ঢাকা, শনিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৮, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

জিয়ার কবরে খালেদা গেলে ঝড় বয়ে যেত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
জিয়ার কবরে খালেদা গেলে ঝড় বয়ে যেত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চন্দ্রিমা উদ্যানে গিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করলে রাজনীতিতে ‘ঝড় বইত’ বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, খালেদা জিয়া যদি মুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে দেশবাসীর প্রত্যাশা কী ছিল? জিয়ার কবর জিয়ারত করার জন্য খালেদা জিয়াকে অন্তত হুইল চেয়ারে করে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন। উনি (খালেদা জিয়া) কি যেতে পেরেছেন? আরও সুন্দর হতো উনার হুইল চেয়ার যদি জাইমা (তারেক রহমানের মেয়ে) ঠেলে নিয়ে যেত। সেটা যদি হতো তাহলে আজ এখনে ঝড় বইত, সেই উত্তাল ঝড়ে ভোট ডাকাতরা পালিয়ে যেত। আর যদি খালেদা জিয়া বন্দি থাকেন, তাহলে তাকে মুক্তির ব্যবস্থা করুন।

খালেদা জিয়াকে সাহসী নারী উল্লেখ করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, প্রথমবার যখন ক্ষমতায় এসেছিলেন, তখন আমি বলেছিলাম ট্রানজিট দিয়েন না। তিনি আমার পরামর্শ নিয়েছিলেন। আজকে দেখেন ট্রানজিটে কী পরিমাণ লুট হচ্ছে, এজন্য বলি আমাদের খালেদা জিয়াকে দরকার। উনাকে আরও ছয় মাসের জামিন দিয়েছে। যদি ছয় মাস জেল স্থগিত করা হয়, তাহলে তো উনি মুক্ত। ছয় মাসের জন্য যদি মুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে কবে থেকে মুক্ত বা কবে থেকে মুক্ত হবেন? 

বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, কথা বলা বাদ দেন, মাঠে নামেন। এই ভোট ডাকাতদের সরাতে চাইলে লাঠিসোঁটা যা আছে নিয়ে নেমে পড়তে হবে। ভোট ডাকাতরা পালিয়ে যাবে।

এ নেতা বলেন, বর্তামন ভোট ডাকাতদের সরিয়ে অন্য কাউকে আনলে হবে না। একটা সুষ্ঠু সরকার প্রয়োজন। যেখানে জনগণের অধিকার থাকবে। আমার ভোট আমি যাকে ইচ্ছা তাকে দেব। ধর্মের নামে অনাচার হবে না।

আলেমদের উদ্দেশে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আপনাদের দায়িত্ব অনেক। আপনাদেরকে আমরা শ্রদ্ধা করি, সম্মান করি। অন্যরা দোষ করলে দোষ কম হয়, আপনারা দোষ করলে দোষটা বেশি হয়। আপনারা আমাদের নেতা। মেয়েদেরকে আটকিয়ে রাইখেন না। যে নামাজ পড়ে না তার বিচার করার দায়িত্ব আপনাদের না। খোদা বিচার করবেন।

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির চেয়ারম্যান কে এম আবু তাহেরের সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহীম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না, বিএনপির ভাইস চেয়াম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
এইচএমএস/জেএইচটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa