ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভারত

পি কে হালদারদের মামলার ফের শুনানি ১০ আগষ্ট  

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৩ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২২
পি কে হালদারদের মামলার ফের শুনানি ১০ আগষ্ট  

কলকাতা: বাংলাদেশের আলোচিত অর্থ পাচারকারী প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারসহ ছয় অভিযুক্তকে আগামী ১০ আগস্ট ফের আদালতে হাজিরের নির্দেশ দিয়েছেন কলকাতার আদালত। শুক্রবার (১৫ জুলাই) এই নির্দেশ দেন  সিবিআই স্পেশাল কোর্ট-৩ এর বিচারক জীবন কুমার সাধু।

এদিন পি কে হালদার ও তার সহযোগীদের স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় আদালত চত্বরে আনা হয়। বেলা ১২টার দিকে তাদের বিচার শুরু হয়। উপস্থিত ছিলেন সরকার (ভারতের কেন্দ্রীয় আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা-ইডি) ও আসামীপক্ষের আইনজীবীরা।

বিচারকের নির্দেশে ইডি পক্ষের আইনজীবী অরিজিত চক্রবর্তী, অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবীদের হাতে ১০০ পাতার অভিযোগপত্রের (চার্জশিট) কপি তুলে দেন। নিয়ম অনুযায়ী বিচারককের কাছে জমা পড়ে অভিযোগপত্রের মূলকপি।

এরপর বিচারক জীবন কুমার সাধু, অভিযুক্তদের আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে বলেন, চার্জিশট পেয়ে গেছেন, ফের নতুন করে শুনানি হবে। ১০ আগস্ট শুনানির দিন রাখছি। এর পাশাপাশি অভিযুক্তদের সমস্ত জামিনের আবেদন খারিজ করে দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, পি কে হালদারদের জেরা করে ইডি যে তথ্য পেয়েছে তা একত্রিত ৬ হাজার পাতার নথি তৈরী হয়েছে। তার প্রেক্ষিতেই হালদারদের বিরুদ্ধ ১০০ পাতার অভিযোগপত্র জমা পড়েছে আদালতে।

গত সোমবার (১১ জুলাই) অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কলকাতার আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দিয়েছে ইডি। ওই অভিযোগপত্রে পি কে হালদারসহ ছয় অভিযুক্তের নাম রয়েছে। এক্ষেত্রে কেবলমাত্র ‘প্রিভেনশন অব মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট-২০০২’ মামলায় ওই ছয় অভিযুক্তের নামে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

শুনানি শেষে ইডি পক্ষের আইনজীবী বলেন, ১০ আগস্ট ফের শুনানি হবে। অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবীদের হাতে চার্জশিটের কপি দেওয়া হয়েছে। আগামী দিনে সরকার যেগুলো রিলায়বেল মনে করবেন সেসব কপি বিরোধী পক্ষের আইনজীবীদের দেওয়া হবে।  

এর পাশাপাশি ইডির আইনজীবী বলেন, প্রয়োজনে ইডি জেরা চালিয়ে যাবে। আগামী দিনে, যা নতুন তথ্য উঠে আসবে তা সাপ্লিমেন্ট চার্জশিটের কপি হিসেবে আদালতে দেওয়া হবে।

এর সঙ্গে জানা যায়, পি কে হালদার তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয় বলে আদালতে আবেদন করেন। তার প্রেক্ষিতে সম্পুর্ণ মেডিক্যাল চেকআপের নির্দেশ দেন জেল কতৃপক্ষকে। তার চিকিৎসার দিকে নজর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করা পি কে হালদার এবং তার পাঁচ সহযোগিকে গত ১৪মে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪পরগনার অশোকনগর থেকে গ্রেফতার করে ইডি।  তাদের মধ্যে রয়েছেন তার ভাই প্রাণেশ হালদার, স্বপন মিস্ত্রি ওরফে স্বপন মৈত্র, উত্তম মিস্ত্রি ওরফে উত্তম মৈত্র, ইমাম হোসেন ওরফে ইমন হালদার এবং আমানা সুলতানা ওরফে শর্মী হালদার। এরপর ১৪ দিন নিজের রিমান্ডে নেওয়ার পর, গত ২৭মে আদালতের রায় অনুযায়ী, বিচার বিভাগীয় তদন্তের কারণে ১১দিনের জুডিশিয়াল কাস্টাডি (জেসি) হয় পি কে হালদারদের।

ঠিক একইভাবে ৭ জুন আদালতে তোলা হলে তাদের বিরুদ্ধে ১৪ দিনের জেসি হয়। ২১জুন আদালতের রায় অনুযায়ী, আরও ১৪ দিনের জেসি হয়। এরপর ৫ জুলাই আদালতে তোলা হলে ১০ দিনের জেসি দেয় আদালত। ১৫ জুলাইয়ের রায় অনুযায়ী, ফের ১০ আগস্ট শুনানি হবে হালদারদের।
 

বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২২
ভিএস/এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa