ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

ভোটে সবচেয়ে বেশি সেনা মোতায়েন হবে পশ্চিমবঙ্গে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৪
ভোটে সবচেয়ে বেশি সেনা মোতায়েন হবে পশ্চিমবঙ্গে

কলকাতা: ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিগত সময়গুলোতে দেখা গেছে, অন্যান্য রাজ্যের চেয়ে ভোটের দিনগুলোতে সবচেয়ে বেশি অশান্ত হয়ে ওঠে পশ্চিমবঙ্গ। এবার সেই দিক বিবেচনা করে ২০২৪ সালের লোকসভা ভোটে বাংলার জন্য সবচেয়ে বেশি সেনা পাঠাচ্ছে নির্বাচন কমিশন; যা জম্মু ও কাশ্মীরের থেকেও বেশি।

নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, সংসদ নির্বাচনে (লোকসভা ভোট) আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য পশ্চিমবঙ্গে ৯২০ কোম্পানি (এক কোম্পানিতে ১০০ জন) কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করতে চায় কমিশন। এ নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

বাংলার পরেই রয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর। কাশ্মীরের জন্য ৬৩৫ কোম্পানি বাহিনী চাওয়া হয়েছে। তবে বাংলার থেকে অনেক বড় রাজ্য উত্তরপ্রদেশের জন্য চাওয়া হয়েছে মাত্র ২৫২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। এছাড়া বিহার ও ছত্তিশগড় রাজ্য দুটিতে যথাক্রমে ২৯৫ ও ৩৬০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী চাওয়া হয়েছে।

এবারে সংসদ ভোটের সাথেই ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ, অরুণাচল প্রদেশ, উড়িষ্যা এবং সিকিমে বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে। কমিশন কেন্দ্রকে জানিয়েছে, অন্ধ্রপ্রদেশ ও উড়িষ্যার জন্য ২৫০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী চায় তারা। অরুণাচল প্রদেশ ও সিকিমের জন্য যথাক্রমে ৭৫ ও ১৭ কোম্পানি বাহিনী হলেই চলবে। এছাড়া ঝাড়খন্ড ও পাঞ্জাব রাজ্যের জন্য ২৫০ কোম্পানি বাহিনী চেয়েছে কমিশন। এই দুটি অ-বিজেপি রাজ্য। এছাড়া গোষ্ঠীহিংসায় বিধ্বস্ত মনিপুরের জন্য কমিশন চেয়েছে ২০০ কোম্পানি। গুজরাটের জন্য চাওয়া হয়েছে ২০০ কোম্পানি বাহিনী।

তবে গত সংসদ ভোটে বাংলায় যত কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানো হয়েছিল এবারের সংখ্যা তার থেকে অনেকটাই বেশি। গত ভোটে রাজ্যে মোতায়েন করা হয়েছিল ৭৪০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। এবারে ৪২টি আসনের জন্য তা বেড়ে হয়েছে ৯২০ কোটি কোম্পানি। এতে স্বাভাবিকভাবেই খুশি বঙ্গ বিজেপি। তবে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি, বাংলা দখলে বিজেপি যে ‘পাখির চোখ’ করেছে, তা কেন্দ্রীয় বাহিনীর মোতায়ন দেখে স্পষ্ট। অনেকেই বলছেন, নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে বেশি বাহিনী চাওয়া হয়েছে। আর এর নেপথ্যে রয়েছে রাজ্য বিজেপি।

তবে পশ্চিমবঙ্গের নিরিখে লোকসভা বা বিধানসভা অথবা গ্রাম্য পঞ্চায়েত ভোটগুলোতে বিগত সময় দেখা গিয়েছে বারে বারে ভোট হিংসায় উত্তপ্ত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। ভোটের সময়গুলো রাজনৈতিক হিংসা, অশান্তি এবং হত্যায় সারা ভারতের মধ্যে শীর্ষে চলে আসে পশ্চিমবঙ্গ। যে কারণে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে এবারে বাংলায় সশস্ত্র সেনা সদস্যের সংখ্যা বাড়িয়েছে নির্বাচন কমিশন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৪
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।