ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ জুলাই ২০২২, ০০ জিলহজ ১৪৪৩

আইন ও আদালত

২০০৮ সালে গাজীপুরের ঠিকাদার সাঈদ খুন: হাইকোর্টের রায় রোববার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৯ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২২
২০০৮ সালে গাজীপুরের ঠিকাদার সাঈদ খুন: হাইকোর্টের রায় রোববার

ঢাকা: ২০০৮ সালে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ধীরাশ্রম এলাকার ঠিকাদার আবু সাঈদ হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডের পাঁচ আসামির ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে।

রোববার (২২ মে) বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চে এ মামলার রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. আমিনুল ইসলাম।

পূর্বশত্রুতার জেরে ২০০৮ সালের ১৭ জুন রাতে ধীরাশ্রম এলাকার মাটি সরবরাহের ঠিকাদার ব্যবসায়ী মো. আবু সাঈদকে (৪২) বাড়ি থেকে ডেকে নেন আসামিরা। পরে রাত ১১টার দিকে আসামিরা তাকে মারধর ও শ্বাসরোধে হত্যা করে ধীরাশ্রম রেলওয়ে স্টেশনের কাছে ফেলে রাখেন। খবর পেয়ে পরদিন নিহত আবু সাঈদের বাবা মো. নুরুল ইসলাম ওরফে নুরু মিয়া ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ শনাক্ত করেন এবং পুলিশে খবর দেন। ওই দিনই ছেলে হত্যার ঘটনায় একই এলাকার ইয়াকুব, দেলোয়ার, মাসুদ ও হান্নানের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত তিন-চারজনকে আসামি করে জয়দেবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

এ মামলার বিচার শেষে ২০১৬ সালের ৪ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ এ কে এম এনামুল হক রায় ঘোষণা করেন। রায়ে পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং একজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ধীরাশ্রম এলাকার মো. ইয়াকুব আলী, মো. হান্নান ওরফে হান্নু, মো. দেলোয়ায়ার হেসেন ওরফে দেলু, মো. মনির ও মো. ইকবাল হোসেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত হলেন একই এলাকার মো. মাসুদ ওরফে মাইছ্যা।  

পরে মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়। পাশাপাশি আসামি দেলোয়ার, হান্নান ও ইকবাল আপিল করেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৮ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২২
ইএস/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa