। ’

বাফুফের পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি আরও বলেন, ‘কোনো রকম অবগত করা ছাড়াই আমাদের কাছে হুট করে চিঠি পাঠিয়েছে। হতে পারে, বছরের শুরুতে তারা ভুলে গেছে। মেনে নিলাম। তবে আরও কিছু দিন সময় নিয়ে তো তারা চিঠি দিবে। চিঠি দিয়ে চার-পাঁচ দিনের মধ্যে তো আর সব হয়না। তারা এভাবে দোষে চাপিয়ে দিতে পারে না। এটাতে তাদের পেশাদারিত্বের অভাবেই পরিলক্ষিত হয়। ’

সাহায্য চাওয়ার পর যে দীর্ঘ প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে হয় সে বিষয়েও বিস্তারিত বলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আগে ভুলে  গেলেও তো তাদের অন্তত এক-দুই মাস আগে আমাদের জানানো উচিত। কারণ সরকারের একটি প্রক্রিয়া তো থাকে। তারা আবেদন করলে আমাদের কাছে আসে। এখান থেকে অর্থমন্ত্রণালয় যায়। সেখান থেকে জিজ্ঞেস করা হয় কি কারণে লাগবে। আমরা আবার জবাব দিতে হয়। এরপর অর্থমন্ত্রাণালয় সিদ্ধান্ত নেয় দেবে নাকি দেবে না। ’

কোনো রকম অবগত করা ছাড়াই সরকারের উপর দোষ চাপিয়ে দেওয়ার বিষয়টি হতাশ করেছে জাহিদ আহসান রাসেলকে। তিনি বলেন, ‘তারা (বাফুফে) কোনো রকম প্রক্রিয়া না মেনেই সরকারের উপর বিষয়টি চাপিয়ে দিল। টুর্নামেন্টে যেতে হলে তাদের কিরকম প্রস্তুতি লাগবে, কি পরিকল্পনা হবে। এরূপ কোনো কিছুই তাদের মধ্যে নেই। ’

এর আগে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কাছ থেকে সাহায্য চাওয়ার ব্যাপারে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেছিলেন, ‘আমরা গত সপ্তাহে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের নিকটে এ প্রতিযোগিতার জন্য আর্থিক সহযোগিতার বরাদ্দ চাই। কিন্তু জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে কোনো আশানুরূপ ফলাফল না আসায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা অলিম্পিক বাছাইয়ে অংশগ্রহণ করতে পারছি না। ’

আগামী ৫ এপ্রিল শুরু হওয়া এ আসরটি শেষ হবে ১১ এপ্রিল। বাছাই পর্বে বাংলাদেশের গ্রুপে রয়েছে- ইরান, মিয়ানমার ও মালদ্বীপ

বাংলাদেশ সময়: ২২৪৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০২৩
এআর/আরইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa