ঢাকা, শনিবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ জুলাই ২০২২, ০১ জিলহজ ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

অ্যাপ বিক্রির সুযোগে উৎসাহী নির্মাতারা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪২ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০১৭
অ্যাপ বিক্রির সুযোগে উৎসাহী নির্মাতারা

ঢাকা: গুগল মার্চেন্ট একাউন্টের তালিকায় বাংলাদেশ যুক্ত হওয়ায় প্লে স্টোরে অ্যাপ বিক্রির সুবিধা পেয়ে উৎসাহী হয়ে উঠেছেন অ্যাপ নির্মাতারা। তারা বলছেন, এতো দিন সরাসরি পেমেন্ট সুবিধা না থাকায় মানসম্মত অ্যাপ তৈরি হলেও হতাশা ছিল। এখন সেই সুযোগ লাভ করায় আরো মানসম্মত অ্যাপ তৈরিতে উৎসাহবোধ করবেন ডেভেলপাররা।

গুগলের সাপোর্ট সেন্টার ‘লোকেশনস ফর ডেভেলপার অ্যান্ড মার্চেন্ট রেজিস্ট্রেশন’ বিভাগে ৭ নভেম্বর বাংলাদেশের নাম যুক্ত করে।
 
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ জানিয়েছে, এর ফলে বাংলাদেশের অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপাররা বাংলাদেশ থেকে এ টেক জায়ান্টের অ্যাপ্লিকেশন বাজার ‘গুগল প্লে’তে অ্যাপ বিক্রি করতে পারবে।

অ্যাপ বিক্রির সুযোগে উৎসাহী নির্মাতারা

গুগল মার্চেন্টে অ্যাকাউন্ট না থাকায় এতো দিন বাইরের কারো নামে অ্যাকাউন্ট দিয়ে অ্যাপ আপলোড করা হতো। এতে বিভিন্ন সমস্যায় পড়তেন অ্যাপ নির্মাতারা।
 
প্রযুক্তির প্রসারে দেশের তরুণরা জনপ্রিয় বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ তৈরি করে আসছে। বর্তমানে দেশের প্রযুক্তিপ্রেমিদের তৈরি লাখের বেশি অ্যাপ রয়েছে বলে জানিয়েছেন অ্যাপ ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান ইজি টেকনোলজি লিমিটেডের ফাউন্ডার এবং সিইও মফিজুর রহমান টিপু।
 
বাংলানিউজকে তিনি বলেন, আমরা ২০১২ সালে অ্যাপ ডেভেলপ করা শুরু করেছিলাম। সেই সময় থেকে অ্যাপ ফ্রি দেওয়া ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। পরবর্তীতে গুগল অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করা যেতো।
 
তিনি বলেন, গুগল মার্চেন্ট একাউন্টের তালিকায় বাংলাদেশ যুক্ত হওয়ায় পেমেন্ট প্রসেস খুব ইজি হলো। ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ইউএসডি ট্রানজিট দিয়ে পেমেন্ট করা যাবে।
 
‘যারা গেম ডেভেলপ করে তারা গেমের জন্য বিশ্বব্যাপী ক্রেডিট-কয়েন বিক্রি করতে পারবেন। এখন ডেভেলপারদের সিস্টেমটাও পরিবর্তন হবে। কারণ আমাদের অনেক ভালো অ্যাপ আছে।
 
উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ইয়ুথ অপারচ্যুনিটি নামে অ্যাপ তৈরি হয়েছে, যেটির বিদেশেও প্রচুর চাহিদা রয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটির বর্তমানে একশ’র বেশি অ্যাপ মার্চেন্ট অ্যাকাউন্টে আছে।
 
গুগল মার্চেন্ট অ্যাকাউন্টের বাইরে আইফোন, উইনডোজ, আমাজনের অ্যাপ বিক্রি হয় বলে জানান টিপু।
 
বর্তমানে দেশের তৈরি এক লাখের বেশি অ্যাপ আছে জানিয়ে আর্কাডিও’র সিইও রাফিউর রহমান বলেন, অ্যাকাউন্ট না থাকায় এতো দিন বাইরের কারো নামে ইলিগ্যাল অ্যাকাউন্ট দিয়ে অ্যাপ আপলোড করা হতো। এতে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়।  
 
এছাড়া মূল্য না পাওয়ায় দেশি ডেভেলপাররা ভালো মানের অ্যাপস তৈরিতে উৎসাহ পেতো না। এখন একটি অ্যাপে ২/৩ ডলার পেলে উৎসাহী হবে বলে মনে করেন রাফিউর।
 
তিনি বলেন, অন্য দেশের সঙ্গে মিউজিক, ফটো ও ভিডিও এডিটিং অ্যাপ নিয়ে তারা কাজ করতেন। এটাতে ফটো থেকে ভিডিও, জিপ ফাইল তৈরি হয়। গুগল মার্চেন্টে যুক্ত হওয়ায় এখন বাংলাদেশের জন্য কাজ করবেন তারা।
 
এর মাধ্যমে ভবিষ্যতের জন্য প্রযুক্তিবিদদের ইনকামের সোর্স তৈরি হবে জানিয়ে রাফিউর বলেন, অ্যাড শো করার সময়ে ক্লিক করলে অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যেতো। এখন সেটি হবে না।
 
আর অ্যাপ ডেভেলপারদের পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, কোয়ালিটিফুল অ্যাপ এবং গেমের জন্য অ্যাপের দিকে যাওয়া উচিত হবে।
 
আইওএস নিয়ে কাজ করেন ব্রেইন ক্রাফট লিমিটেডের সিইও সাইম হোসেন। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, গুগল মার্চেন্ট অ্যাকাউন্ট সুবিধায় অবশ্যই ভালো হয়েছে। আগে অ্যাপ বিক্রি করতে পারতো না, বিজনেস অ্যাকাউন্ট খোলা যেতো না। এখন অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে, যা অ্যাপ বিজনেসের জন্য ভালো সুযোগ।
 
তবে এই মুহূর্তে কী পরিমাণ আয় হচ্ছে তা জানতে আরো সময় লাগবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৯৩১ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৯, ২০১৭
এমআইএইচ/জেডএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa