ঢাকা, রবিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ আগস্ট ২০২২, ১৫ মহররম ১৪৪৪

রাজনীতি

শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান হবে: আমান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪১ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২২
শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান হবে: আমান

ঢাকা: গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান হবে বলে মন্তব্য করেছেন ডাকসুর সাবেক ভিপি ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির মোহাম্মদপুর থানার ২৯, ৩১, ৩২, ৩৩, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মোহাম্মদপুর থানা বিএনপি নেতা এম এস আহমাদ আলীর সার্বিক তত্ত্বাবধানে বছিলা রোড নীরা কমিউনিটি সেন্টারে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

আমান বলেন, ৯০-এর স্বৈরাচার বিরোধী গণআন্দোলনে অনেকের রক্তের বিনিময়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার আপসহীন নেতৃত্বের মধ্য দিয়ে আমরা পেয়েছিলাম গণতন্ত্র। সেই গণতন্ত্র আজ ভূলুণ্ঠিত। মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত। আজকে দেশের জনগণের ভোটাধিকার নেই। সেই ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য এ বাংলাদেশে, এ ঢাকার মাটিতে শিগগিরই আর একটি গণঅভ্যুত্থান সৃষ্টি হবে। সেই গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এ অবৈধ, ভোট চোর, ভোট ডাকাত, নিশিরাতের আওয়ামী সরকারের পতন হবে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন হবে, তারপর নির্বাচন হবে। জনগণ তার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিলে বিএনপিই আগামীতে সরকার গঠন করবে।  

তিনি বলেন, বন্যাকবলিত এলাকায় মানুষের মধ্যে খাবার নেই, হাহাকার চলছে। অথচ আওয়ামী সরকার দেশের বানভাসি মানুষের দিকে নজর দিচ্ছে না। সরকারের কাছ থেকে কোনো আশানুরূপ ত্রাণ যাচ্ছে না।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আমান বলেন, অবৈধ ও নিশিরাতের আওয়ামী সরকারকে হঠাতে গণআন্দোলনের জন্য যেকোনো সময় ডাক আসতে পারে। তার জন্য সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক বলেন, যে স্বাধীনতার জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধ করেছিলেন সেই স্বাধীনতা আজকে বাংলাদেশে নেই। আজকে অবৈধ ভোটারবিহীন সরকার ১৪ বছর ধরে বাংলাদেশের মানুষের ওপরে চেপে বসে আছে। নিজেদের ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রাখার জন্য মানুষের সার্বভৌমত্ব, জনগণের মৌলিক অধিকার, ভোটের অধিকার, বাকস্বাধীনতা হরণ করেছে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পরে আমাদের আবারও একটি যুদ্ধ করতে হবে। এজন্য সবাইকে যুদ্ধের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য তাবিথ আউয়াল ও ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মোহাম্মদপুর জোনের টিম প্রধান মো. আকতার হোসেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, আতিকুল ইসলাম মতিন, আতাউর রহমান চেয়ারম্যান, মোস্তাফিজুর রহমান সেগুন, ফেরদৌসী আহমেদ মিষ্টি, আক্তার হোসেন, ইউসুফ, আফতাব উদ্দিন জসীম, এবিএমএ রাজ্জাক, আহসান হাবিব মোল্লা, আলাউদ্দিন সরকার টিপু, এম এস আহমাদ আলীসহ বিভিন্ন থানা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে ভোটারদের সরাসরি ভোটের মাধ্যমে ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডে অ্যাডভোকেট মাসুম খান রাজেশ সভাপতি ও ওসমান রেজা সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

এ সম্মেলনের মাধ্যমে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির ৮টি সাংগঠনিক জোনের ২৬টি থানার অন্তর্গত ৭১টি ওয়ার্ডের সম্মেলন গত ১ জুন শুরু হয়ে ২ জুলাই পর্যন্ত ধারাবাহিক কর্মসূচির আওতায় ৭১টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন শেষ হলো।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪০ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০২২
এমএইচ/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa