ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

সিঙ্গাপুর

সিঙ্গাপুর থেকে অবৈধ বাংলাদেশি বহিষ্কার, নিয়োগকর্তার জেল

আনোয়ার হোসেন, সিঙ্গাপুর করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫১ ঘণ্টা, অক্টোবর ২২, ২০১৪
সিঙ্গাপুর থেকে অবৈধ বাংলাদেশি বহিষ্কার, নিয়োগকর্তার জেল ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সিঙ্গাপুর: সিঙ্গাপুরে অবৈধভাবে ‍অবস্থান ও কাজ করার অপরাধে দুই বাংলাদেশি ও তিন জন ভারতীয়কে আটক করে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে পুলিশ।

তাদের চাকরি দেওয়ার অপরাধে ধরম্ বীর সিং (৩৯)নামে এক ব্যবসায়ীকে তিন  মাসের কারাদণ্ড ও ৯০০০০ ডলার (৫৪ ল‍াখ টাকার সমপরিমাণ) জরিমানা করেছে আদালত।



সিঙ্গাপুরের সিভিল জুডিশিয়াল আদালত গত ২০ অক্টোবর এই রায় ঘোষণা করে।

ধরম্ বীর সিং সিঙ্গাপুরের লিটল ইন্ডিয়ায় রাজধানী রেস্টুরেন্ট এন্ড ক্যাটারিং এবং চায়না টাউন এলাকায় শাইমা এন্টারপ্রাইজ প্রতিষ্ঠানের মালিক। উভয় প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ অবৈধভাবে কাজ করার অপরাধে ওই পাঁচ অবৈধ অভিবাসীকে আটক করে ও সিঙ্গাপুর থেকে বহিষ্কার করে।   

তাদেরকে কাজ দেওয়ার অপরাধে ধরম্ বীর সিংয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

সিঙ্গাপুরে আইন অনুযায়ী একটি কোম্পানির ওয়ার্ক পারমিটধারী বিদেশি নাগরিকরা অন্য কোম্পানিতে কাজ করতে পারেন না। তারপরেও আদম ব্যবসায়ীরা ভুয়া কোম্পানির নামে ওয়ার্ক পারমিট বের করে প্রতি বছর বাংলাদেশ, ভারত, চীন ও ফিলিপাইন থেকে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে সিঙ্গাপুরে কর্মী আনে। এরপর তারা কম বেতনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অবৈধভাবে চাকরি দেয়। কিন্তু, সর্বত্র আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর নজরদারীর কারণে প্রায়শই তাদেরকে ধরা পড়ে দেশে ফিরে যেতে হয়। এমনকি, তাদের পাসপোর্ট কালো-তালিকাভুক্ত হয়ে যাওয়ার কারণে তারা পরবর্তীতে বৈধভাবেও আর সিঙ্গাপুরে আসতে পারেনা।  

সিঙ্গাপুরে অবৈধ বিদেশি নাগরিকদেরকে চাকরিতে নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানের মালিককে প্রতিজন কর্মীর জন্য ৫,০০০ থেকে ৩০,০০০ ডলার পর্যন্ত জরিমানা এবং সর্বোচ্চ ১২ মাসের জেলের  বিধান রয়েছে।

সিঙ্গাপুরের শ্রম ও জনশক্তি মন্ত্রনালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩ সালে মোট ৯৩ জন অবৈধ কর্মীকে সিঙ্গাপুর থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। ১২ জন নিয়োগদাতাকে জেল-জরিমানার সম্মুখীন হতে হয়েছে।

বাংলাদেশ সময় ২০৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ২২, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa