ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১ রজব ১৪৪৪

প্রবাসে বাংলাদেশ

ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশ খাদ্য-সংস্কৃতি উৎসব

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০২২
ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশ খাদ্য-সংস্কৃতি উৎসব

ঢাকা: ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশ হাইকমিশনের ‘বাংলাদেশ খাদ্য ও সংস্কৃতি উৎসব-২০২২’ উদযাপিত হয়েছে। ব্রুনাইয়ের বাংলাদেশ হাইকমিশন ও ব্রুনাই ফুড অ্যাওয়ার্ডসের তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত এই উৎসবে খাদ্য পরিবেশন করে বাংলাদেশ কমিউনিটির একাধিক রেস্তোরাঁ।



রোববার (৪ ডিসেম্বর) ব্রুনাইয়ের বাংলাদেশ হাইকমিশন এ তথ্য জানায়।

উৎসবের প্রথম পর্ব ‘বাংলাদেশ স্ট্রিট ফুড ফেস্টিভ্যাল’ এই শিরোনামে অনুষ্ঠিত হয় বন্দর সেরি বেগওয়ানে ডি’গ্রিন সিলেট রেস্তোরাঁয়, যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রুনাইয়ের প্রাথমিক সম্পদ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব ইয়াং মূলিয়া দায়াং হাজাহ তুতিয়াতি বিনতি হাজি আব্দুল ওয়াহাব।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ব্রুনাইয়ে ভারতের হাইকমিশনার অলোক অমিতাভ দিমরি, তিমুর লেস্তের রাষ্ট্রদূত এবেল গুতেরেস এবং ব্রুনাই ফুড এওয়ার্ডসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাজী নাসির লতিফ।

স্ট্রিট ফুড ফেস্টিভ্যালে মোট ৭টি বাংলাদেশের রেস্তোরাঁ তাদের নিজ নিজ বিশেষ খাবার নিয়ে অংশগ্রহণ করে।

ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশ হাইকমিশনার নাহিদা রহমান সুমনা, ভারত ও তিমুর লেস্তের রাষ্ট্রদূত, ও ব্রুনাই ফুড অ্যাওয়ার্ডসের সিইও হাজি নাসির এই ৭টি রেস্তোরাঁর সিগনেচার ডিশগুলোর স্বাদ নেন। একইসঙ্গে বিচার করে স্কোর দেন।

একই দিন বিকালে ব্রুনাইয়ের হোটেল রেডিসনে ‘বাংলাদেশ খাদ্য ও সংস্কৃতি উৎসব ২০২২’ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়।  
এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন ব্রুনাইয়ের অ্যাটর্নি জেনারেল ইয়াং বেরহরমাত দাতো সেরি পাদুকা হাজি আহমেদ বিন পেহিন ওরাং কায়া লায়লা সেতিয়া বাক্তি ডি রাজা দাতো লায়লা উতমা হাজী আওয়াং ইসা, যিনি রিবন কেটে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানের এই পর্বে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্রুনাইয়ের প্রাথমিক সম্পদ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, ভিয়েতনাম, তুরস্ক, ইরান, জাপান, মালয়েশিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, থাইল্যান্ড, পাকিস্তান, তিমুর লেস্তের রাষ্ট্রদূতসহ আরও অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তি।

বাংলাদেশ খাদ্য ও সংস্কৃতি উৎসবের বিচারকরা ডি’গ্রিন সিলেট রেস্তোরাঁকে তাদের ‘বিফ বিরিয়ানির জন্য ‘দ্য বেস্ট ডিশ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করেন। ‘মিতা ও মেহেদী’ রেস্তোরাঁ তাদের বিশেষ মিষ্টির জন্য দ্বিতীয় পুরস্কারে ভূষিত হয়। আর তৃতীয় পুরস্কার যৌথভাবে গ্রহণ করে শান্তিনূর রেস্তোরাঁ (কাতল মাছের ঝোল) এবং বৈশাখী রেস্তোরাঁ (সরিষা ইলিশ)।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৪, ২০২২
টিআর/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa