ঢাকা, বুধবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

ইলিশ বেচাকেনার ধুম রামগতির আলেকজান্ডার মাছঘাটে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২
ইলিশ বেচাকেনার ধুম রামগতির আলেকজান্ডার মাছঘাটে

লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার মেঘনা নদী সংলগ্ন আলেকজান্ডার মাছঘাট। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে টানা সন্ধ্যা পর্যন্ত এ ঘাটে চলে জমজমাট ইলিশের বেচাবিক্রি।

তবে ইলিশের পাশাপাশি সামুদ্রিক অন্য মাছও ওঠে এই ঘাটে।  

লক্ষ্মীপুর জেলাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মাছ ব্যবসায়ীরা এখান থেকে মাছ কিনে নিয়ে যান। এ কারণে ঘাটের পাশেই গড়ে উঠেছে বরফ কল এবং আড়ৎ। ফলে ঘাটকে কেন্দ্র করে আলেকজান্ডার বাজার এলাকায় জমজমাট অবস্থা বিরাজ করতে দেখা গেছে।

বর্তমানে সাগরে ট্রলারগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ইলিশসহ বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ ধরা পড়ছে। সেই মাছের একটি অংশ বেচাবিক্রি হয় এ ঘাটে। উপজেলার মধ্যে প্রধান তিনটি মাছঘাটের মধ্যে এ ঘাটের অবস্থান তৃতীয়।  

স্থানীয়রা জানায়, মেঘনায় ইলিশ ধরা না পড়ায় ঘাটে কিছুটা ভাটা পড়েছে, তবে মেঘনার জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়লে এ ঘাট আরও বেশি জমজমাট থাকতো।  

মাছ ব্যবসায়ী আমির হোসেন বলেন, প্রতিটি এক কেজির বেশি ওজনের দুই হালি ইলিশ তিনি ৮ হাজার টাকায় কিনেছেন।  

ঘাটের আড়তদারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিদিন এ ঘাটে একশ থেকে দেড়শ মেট্রিক টন ইলিশ বেচাকেনা হয়। যার বাজার মূল্য ১০ থেকে ১২ কোটি টাকারও বেশি। সাগরের ইলিশ হওয়ায় প্রতিটি ইলিশের ওজন এক থেকে দেড় কেজির মতো। ছোট আকারের ইলিশের উপস্থিতি একেবারে কম।  

মাছঘাটের একটি বাক্সের মালিক আজমীর হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, এ ঘাটে ৪৫টি বাক্স আছে। এক হাজারের বেশি জেলে নৌকার মাছ এ ঘাটে আসে। সকাল ৮টা থেকে বেচাবিক্রি শুরু হয়, চলে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দিনব্যাপী এক কোটি ১২ লাখ টাকার মাছ বিক্রি হয়েছে তাদের বাক্সতে। শতকরা ১০ টাকা হারে তারা জেলেদের কাছ থেকে কমিশন নেন।  

তিনি জানান, ঘাটকে ঘিরে অনেকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘাটে পাঁচশ'র মতো কর্মী রয়েছে।  

আড়তদার হাজী নেছার আলী বাংলানিউজকে বলেন, আলেকজান্ডার মাছঘাটটি সড়কের খুব কাছে হওয়ায় এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা আসতে পারে। এছাড়া অনেকে খাওয়ার জন্যেও এ ঘাট থেকে মাছ কিনে নেন। ফলে ঘাটটি সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জমজমাট থাকে।  

আলেকজান্ডার মাছঘাটের সভাপতি শামছু হাওলাদার বাংলানিউজকে বলেন, আলেকজান্ডার মাছঘাটটি উপজেলার মধ্যে একটি ঐতিহ্যবাহী ঘাট ছিল। কিন্তু নদীতে ইলিশ না থাকায় এখানে মাছের পরিমাণ কিছুটা কমে গেছে। বেশিভাগ মাছই সাগরের। নদীতে মাছ পাওয়া গেলে ঘাটটি আরও জমজমাট হয়ে উঠবে বলে জানান তিনি।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa