ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

‘ভাষা শহীদদের সাহস ও ত্যাগ আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০১৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
‘ভাষা শহীদদের সাহস ও ত্যাগ আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা’ ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: ভাষা শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে ভাষাপ্রেমী মানুষের ঢল নেমেছে। সকল বয়সের মানুষ, ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ সকলেই ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় ভাষা-প্রেমিক মানুষ ফুল, প্লেকার্ড, এবং ব্যানার নিয়ে শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকায় সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, মাতৃভাষার প্রতি অটুট ভালোবাসা ও শহীদদের প্রতি পরম মমতায় শ্রদ্ধা জানাতে মানুষের ঢল নেমেছে। শহীদ মিনারের চারপাশে ফুলের তোড়া ও পতাকা হাতে দলে দলে মানুষ ভিড় জমাতে শুরু করে। ফুল দিতে আসা সাধারণ মানুষের লাইন জগন্নাথ হল হয়ে পলাশী মোড় পর্যন্ত পৌঁছে গেছে।  

পলাশী মোড় থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার অভিমুখী জগন্নাথ হলের গেটের সামনের রাস্তায় মেটাল ডিটেক্টর বসানো হয়েছে পুরো রাস্তাজুড়ে। শ্রদ্ধা জানাতে আসা প্রত্যেককে তল্লাশির মাধ্যমে শহীদ মিনার এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে।

এদিন সকাল থেকেই সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ফুল নিয়ে এসেছেন শহীদ মিনারের প্রাঙ্গণে। অনেকেই শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে নিজেদের তৈরি করা প্লেকার্ডও বহন করছেন।

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসা মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, তারা মাতৃভাষার প্রতি ভালবাসা ও শহীদদের ত্যাগের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতেই আজ শহীদ মিনারে এসেছেন। অনেকে বলছেন, ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের মাধ্যমে আমরা যে মাতৃভাষা পেয়েছি, তার প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞ থাকা উচিত।

শহীদ মিনারে আসা আবরার ফারহান নামে এক শিক্ষার্থী বাংলানিউজকে বলেন, ভাষা শহীদদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা জানাতে এসেছি। তাদের আত্মত্যাগের কারণেই আজ আমরা আমাদের মাতৃভাষায় কথা বলতে পারছি।

অন্য আরেক শিক্ষার্থী তানিয়া আক্তার বলেন, ভাষা শহীদদের সাহস ও ত্যাগ আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা। তাদের স্মৃতি ধারণ করে আমাদের সকলকে মাতৃভাষার প্রতি দায়িত্ব পালন করতে হবে।

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মালিবাগ থেকে সপরিবারে এসেছেন সাইফুল সুফল ও নিপুন আক্তার দম্পতি। কথা হলে সাইফুল সুফল বাংলানিউজকে বলেন, পরিবারের সকলের সঙ্গে আমার ছোট ছেলেকেও নিয়ে এসেছি। যাতে সে বুঝতে পারে আমাদের কাছে মাতৃভাষার গুরুত্ব কতটুকু। এই ভাষার জন্য কত প্রাণের বিসর্জন দিতে হয়েছে আমাদের।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রবেশের ক্ষেত্রে পলাশী মোড় দিয়ে প্রবেশ করতে হচ্ছে। এছাড়া অন্য রাস্তাগুলো বেরিয়ে যাবার জন্য ব্যবহার হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কঠোর অবস্থান দেখা গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০১০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
ইএসএস/এমএম 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।