ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

স্বাস্থ্য

মেধাবী ছাত্রী পঞ্চমীকে বাঁচাতে বাবা-মায়ের আকুলতা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০১৭
মেধাবী ছাত্রী পঞ্চমীকে বাঁচাতে বাবা-মায়ের আকুলতা অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর প্রহর গুণছে পঞ্চমী। ছবি: বাংলানিউজ

হবিগঞ্জ: দীর্ঘদিন ধরে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর প্রহর গুণছে পঞ্চমী সরবী (১২)। হতদরিদ্র পরিবারের মেধাবী মেয়েটির চিকিৎসাও হচ্ছে না টাকার অভাবে।

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শাহজাহানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী পঞ্চমী সুরমা চাবাগানের অরবিন্দু সবর ও চম্পামনি সবরের মেয়ে।

পিঠ, গলা ও কোমড়ে প্রচণ্ড ব্যথা নিয়ে বেশ কিছুদিন বিদ্যালয়ে গেলেও গত ছয়মাস ধরে যেতেই পারছে না ক্লাসে।

এখন হাঁটা-চলাও অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

একদিকে সংসারে অভাব-অনটন, অন্যদিকে ব্যয়বহুল চিকিৎসা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন পঞ্চমীর বাবা-মা। তাই মেয়েকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তশালী ও বিবেকবান মানুষের কাছে আর্থিক সহায়তার আকুল আবেদন জানিয়েছেন তারা।

পঞ্চমীর মা চম্পামনি সবর বাংলানিউজকে জানান, বেশ কিছুদিন আগে তার মেয়ে গলায় ব্যথা অনুভব করে। দিন দিন বাড়তে থাকে গলা ফোলা ও ব্যথা। সম্প্রতি তাকে নিয়ে মাধবপুরের ল্যাব এইড হাসপাতালের প্রাইভেট চিকিৎসক শফিকুল ইসলাম শরণাপন্ন হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেটে বা ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। কিন্তু টাকার অভাবে ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করানো সম্ভব হচ্ছে না। শরীরে রক্তশূন্যতা থাকায় চিকিৎসকের পরামর্শে মাসখানেক আগে ২ ব্যাগ রক্তও দেওয়া হয় পঞ্চমীর শরীরে।

চম্পামনি আরো জানান, তার স্বামী কর্মে অক্ষম। তিনি চাবাগান থেকে দৈনিক মজুরি পান ৮৫ টাকা। এ টাকায় ৬ সদস্যের সংসার চালানোই কষ্টকর, চিকিৎসা তো দূরুহ ব্যাপার।

ল্যাব এইড হাসপাতালের পরিচালক মো. জসিম উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, মেয়েটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। তবে রোগ শনাক্ত করতে না পারায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪০ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৪, ২০১৭
এএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।