ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

ফরিদপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় এ কে আজাদের ২ সমর্থক আহত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
ফরিদপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় এ কে আজাদের ২ সমর্থক আহত

ফরিদপুর: প্রতিপক্ষের হামলায় ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য এ কে আজাদের দুই সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছেন।  

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে ফরিদপুর সদরের ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের বাবুপাড়া গ্রামে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

 

আহতদের ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ কে আজাদ হাসপাতালে তাদের দেখতে যান এবং চিকিৎসার খোঁজখবর নেন।  

আহতরা হলেন- বাবুপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহ শেখ (২২) ও ফরিদপুর শহরের পশ্চিম খাবাসপুর মহল্লার নাহিদ হাসান (২৭)। এর মধ্যে আব্দুল্লাকে পিটিয়ে ও নাহিদকে কুপিয়ে জখম করা হয়। নাহিদের পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। নাহিদ আব্দুল্লার স্ত্রীর বড় ভাই।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে পুলিশ। মোটরসাইকেলটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াসের।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একটি অংশের নেতৃত্ব দেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম মজনু। অপর অংশের নেতৃত্ব দেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল সরকার লোটন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শহীদুল ইসলাম মজনু আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম হকের নির্বাচন করেন। অপরদিকে উজ্জ্বল সরকার স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য এ কে আজাদের নির্বাচন করেন।  

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে উজ্জ্বল সরকারের সমর্থক আব্দুল্লাহ শেখ বাবুপাড়া খেলার মাঠে গেলে মজনুর ১০ থেকে ১২ জন সমর্থক তাকে মারধর করে আহত করেন। এ খবর পেয়ে আব্দুল্লাহর দুই সম্বন্ধী তৌহিদুল ইসলাম ও নাহিদ হাসান আব্দুল্লার বাড়িতে যান। ওই সময় আবারও মজনুর সমর্থক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস তার পক্ষের বেশ কিছু সমর্থক নিয়ে মোটরসাইকেলে করে আব্দুল্লার বাড়িতে গিয়ে চড়াও হয়ে তাদের ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করেন। এতে আব্দুল্লার সম্বন্ধী নাহিদ গুরুতর আহত হন।  

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আব্দুল্লাহ জানান, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে আজাদের ঈগল মার্কার পক্ষে কাজ করেছেন। এজন্য ঈশান গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহীদুল হাসান মজনু তার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তিনি বাবুপাড়া সংলগ্ন খেলার মাঠে গেলে শহীদুলের সমর্থকরা তাকে মারধর করেন। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক উজ্জ্বল সরকার জানান, আব্দুল্লাহ দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে এ কে আজাদের পক্ষে কাজ করেছেন। এজন্য মজনুর সমর্থকরা তার প্রতি ক্ষুব্ধ ছিলেন। তিনি (আব্দুল্লাহ) বৃহস্পতিবার বিকেলে খেলার মাঠে গেলে তাকে মজনুর সমর্থকরা মারধর করে আহত করেন।  

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম মজনু বলেন, ওই সময় তিনি ফরিদপুর শহরে ছেলেকে ডাক্তার দেখাতে নিয়ে এসেছিলেন।  

ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুল গফফার বলেন, এ ঘটনায় আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাস্থল থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। মোটরসাইকেলটি ঈশান গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইলিয়াস হোসেনের। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

বাংলাদেশ সময়: ২৩৫৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪
আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।