ঢাকা, রবিবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৮, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ সফর ১৪৪৩

সালতামামি

২০২০ সালে হবিগঞ্জে অর্ধশতাধিক খুন

বদরুল আলম, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০
২০২০ সালে হবিগঞ্জে অর্ধশতাধিক খুন

হবিগঞ্জ: সারাবিশ্বের মতো ২০২০ সালে বাংলাদেশেও করোনা মোকাবিলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিল সরকার। করোনার এ বছরেও হবিগঞ্জ জেলায় খুন হয়েছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।

পুলিশের তথ্য অনুযায়ী ১১ এপ্রিল হবিগঞ্জে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর মাসের বাকি দিনগুলোতে খুন হন ১০ জন। ২০টিরও বেশি সংঘর্ষে আহত হন দুই শতাধিক মানুষ। এসব খুনের ঘটনায় অধিকাংশেরই রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। আসারিরা স্বীকারোক্তি দিয়েছেন আদালত।

পরের মাস মে থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন উপজেলায় খুন হয়েছেন আরও অন্তত ৪০ জন। বছরজুড়ে দাঙ্গারোধমূলক প্রচারণা অব্যাহত রেখেছিল জেলা পুলিশ। এরপরও এতজন মানুষের প্রাণ গেলো। যদিও পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন ঘটনাগুলোর অধিকাংশই পারিবারিক এবং ছোট বিরোধকে কেন্দ্র করে; তারপরও এনিয়ে আতঙ্ক-উৎকণ্ঠায় মানুষ।

কর্মকর্তাদের বক্তব্য এবং ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে পুলিশের সংবাদ সম্মেলন অনুযায়ী গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদগুলোর শিরোনাম:

২১ জানুয়ারি আজমিরীগঞ্জে বাবা-মাকে কেটে নদীতে ভাসিয়ে দিল ছেলে, ২৫ মার্চ বাহুবলে ঘুমন্ত শিশু সন্তানকে শ্বাসরোধে হত্যা করল পিতা, ৫ ফেব্রুয়ারি লাখাইয়ে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন, ২১ ডিসেম্বর বানিয়াচংয়ে জোড়া খুন, ২০ ফেব্রুয়ারি হবিগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিকে শ্বারোধে হত্যা, ৫ মার্চ নবীগঞ্জে পান বিক্রেতা খুন, ৩ মার্চ চুনারুঘাটে চা শ্রমিককে মদ পান করিয়ে হত্যা, ১০ মার্চ বাহুবলে চা শ্রমিক হত্যা, ৪ মার্চ নবীগঞ্জে নারীর জন্য ব্যবসায়ী হত্যা, ২২ মার্চ লাখাইয়ে অধিপত্যের বিরোধে একজন খুন, ২৩ মার্চ হবিগঞ্জ সদরে যৌতুকের জন্য স্ত্রী হত্যা, ২০ মার্চ লাখাইয়ে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের জন্য একজন খুন।  

১০ সেপ্টেম্বর তরুণীকে ধর্ষণের পর হত্যা, ১৫ সেপ্টেম্বর বাহুবলে ক্যারাম খেলা নিয়ে দুই ভাইয়ের বিরোধে এক ভাই খুন, ২৫ অক্টোবর রাস্তায় নারীর মরদেগ ফেলে পালানোর সময় যুবক আটক, ৬ আগস্ট নবীগঞ্জ শ্যালিকা-দুলাভাইয়ের অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় শাশুড়ি খুন, ১০ আগস্ট আজমিরীগঞ্জে ইজিবাইকের পাস দেওয়াকে কেন্দ্র করে যুবক খুন, ১৬ আগস্ট হবিগঞ্জ সদরে ভাগ্নের হাতে খালা খুন, ২৬ আগস্ট প্রতিবেশীর ছুরিকাঘাতে নির্মাণ শ্রমিক খুন, ২৭ জুলাই বানিয়াচংয়ে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা।

২৫ ডিসেম্বর চুনারুঘাটে শ্যালিকাকে হত্যা করে আত্মহত্যার নাটক, ১৪ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ সদরে খামারী হত্যায় বিএনপি নেতা ও তার ভাই গ্রেফতার,৭ ডিসেম্বর বানিয়াচংয়ে নারীকে পিটিয়ে হত্যা, ২ ডিসেম্বর উচাইলে পরকীয়ার জন্য মায়ের হাতে মেয়ে খুন, একইদিন মদের সঙ্গে বিষ পান করিয়ে স্বামী হত্যা, ১৮ নভেম্বর প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা, ১৩ নভেম্বর নবীগঞ্জে ছিনতাইয়ের সাক্ষী না রাখতে অটোরিকশা চালককে হত্যা, ৬ নভেম্বর নবীগঞ্জে ভাতিজাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা।

এছাড়াও হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় আরও অন্তত ১২ জনের প্রাণ গেছে অন্যের আঘাতে। এনিয়ে স্থানীয় দৈনিকগুলোতে সংবাদ প্রকাশিত হয়। হত্যায় জড়িত অনেকেই গ্রেফতার হয়েছেন। কোনো কোনো ঘটনায় আদালত স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও গ্রহণ করেছেন।

এ ব্যাপারে জেলা পুলিশের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, হত্যাকাণ্ডগুলোর অধিকাংশই পারিবারিক। আড়াইশ’ টাকার জন্যও খুন করা হয়েছে এক ব্যক্তিকে। অন্য এলাকায় এ ধরনের হত্যাকাণ্ড চিন্তাও করা যায় না। যে কারণে বিষয়গুলো পুলিশের আগে থেকেই জানা ছিল না।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa