ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

জাপানে আন্তর্জাতিক মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বই

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ৫, ২০২৪
জাপানে আন্তর্জাতিক মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বই

ঢাকা: জাপানের ১৭তম আন্তর্জাতিক মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ড আসরে ব্রোঞ্জ পুরস্কার পাচ্ছে বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন নিয়ে জাপানি চিত্রকলার (গ্রাফিকস নোবেল জাপানিজ ‘মাঙ্গা’ ফর্মে) একটি কমিক বই। বইটির নাম ‘ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু’।

বইটির লেখক এম ই চৌধুরী শামীম এবং সহলেখক জাপানের ইওয়ামোতো কেইটা। বইটি প্রকাশ করেছে এনআরবি স্কলার্স পাবলিশার্স লিমিটেড।

মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ড কর্তৃপক্ষ তাদের ভেরিফাইড ফেসবুকে কিছুদিন আগেই এই পুরস্কার ঘোষণা করেছে।  

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) জাপানে মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে টোকিওর ইকুরা হাউসে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে  বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন শাহ আসিফ রহমান।

জাপান ইন্টারন্যাশনাল মাঙ্গা অ্যাওয়ার্ডের বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলা হয়, এবারের আসরে বিশ্বের ৮২টি দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ৫৮৭ জন অংশগ্রহণকারীরা অংশ নেন। এর মধ্য থেকে বিচারকরা বিশ্লেষণ করে বিজয়ীদের নির্বাচন করেন। এ আসরে প্রতিযোগীদের মধ্যে একজনকে স্বর্ণ পদকের জন্য, তিনজনকে রৌপ্য পদকের জন্য, নয়জনকে ব্রোঞ্জ এবং একজনকে বিশেষ পুরস্কারের জন্য নির্বাচন করা হয়। গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তাইওয়ানের শিল্পী চিয়েন জেসনের লেখা উইন্ড চেজার আন্ডার দ্য ব্লু স্কাই। রৌপ্য পদক পান হংকংয়ের শিল্পী বনি প্যাং এর লেখা ক্রোনোস এক্সপ্রেস, ভিয়েতনামের শিল্পী নাচির দ্য ডান্সিং ইউনিভার্স এবং স্পেনের শিল্পী আনা অনসিনার জাস্ট ফ্রেন্ডস।

‘ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু’ বইটি এ প্রতিযোগিতায় ব্রোঞ্জ পদক পেয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বর্ণাঢ্য জীবন এবং দীর্ঘ সংগ্রাম এই মাঙ্গা ফর্মে তুলে ধরা হয়েছে। বইটি বাংলা, ইংরেজি, জাপানি ও হিন্দি এই চার ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

আয়োজকেরা জানান, এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রতিভাবান মাঙ্গা শিল্পীদের স্বীকৃতি এবং বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়। মাঙ্গা হচ্ছে একধরনের জাপানি কমিকস। মাঙ্গার রয়েছে একটি অনন্য চিত্রশৈলী ও গল্প বলার বিশেষ প্রকৃতি, যা এটিকে বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছে। জনপ্রিয় মাঙ্গা সিরিজের মধ্যে আছে ডোরেমন, ড্রাগন বল, অ্যাটাক অন টাইটান, এ সাইল্যান্ট ভয়েস অন্যতম। সারা বিশ্বের মাঙ্গা কমিকের বাজার প্রায় ১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। আগামী ২০৩২ সালের মধ্যে এটি প্রায় ৫২ বিলিয়ন ডলারের বাজার হবে বলে আশা করা হয়েছে। বিশ্বের প্রায় ১০০টি দেশে মাঙ্গার বাণিজ্যিক কার্যক্রম আছে। এবার এই কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত হলো বাংলাদেশ। জাপানে মাঙ্গা নিয়ে যেসব কাজ হয় তার একটি বড় অংশ কোরিয়া, ভিয়েতনাম, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আউটসোর্সিং করা হয়। বাংলাদেশের পদক জয়ে এই কাজের স্বীকৃতির মাধ্যমে সারা পৃথিবীর মাঙ্গা প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ও মাঙ্গা শিল্পীরা বাংলাদেশ কে নতুন করে চিনতে পারল। এখন মাঙ্গা বাণিজ্যের সঙ্গে বাংলাদেশ যুক্ত হয়েছে। এতে বাংলাদেশেও আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে মাঙ্গার কাজ আসার সম্ভাবনা তৈরি হলো।  

গত বছরের ৫ এপ্রিল বাংলাদেশ-জাপান বন্ধুত্বের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন নিয়ে জাপানিজ ‘মাঙ্গা’ ফর্মে এই কমিক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। পরে ২৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাপান সফরের সময় জাপানের রাজধানী টোকিওর আকাসাকা প্যালেসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার বোন শেখ রেহানার হাতে বইটি তুলে দেওয়া হয়। বইটি তুলে দেন এর লেখক ও সেন্টার ফর এনআরবি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা এম ই চৌধুরী শামীম ও বইটির সহলেখক ইওয়ামোতো কেইটা। এ সময় পাঁচ পর্বের বইটির বাকি চার পর্বের প্রকাশ ও প্রকাশনার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবহিত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেন।

লেখক এম ই চৌধুরী শামীম বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’ বইটিতে আমরা বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে তুলে ধরেছি। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষ্যে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের কথা বলা হয়েছে। বইটির পাঠক শিশু-কিশোর, যারা ভবিষ্যতে বাংলাদেশকে পৌঁছে দেবে সাফল্যের ও উন্নতির স্বর্ণশিখরে। এ প্রথম বঙ্গবন্ধু কে নিয়ে জাপানি মাঙ্গা ভঙ্গিতে লিখিত ও অঙ্কিত পাঁচ পর্বের গ্রন্থের প্রথম পর্ব হিসেবে এই বই প্রকাশিত হয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১০৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ০৫, ২০২৪
টিআর/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।