ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

তফসিল বাতিল চায় বিএনপিসহ আন্দোলনরতরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২৩
তফসিল বাতিল চায় বিএনপিসহ আন্দোলনরতরা

ঢাকা: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল বাতিলের দাবি জানিয়েছে সরকারের বিরুদ্ধে যুগপৎ আন্দোলনে থাকা রাজনৈতিক দলগুলো। তাদের দাবি, সরকার গণদাবি উপেক্ষা করে আরেকটি একতরফা নীলনকশার নির্বাচনের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর তোপখানা রোডে শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সভায় বিএনপিসহ আন্দোলনে থাকা দলগুলোর নেতারা এ দাবি জানান।

বৈঠক শেষে নাগরিক ঐক্যের সাংগঠনিক সম্পাদক শাকিব আনোয়ার স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সভার বক্তব্য তুলে ধরা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আন্দোলনে আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পরিকল্পিত সহিংসতা ও নাশকতার ঘটনা ঘটিয়ে সরকার ও সরকারি দল গত ২৮ অক্টোবর বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর মহাসমাবেশ পণ্ড করে দেয়। বিএনপিসহ বিরোধীদের ওপর এই দায় চাপিয়ে গত এক মাস দমন–নিপীড়ন ও গ্রেপ্তারের মাধ্যমে দেশব্যাপী তারা ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে।

এতে আরও বলা হয়, আমরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে সরকারের পদত্যাগের গণদাবিকে উপেক্ষা করে ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মতো আরেকটি একতরফা নীলনকশার নির্বাচনের পাঁয়তারা চলছে। সরকারের এই রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে তাদের সহযোগী হিসেবে নির্বাচন কমিশন আগামী ৭ জানুয়ারি সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। পাতানো এই নির্বাচনের অংশ হিসেবে আজ ৩০ নভেম্বর কথিত নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখও নির্ধারণ করেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আমরা পরিষ্কার করে উল্লেখ করতে চাই যে, সরকার যদি জেদ আর অহমিকা নিয়ে জবরদস্তি করে নির্বাচনের নামে আরেকটি তামাশা মঞ্চস্থ করতে চায়, তাহলে সরকারের এই অশুভ তৎপরতা প্রতিরোধ করা ছাড়া দেশবাসীর সামনে অন্য কোনো পথ থাকবে না।

বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তফা জামাল হায়দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকিসহ যুগপৎ আন্দোলনে থাকা দলগুলোর শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০২০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২৩
ইএসএস/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।