ঢাকা, রবিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

মিরপুরে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে: মেয়র আতিক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০২৩
মিরপুরে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে: মেয়র আতিক

ঢাকা: রাজধানীর মিরপুরে আধুনিক মানের সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলে ঘোষণা করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।  

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মিরপুরে পল্লবী সিটি ক্লাব মাঠে ‘মিরপুর মুক্তির উৎসব-২০২৩’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ ঘোষণা দেন।

 

আতিকুল ইসলাম বলেন, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে একটি সুস্থ ও মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে হবে। নানা সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে জানাতে হবে। সাংস্কৃতিক চর্চা আমাদের জীবনের অংশ। মিরপুরের সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোকে অনুরোধ করছি আমাকে জায়গার সন্ধান দিন। কোথাও অবৈধ দখল হওয়া জমি থাকলে আমাদের জানান। মিরপুরে আধুনিক মানের সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করে দেব।

মেয়র বলেন, ১৯৭১ সালে ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করলেও মিরপুর তখনো মুক্ত হতে পারেনি। পুরো মিরপুর মুক্তি লাভ করে ৩১ শে জানুয়ারি। মিরপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। যুদ্ধের সময় থেকেই মিরপুরে নানা সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড হতো। এখানে অনেক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রয়েছে। রয়েছে অনেক সাংস্কৃতিক সংগঠন।

তিনি বলেন, বাঙালি খেলা প্রিয়, সংগীত প্রিয় ও সংস্কৃতি প্রিয় জাতি। ছেলে-মেয়েদের খেলাধুলা ও মানসিক বিকাশের জন্য আমরা মাঠ ও পার্ক নির্মাণ করছি। কিছুদিন আগে মিরপুর প্যারিস রোড সংলগ্ন খেলার মাঠটি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে অবৈধ দখল থেকে উদ্ধার করেছি। খাল উদ্ধার করেছি। দখলদারদের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হয়ে গেছে। কেউ আর অবৈধভাবে মাঠ ও খাল দখল করে রাখতে পারবে না। দখল ও দূষণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে।

মিরপুরের উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে মেয়র বলেন, একসময় মিরপুর অবহেলিত ছিল। বর্তমানে মিরপুরে মেট্রোরেলসহ রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কালশীতে ফ্লাইওভারের কাজ প্রায় শেষ। দ্রুতই এটি উদ্বোধন করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশব্যাপী ব্যাপক উন্নয়ন কাজ চলমান।

মেয়র আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। এই শহর পেয়েছি। আমাদের প্রত্যেককে এই শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব নিতে হবে। যেখানে সেখানে ময়লা ফেলা যাবে না। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এই শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি বাসযোগ্য সুস্থ নগরী রেখে যেতে হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১৬ আসনের সংসদ সদস্য ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী জহিরুল ইসলাম মানিক ও ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. তাইজুল ইসলাম চৌধুরী বাপ্পি প্রমুখ।  

বাংলাদেশ সময়: ২২৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০২৩
এমএমআই/এসএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।