ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

৭ বছর পর মঙ্গলবার নেত্রকোনা জেলা আ. লীগের সম্মেলন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২২
৭ বছর পর মঙ্গলবার নেত্রকোনা জেলা আ. লীগের সম্মেলন

নেত্রকোনা: দীর্ঘ ছয় বছর নয় মাস পর মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হতে যাচ্ছে। এ সম্মেলনকে ঘিরে সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ।

 

সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন পর রাজনীতির মাঠ চাঙ্গা হয়ে উঠেছে।

সর্বশেষ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হয়েছিল বিগত ২০১৬ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি। দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ায় সম্ভাব্য পদ প্রত্যাশী ও সাধারণ নেতাকর্মীরা ঝিমিয়ে পড়েছিলেন। আগামী ২৪ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সারা দেশের মতো নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ও মোড়গুলোতে শোভা পাচ্ছে প্রার্থীদের ছবি সম্বলিত শতাধিক তোরণ। সম্ভাব্য প্রার্থীরা তৃণমূল থেকে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও দলীয় হাই কমান্ড পর্যন্ত ব্যাপক লবিং, গ্রুপিং ও তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা প্রতিদিনই নিজ নিজ কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে জেলা শহরের ছোট বাজারস্থ দলীয় কার্যালয়ে যাচ্ছেন এবং সম্মেলন সফল করতে কাজ করে যাচ্ছেন। এরই মধ্যে ঐতিহাসিক মোক্তারপাড়া ঈদগাহ্ মাঠে বিশাল প্যান্ডেল নির্মাণ করা হয়েছে। ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে মাঠের চারপাশ।

নেত্রকোনা সদর, মদন, খালিয়াজুরী, বারহাট্টা, দূর্গাপুর ও কলমাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। প্রতিটি উপজেলার সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে চমক এসেছে। এরই ধারাবাহিকতায় জেলা সম্মেলনে কে হচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, এ নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে চলছে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা।
   
জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী হয়েছেন। নেতৃবৃন্দ জানান, ২০০৪ সালের মতো এবারের সম্মেলনে কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হবে না। দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আগামী তিন বছরের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করবেন।  
  
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ প্রত্যাশীরা হলেন বর্তমান কমিটির সভাপতি মতিয়র রহমান খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (জিপি) অ্যাডভোকেট আমিরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) আব্দুন নূর খান, সাধারণ সম্পাদক সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু, সাবেক সংসদ সদস্য মঞ্জুর কাদের কোরাইশী এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-১ পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নজরুল ইসলাম খান।

সাধারণ সম্পাদক পদ প্রত্যাশীরা হলেন-বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-২ নুর খান মিঠু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-৩ সাবেক পৌর মেয়র ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পিপি অ্যাডভোকেট ইফতেখার উদ্দিন আহমেদ মাসুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক ভজন সরকার, অ্যাডভোকেট মো. শামছুর রহমান ভিপি লিটন, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. জিল্লুর রহমান নোমান, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ওমর ফারুক, জেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি কেশব রঞ্জন সরকার।
    
সম্মেলনে কে হচ্ছেন দলের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন পর্যন্ত।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa