ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ট্রাভেলার্স নোটবুক

সব প্রতিবন্ধকতা ছুড়ে ফেলে এগিয়ে যাবে নিশাত: শিক্ষামন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২১ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০২২
সব প্রতিবন্ধকতা ছুড়ে ফেলে এগিয়ে যাবে নিশাত: শিক্ষামন্ত্রী ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বাঙালি সাধারণ মেয়ে অথচ দুঃসাহসী কাজ করেন নিশাত। সব প্রতিবন্ধকতা ছুড়ে ফেলে এগিয়ে যাবে সে।

মানাসলু পর্বতে উড়ার জন্যে যে পতাকা তুলে দিলাম, সেই পতাকা শীর্ষ পদে অবস্থান করবে।

শনিবার (২৭ আগস্ট) সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তৃতীয় তলায় মাওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে অভিযাত্রী আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

পৃথিবীর অষ্টম উচ্চতম পর্বত ‘মানাসলু’ শৃঙ্গ অভিযানের পতাকা অর্পণ ও ‘ওরিয়ন ট্রেক উইথ নিশাত’ বিষয়ক এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছ থেকে পতাকা গ্রহণ করেন নিশাত মজুমদার ও প্রজ্ঞা পারমিতা রায়।

তিনি বলেন, নারীরা সব দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। মানুষ স্বপ্ন দেখায়, প্রধানমন্ত্রী সেই স্বপ্ন দেখাচ্ছেন জাতিকে। আর নিশাতরা সেই স্বপ্ন দেখাচ্ছেন নারীদের। যার ফলে এবার তার সঙ্গে যোগ দিয়েছে আরেক মেধাবী ও দুঃসাহসী নারী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী প্রজ্ঞা পারমিতা।

তিনি বলেন, আমরা চাই তারা বাংলাদেশের পতাকা পর্বতে উড়াবে। সেই দুঃসাহসী অভিযানের গল্প ফিরে এসে তারা আমাদের শোনাবে।

এর আগে লিখিত বক্তব্যে অভিযাত্রীর সংগঠক মির্জা জাকারিয়া বেগ বলেন, মেয়েদের জন্য বৃহত্তর ক্ষেত্র ও সুযোগ তৈরি করার প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য, যার মাধ্যমে সামাজিক ট্যাবু ভেঙে তারা এগিয়ে আসতে পারে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশের প্রথম এভারেস্ট আরোহী নারী নিশাত মজুমদার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ আয়োজনে নিশাত মজুমদারের সঙ্গে এমন এক তরুণীকে নির্বাচন করার চেষ্টা করা হয়েছে যিনি পর্বতারোহণে একেবারে নবীন। এ নির্বাচন প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে অভিযাত্রী কয়েকটি ধাপে যাচাই-বাছাই কার্যক্রম পরিচালনা করে। যার মাধ্যমে সার্বিক দিক বিবেচনায় একজন প্রতিযোগী নিশাত মজুমদারের সঙ্গে মানাসলু পর্বতের বেজ ক্যাম্প পর্যন্ত ট্রেক করার সুযোগ পেতে যাচ্ছেন।

ওরিয়নের আর্থিক সহযোগিতায় এ আয়োজনে অভিযাত্রী নিশাত মজুমদার ও প্রজ্ঞা পারমিতা রায় ২৯ আগস্ট নেপালের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবেন। অতঃপর কাঠমান্ডু থেকে পৌঁছাবেন মানাসলু পর্বতের পাদদেশে বেশিশাহার নামের একটি স্থানে। সেখান থেকে শুরু হবে ট্রেকিং। প্রজ্ঞা পারমিতা রায় উক্ত পর্বতের বেজ ক্যাম্প পর্যন্ত আরোহণের মাধ্যমে তার যাত্রা শেষ করে দেশে ফিরে আসবেন এবং নিশাত মজুমদার মানাসলু পর্বতের শীর্ষবিন্দু স্পর্শ করতে এগিয়ে যাবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযাত্রী ইনাম আল হকের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন ইউসেপ বাংলাদেশের চেয়ারপারসন পারভীন মাহমুদ, ওরিয়ন গ্রুপের করপোরেট অ্যাফেয়ার্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আশফাকুল আলম প্রমুখ।  

প্রসঙ্গত, মানাসলু পৃথিবীর অষ্টম উচ্চতম পর্বতশৃঙ্গ। এই পর্বতের উচ্চতা আট হাজার ১৬৩ মিটার। হিমালয়ে অবস্থিত এ পর্বত আরোহণের স্বপ্ন পূরণে একের পর এক পর্বতপ্রেমীরা বিভিন্ন সময়ে মানাসলু আরোহণের উদ্যোগ নিয়েছেন। প্রথমবারের মতো একটি জাপানি দল ১৯৫৬ সালে ৯ মে সফলভাবে আরোহণ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১১১৩ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০২২
এনবি/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa