ঢাকা, শনিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০২ মার্চ ২০২৪, ২০ শাবান ১৪৪৫

ভারত

ভারতের ৫ রাজ্যে নির্বাচন: যা বলছে জনমত জরিপ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০২৩
ভারতের ৫ রাজ্যে নির্বাচন: যা বলছে জনমত জরিপ

কলকাতা: ভারতের লোকসভা ভোটের আগে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়, তেলেঙ্গানা ও মিজোরাম রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই পাঁচ রাজ্যের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে আছে গোটা ভারত।

ফলাফল প্রকাশ হবে আগামী ৩ ডিসেম্বর।

তার আগে কয়েক দশকের রেওয়াজ অনুযায়ী, এক্সিট পোল বা জনমত সমীক্ষা জানার জন্য অপেক্ষায় থাকেন সবাই। এবার এই পাঁচ রাজ্যেও জনমত সমীক্ষার ফল প্রকাশ্যে এসেছে। সেখানে একটি রাজ্য বাদে সবগুলো সংস্থার সমীক্ষা এগিয়ে রেখেছে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন দল বিজেপিকে।

তেলেঙ্গানা: রাজ্যটিতে বিধানসভার মোট আসন সংখ্যা ১১৯টি। সরকার গড়ার জন্য দরকার ৬০ আসন। পোল অব পোলসের সমীক্ষা অনুযায়ী, তেলেঙ্গানায় শাসক দল বিআরএস পেতে পারে ৪৮টি আসন, কংগ্রেস পেতে পারে ৫৬টি এবং বিজেপি পেতে পারে ৫ থেকে ১০টি আসন। বাকি দলগুলো পেতে পারে ৬ থেকে ৮টি আসন।  

জন কি বাতের সমীক্ষা অনুযায়ী, তেলেঙ্গানায় কংগ্রেস পেতে পারে ৪৮ থেকে ৬৪টি আসন। বর্তমান শাসক দল বিআরএস পেতে পারে ৪০ থেকে ৫৫টি আর বিজেপি পেতে পারে ৭-১৩টি আসন।

ভারতীয় নিউজ ২৪-টুডেজ চাণক্যের এক্সিট পোল বলছে, কংগ্রেস এখানে পাবে ৭১টি আসন। বিআরএস ৩৩টির বেশি আসন পাবে না। বিজেপি পাবে ৭টি আসন। অন্যান্য দলগুলো পাবে ৮টি আসন। সমীক্ষা অনুযায়ী এগিয়ে কংগ্রেস।

২০১৮ সালের ভোটে এ রাজ্যে ভারত রাষ্ট্র সমিতি (বিআরএস) নির্বাচিত হয়েছিল। মুখ্যমন্ত্রী হন কে. চন্দ্রশেখর রাও।

রাজস্থান: এ রাজ্যের বিধানসভায় মোট আসনসংখ্যা ১৯৯টি। সরকার গড়ার জন্য প্রয়োজন ১০০ আসন। এবিপি নিউজ-সি ভোটারের সমীক্ষা বলছে, রাজস্থানে কংগ্রেস ক্ষমতা হারাবে। সরকার গড়বে বিজেপি। সেখানে বিজেপি পাবে ৯৪ থেকে ১১৪টি আসন। কংগ্রেস পাবে ৭১ থেকে ৯১টি। বিএসপি পেতে পারে সর্বোচ্চ ৫ আসন। অন্যান্য দল ৯-১৯টি।

টাইমস নাও-ইটিজির সমীক্ষা অনুযায়ী, বিজেপি পেতে পারে ১০৮-১২৮ আসন ও কংগ্রেস পেতে পারে ৫৬-৭২টি।

টিভি৯-পোলস্ট্র্যাটের সমীক্ষা অনুযায়ী, বিজেপি পেতে পারে ১০৫ আসন এবং কংগ্রেস পেতে পারে ৯২টি আসন।

নিউজ১৮-ম্যাট্রিজের সমীক্ষা অনুযায়ী, বিজেপি পেতে পারে ১১১টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ৭৪টি আসন। অন্যান্যরা পেতে পারে ১১টি আসন। অর্থাৎ বেশিরভাগ সমীক্ষাই বিজেপিকেই এগিয়ে রাখছে।  

একমাত্র ইন্ডিয়া টুডে-অ্যাক্সিসের সমীক্ষা জানাচ্ছে, রাজ্যটিতে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। বিজেপি পেতে পারে ৯০টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ৯৫টি আসন।

২০১৮ সালের বিধানসভা ভোটে রাজস্থানে জয়ী হয় কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী হন অশোক গেহলট।

মধ্যপ্রদেশ: রাজ্যটিতে বিধানসভার মোট আসন সংখ্যা ২৩০। সরকার গড়ার জন্য প্রয়োজন ১১৬ আসন। এবিপি নিউজ-সি ভোটারের সমীক্ষা বলছে, বিজেপি পাবে ১৫১টি আসন। কংগ্রেস পাবে ৭৪টি। অন্যান্যরা পাবে ৫টি আসন।

টিভি৯-পোলস্ট্র্যাট সমীক্ষা অনুযায়ী, ১০৬-১১৬টি আসন পেতে পারে বিজেপি। কংগ্রেস পেতে পারে ১১১-১২১টি আসন। অন্যান্যরা সর্বোচ্চ ৬টি আসন।

রিপাবলিক টিভির সমীক্ষা অনুযায়ী, বিজেপি ১১৮-১৩০টি আসনে জিততে পারে। ৯৭-১০৮টি আসনে জিততে পারে কংগ্রেস।

নিউজ ২৪-চাণক্য বলছে, মধ্যপ্রদেশে বিজেপি পেতে পারে ১৫১ টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ৭৪টি আসন। অন্যান্যরা ৫ আসন। যার অর্থ, মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতায় ফিরতে পারে বিজেপি। এবার জিতলে পঞ্চমবারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হবেন শিবরাজ চৌহান।

ছত্তিশগড়: এ রাজ্যের বিধানসভায় ৯০টি আসন। সরকার গড়তে প্রয়োজন ৪৬টি আসনের। ইন্ডিয়া টিভির এক্সিট পোল বলছে, ছত্তিশগড়ে কংগ্রেস পেতে পারে ৪৬ থেকে ৫৬টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ৩০-৪০ আসন। অন্যরা পেতে পারে ৩-৫টি আসন।

এবিপির এক্সিট পোল বলছে, ছত্তিশগড়ে কংগ্রেস পেতে পারে ৪১ -৫৩টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ৩৬ থেকে ৪৮টির মতো আসন।

পাশাপাশি ভারতের নিউজ ২৪-টুডেজ চাণক্যের সমীক্ষা অবশ্য বলছে, বিজেপি ৩৩টি ও কংগ্রেস ৫৭টি আসন পাবে। অন্যান্যরা কোনো আসনই পাবে না। যার অর্থ, কংগ্রেস এবং বিজেপি, দুই দলই ক্ষমতার কাছাকাছি থাকবে।  

এখানে শেষ নির্বাচনে জয়ী হয়ে মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন কংগ্রেসের ভূপেশ বাঘেল।

মিজোরাম: এ রাজ্যের বিধানসভায় মোট আসন সংখ্যা ৪০টি। সরকার গড়তে লাগবে ২১টি আসন। ক্ষমতার কাছাকাছি থাকবে মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্ট (এমএনএফ)। বিগত নির্বাচনে জিতেও মুখ্যমন্ত্রী হন মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্টের জোড়াম থাঙ্গা। ফের তিনিই ক্ষমতা আসতে পারেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০২৩
ভিএস/এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।