ঢাকা, রবিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৮, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭ সফর ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

এডিসন অ্যালায়েন্স বাংলাদেশের প্রতিনিধি পলক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫২ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২১
এডিসন অ্যালায়েন্স বাংলাদেশের প্রতিনিধি পলক

ঢাকা: ডিজিটাল অর্থনীতিতে বৈশ্বিক এবং ন্যায়সঙ্গত প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম ইসেনশিয়াল ডিজিটাল ইন্সফ্রাসট্রাকচার অ্যান্ড সার্ভিসেস নেটওয়ার্ক ‘এডিসন অ্যালায়েন্স’ নামে একটি জোট গঠন করেছে। এ জোটে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সোমবার (৩১ মে) এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করে আইসিটি বিভাগ।

এতে বলা হয়, ২০১৯ সালে করোনা মহামারির ফলে সারা বিশ্বে যে নতুন (নিউ নর্মাল) পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, ফলে ডিজিটাল প্রযুক্তি প্রবেশাধিকার তথা অ্যাক্সেসের ক্ষেত্রে নাটকীয় পরিবর্তন এসেছে। এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে কাজ করতে, শিখতে ও জীবনযাপনের অনুষঙ্গ হিসেবে ব্যবহার করতে মানুষকে আগের চেয়ে অনেক বেশি সক্ষম করে তুলেছে। একইসঙ্গে এ মহামারি বিশ্বের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যার মধ্যে বিদ্যমান বৈষম্যকে উন্মোচিত করছে ও বাড়িয়েছে। পৃথিবীর প্রায় ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন মানুষ অফলাইনে থাকেন। উন্নত বিশ্বের জনসংখ্যার প্রায় ৫০ শতাংশের জন্য ব্রডব্যান্ড কানেক্টিভিটি এখনও বেশ ব্যয়বহুল। সে কারণে স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও অর্থনৈতিক কার্যক্রমে মানুষের প্রবেশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম ‘এডিসন অ্যালায়েন্স’ নামক এই জোট গড়ে তুলেছে।

এ জোটের লক্ষ্য হচ্ছে ডিজিটাল অর্থনীতিতে বৈশ্বিক এবং ন্যায়সঙ্গত অ্যাক্সেস নিশ্চিত করা। প্রযুক্তি শিল্প ও অর্থনীতির অন্যান্য সমালোচনামূলক খাতগুলোর মধ্যে ‘ক্রস সেক্টরাল’ সহযোগিতা নিশ্চিত করা। উদ্বোধনের সময় ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম জানিয়েছিল যে, এ জোটটিকে পরামর্শ ও সহায়তা দেবে, চ্যাম্পিয়ন লিডারর্সদের একটি বড় গ্রুপ।

এডিশন অ্যালায়েন্সর অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

গঠিত হওয়ার পর এই জোটটির প্রথম সভায় শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিকখাতে বাংলাদেশের প্রযুক্তিগত উদ্যোগগুলো তুলে ধরেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক।

অনুষ্ঠানে তিনি ডিজিটাল অ্যাক্সেস নিশ্চিত করা, শহর ও গ্রামাঞ্চলের বৈষম্যগুলো কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের পদক্ষেপগুলোও তুলে ধরেন, যা অনায়াসেই পৃথিবীর অন্য অনেক দেশের জন্য রোল মডেল হতে পারে।

ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম ২০১৬ সালে জুনাইদ আহমেদ পলককে ইয়ং গ্লোবাল লিডার হিসেবে মনোনিত করেছিল। এ বছর সমগ্র দক্ষিণ-এশিয়ার মধ্য থেকে জুনাইদ আহমেদ পলক এই মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চ্যাম্পিয়ন লিডার্সরা এ এডিসন অ্যালায়েন্সর সদস্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৮ ঘণ্টা, মে ৩১, ২০২১
এসএইচএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa