ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ০৪ রজব ১৪৪৪

ভারত

নবান্ন নয়, রাইটার্স বিল্ডিং হবে বিজেপির সচিবালয়!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০২ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২১
নবান্ন নয়, রাইটার্স বিল্ডিং হবে বিজেপির সচিবালয়!

কলকাতা: ২০১১ সালে মমতা বন্দোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর কলকাতার ঐতিহ্যবাহী রাইটার্স বিল্ডিং থেকে সচিবালয় স্থানান্তরিত হয় নবান্ন ভবনে। সেদিন মমতার বক্তব্য ছিল, ৩৪ বছরে বাম সরকার রাইটার্স বিল্ডিংয়ে বসে শাসনের নামে অপশাসন চালিয়েছে।

তাই রাইটার্স বিল্ডিয়ে বসে প্রশাসনিক কাজ করবেন না মমতা। রাজ্যের প্রশাসনিক ভবন নবান্ন গড়ে তোলেন হুগলি নদীর তীরে।

অন্যদিকে বিজেপি ক্ষমতায় এলে নবান্ন নয়, ঐতিহ্যবাহী রাইটার্স বিল্ডিং থেকেই রাজ্যপাট চালাবে বলে জানিয়েছেন বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য। ভোটের ফল ঘোষণা তো দূরের কথা, এখনও রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনই শুরু হয়নি। তার আগেই রাইটার্সে রাজ্যের সচিবালয় সরানোর প্রস্তুতি পরিকল্পনা শুরু করেছে বিজেপি। ইতোমধ্যে রাইটার্স বিল্ডিংয়ের সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। যদিও বিজেপির তরফে বলা হয়েছে, এটা ঐত্যিবাহী বিল্ডিং। তাই রুটিন মাফিক সংস্কারের কাজ চলছে, যা করছে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার মিলে।

বিজেপির দাবি, ১৪ তলার নবান্ন থেকে স্বৈরাচারী শাসন চালান মুখ্যমন্ত্রী। তাই সেখান থেকে সচিবালয় রাইটার্স বিল্ডিংয়ে সরিয়ে রাজ্যে ফের সুশাসন প্রতিষ্ঠা করবে তারা। অতীতের ধ্বনি একইভাবে যেন ভাসছে কলকাতাবাসীর কানে। ক্ষমতায় আসার অনেক আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও শুরু করেছিলেন নবান্ন ভবন গড়ার কাজ।

২০০৯ সালে রাজ্যে লোকসভা ভোটে বামদের থেকে ভালো ফল করে মমতার তৃণমূল কংগ্রেস। তারপরই কাজ শুরু হয় নবান্নের। তখন বলা হয়েছিল, তৃণমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক কার্য়ালয় তৈরি হচ্ছে। এরপর পাকাপাকিভাবে ২০১১ সালে বাম জমানার পতন ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসে মমতা সরকার।

অপরদিকে পশ্চিমবঙ্গে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে ৪২ আসনের মধ্যে ১৮ আসনে জয়ী হয় বিজেপি। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি নিশ্বাস ফেলছে মমতার কাঁধে। রাজ্যবাসীর চোখে এ যেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি!

ব্রিটিশ স্থাপত্যের অনন্য নজির রাইটার্স বিল্ডিং। জড়িয়ে আছে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ইতিহাস, যা বাঙালি কোনদিন ভুলবে না। সেই আবেগকে ছোঁয়ার চেষ্টা করছে বিজেপি। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, রাইটার্স বিল্ডিংকে ঘিরে মানুষের আবেগ জড়িয়ে আছে। এই ভবনের ঐতিহ্য বহুদিনের। ওই ভবন থেকেই বাংলায় শাসন ব্যবস্থা ঐতিহাসিকভাবে চলে আসছে। তাই বিজেপি ক্ষমতায় এলে মহাকরণে ফিরবে সচিবালয়।

বাংলায় স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে ঐতিহাসিক রাইটার্স বিল্ডিং। এক সময় বহু আন্দোলনের সাক্ষী থেকেছে এই লালবাড়ি। বিনয়-বাদল-দীনেশের বিপ্লবী আন্দোলন থেকে বিরোধী মমতার ২১ জুলাইয়ের অভিযান। এমনকি ৩৪ বছর এই বাড়ি থেকেই রাজ্য শাসন করেছে বামফ্রন্ট। তারপর মমতা ক্ষমতায় এসে হুগলি নদীর তীরে হাওড়ায় নীল সাদা রঙের নবান্ন ভবনে গড়ে তোলেন সচিবালয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫১ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২১
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa