ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

রাজশাহীতে জনরোষের মুখে বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার বসানোর কাজ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২১
রাজশাহীতে জনরোষের মুখে বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার বসানোর কাজ

রাজশাহী: রাজশাহীতে জনরোষের মুখে থেমেছে বিদ্যুতের স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার বসানোর কাজ। সম্প্রতি আকস্মিকভাবে রাজশাহী শহরের বিভিন্ন এলাকায় প্রি-পেইড মিটার বসানোর কাজ শুরু করেছিল নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো)।

এরপর প্রি-পেইড মিটারের বিরুদ্ধে ফুঁসে ওঠেন রাজশাহীবাসী। রাজশাহী মহানগরের প্রতিটি ওয়ার্ডে গণশুনানির আগে প্রি-পেইড মিটার না বসানোর জন্য নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের (নেসকো) প্রতি আহ্বান জানানো হয়। স্থানীয় সামাজিক সংগঠন রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের এক বিক্ষোভ-সমাবেশ থেকে জোরালোভাবে এই দাবি জানানো হয়।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. জামাত খান বাংলানিউজকে বলেন, রাজশাহী অঞ্চলে আগে গ্রাহকদের বাড়িতে এনালগ বৈদ্যুতিক মিটার ছিল। সেই মিটার সরিয়ে ডিজিটাল মিটার বসানো হয়েছিল। এখন আবার ডিজিটাল মিটার ফেলে দিয়ে প্রি-পেইড মিটার বসানো হচ্ছে। অথচ রাজশাহীতে কোনো গ্রাহকের বিল বকেয়া নেই। কিন্তু সচল মিটার ফেলে প্রি-পেইড মিটার লাগানো হচ্ছে। এটি জনগণের পকেট কাটার একটি ফন্দি। এই মিটার জনগণের ভোগান্তির নতুন কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, নেসকো বলছে প্রি-পেইড মিটার দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যে। কিন্তু তা সঠিক নয়। মিটারের মূল্য গ্রাহকের কাছ থেকেই কেটে নেওয়া হবে। তাছাড়া মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো কখন কত টাকা গ্রাহকের কাটে তা যেমন টের পাওয়া যায় না তেমনি প্রি-পেইড মিটারে কখন কত টাকা কাটা হবে সেটারও ঠিক নাই। ছুটির দিন বা রাত ৮টার পর প্রি-পেইড মিটারের কার্ড পাওয়া যায় না। কত টাকা মিটার থেকে কাটা হয়েছে সেটাও বোঝা যায় না। এ জন্য একজন গ্রাহকের যদি মধ্যরাতে মিটারের টাকা শেষ হয় তাহলে সারারাত তাকে অন্ধকারেই কাটাতে হবে। সে জন্য তারা এই মিটার বর্জন করছেন। ইতোমধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, খুলনা, যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে প্রি-পেইড মিটার লাগানো হয়েছে।

আন্দোলন শুরুর পর সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিয়ে গত ৪ ফেব্রুয়ারি আলোচনায় বসে নেসকো। ওই সভায় স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার বসানো স্থগিত করা হয়। গণশুনানি ও গণসচেতনতা সৃষ্টি করেই মহানগরে স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করা হবে বলে জানানো জয়।

নেসকো রাজশাহীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জাকিউল ইসলাম এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সবাই গণশুনানি ও গণসচেতনতা সৃষ্টি না হওয়া পর্যন্ত স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার লাগানো বন্ধ রাখার দাবি জানাচ্ছিলেন। তাই মহানগরে এ পর্যন্ত যে ২ হাজার ১০০ স্মার্ট প্রি-পেইড মিটার বসানো হয়েছে সেগুলোর ক্রেতাদের আরও সচেতন করা হবে বলে জানান। এরপর এই নতুন মিটারের সুবিধা সম্পর্কে সবাইকে আরও তথ্য দিয়ে এবং উদ্বুদ্ধ করে তার পরই পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২১
এসএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa