ঢাকা, বুধবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

নবায়নযোগ্য শক্তিতে বিনিয়োগের আহ্বান

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০২০
নবায়নযোগ্য শক্তিতে বিনিয়োগের আহ্বান

ঢাকা: কয়লা ও এনএনজি-ভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোতে অর্থায়ন না করে বৈদেশিক বিনিয়োগকারীদের নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেলে ‘এনার্জি ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক ভার্চ্যুয়াল আন্তর্জাতিক সংলাপ থেকে তারা এ আহ্বান জানান।

 

বাংলাদেশের শক্তিখাতে বিদেশি বিনিয়োগের পূর্ণাঙ্গ চিত্রটি বোঝার লক্ষ্যে আয়োজিত এই আন্তর্জাতিক সংলাপটির সহ-আয়োজক হিসেবে ছিল বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ১৬টি ক্যাম্পেইন গ্রুপ, বিভিন্ন ননপ্রফিট ও পরিবেশ আন্দোলন সংগঠন। ইন্ডিয়ান সোশাল অ্যাকশন ফোরাম (ইনসাফ) এর সভাপতি বিদ্যা ডিঙ্কার ও কোস্টাল লাইভলিহুড অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল অ্যাকশন নেটওয়ার্ক (ক্লিন) এর নির্বাহী পরিচালক হাসান মেহেদী সংলাপের সঞ্চালনা করেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আনু মুহাম্মদ সংলাপের উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী বক্তব্যে আনু মুহাম্মদ বলেন, বাংলাদেশের যেখানে নবায়নযোগ্য শক্তির মাধ্যমে জ্বালানি উৎপাদন করার সব ধরনের সুযোগ ছিল সেখানে বাংলাদেশ নোংরা জ্বালানির অন্ধ পথে এগিয়ে চলেছে।  

তিনি বলেন, বাংলাদেশের কোনো কয়লা বা পরমাণুভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ছিল না, কাজেই আমরা শুরু থেকেই নবায়নযোগ্য শক্তির মাধ্যমে শুরু করতে পারতাম। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে, সরকার ও তাদের বিদেশি পথপ্রদর্শকরা বিদ্যুৎ উৎপাদনে জীবাশ্ম ও নোংরা জ্বালানি বেছে নিলেন যেখানে তাদের হাতে যথেষ্ট বিকল্প ছিল।   

আমাদের পাওয়ার সিস্টেম মাস্টার প্ল্যান (পিএসএমপি) বেশ মজার, সেখানে বাংলাদেশি কোনো পরামর্শক জড়িত নেই। প্রত্যেকেই ছিলেন জাইকা (জেআইসিএ) ও জাপান থেকে, যোগ করেন তিনি।

পরিবেশবিদ ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেন, যেখানে উন্নত বিশ্ব নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে যাওয়ার ক্ষেত্রে চাপের মুখে রয়েছে, সেখানে বাংলাদেশের মতো দেশে এই দাবি আমরা আরও জোরালোভাবে তুলে ধরতে পারি।

দ্য সানরাইজ প্রোজেক্ট’র (চায়না) সিনিয়র স্ট্যাটেজিস্ট ইটিং ওয়াং ‘চায়নিজ ইনভেস্টমেন্ট ইন কোল পাওয়ারপ্ল্যান্ট ইন বাংলাদেশ’, আর্জওয়াল্ড’র (জার্মানি) রিসার্চার তন্নী নওশীন ‘ইউরোপিয়ান কোম্পানি ইনভলবমেন্ট ইন বাংলাদেশ’স এনার্জি সেক্টর’, ইন্ডিয়া ম্যাটারস’র (যুক্তরাজ্য) ফোকাল পারসন ডা.  মনন গাঙ্গুলি ‘ফসিল ফুয়েল এনার্জি ইনভেস্টমেন্ট: ইন্ডিয়া অ্যান্ড বাংলাদেশ’, এনজিও ফোরাম অন এডিবির (ফিলিপাইনস) নির্বাহী পরিচালক রায়য়ান হাসান ‘এডিবি অ্যান্ড এআইআইবি ইন বাংলাদেশ এনার্জি ইনভেস্টমেন্ট: মোর কোয়েশ্চনস দ্যান আনসারস’ এবং মার্কেট ফোর্সেস’র (অস্ট্রেলিয়া) অ্যানালিস্ট মুনিরা চৌধুরী ‘ইজ জাপান’স নেট জিরো বাই ২০৫০ কমিটমেন্ট অ্যালাইনড উইদ ইটস এনার্জি ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যানস’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

সংলাপটির সহ-আয়োজনে ছিল- বাংলাদেশ ওয়ার্কিং গ্রুপ অন এক্সটারনাল ডেট (বিডব্লিউজিইডি), এশিয়ান পিপলস মুভমেন্ট অন ডেট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (এপিএমডিডি), ব্যাংক ট্র্যাক, ক্লিন (কোস্টাল লাইভলিহুড অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল অ্যাকশন নেটওয়ার্ক), গ্রিন ক্যামেল বেল (জিসিবি), গ্রোথওয়াচ (ইন্ডিয়া), ইন্টারন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি প্রজেক্ট (আইএপি), ইনসাফ (ইন্ডিয়ান সোশাল অ্যাকশন ফোরাম), জাপান সেন্টার ফর সাসটেইনেবল এনভায়নমেন্ট অ্যান্ড সোসাইটি (জেএসিএসইএস), ক্রুহা (পিপলস কোয়ালিশান ফর দ্য রাইট টু ওয়াটার), মার্কেট ফোর্সেস (অস্ট্রেলিয়া), এনজিও ফোরাম অন এডিবি, ফুলবাড়ি সলিডারিটি গ্রুপ (পিএসজি), রিকোর্স, দ্য সানরাইজ প্রোজেক্ট, আর্জওয়াল্ড (জার্মানি)।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০২০
এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa