ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ সফর ১৪৪৩

ফিচার

বিধিনিষেধে পাল্টে গেছে মানুষের জীবন

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১০১ ঘণ্টা, জুলাই ৮, ২০২১
বিধিনিষেধে পাল্টে গেছে মানুষের জীবন ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: কঠোর লকডাউনে ওলট-পালট হয়ে গেছে মানুষের জীবন! তেমনি একজন সাত্তার মিয়া। করোনার আগে শরিয়তপুর থেকে রাজধানীতে এসে একটি রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন তিনি।

করোনা এবং লকডাউন মিলিয়ে চাকরি হারাতে হয় তাকে। এখন সংসার চালাতে সাহায্য প্রার্থনা করেন মানুষের কাছে।

অসুস্থ সন্তানকে নিয়ে সময় কাটান রাজধানীর মতিঝিল ফুটওভারব্রিজে। সারাদিনে যা উপার্জন, তাই দিয়ে চলে সংসার। আর কঠোর লকডাউনের ফলে মানুষ বাইরে কম আসায় কমেছে তার সাহায্য প্রাপ্তির অর্থও।

বুধবার (৭ জুলাই) দুপুরের পর রাজধানীর মতিঝিলের ফুটওভারব্রিজের উপর কথা হলে এমনটিই জানান তিনি। তবে শুধু সাত্তার মিয়া নয়, তার মতো একই অবস্থা হাজারো মানুষের। বিশেষ করে করোনা আর লকডাউনে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন অনেকেই।

এদিকে সরকার ঘোষিত দুই সপ্তাহব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধের সপ্তম দিন ছিল বুধবার। করোনার সংক্রমণ রোধে কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে মাঠে রয়েছে পুলিশ, র‌্যাব, সেনাবাহিনী ও বিজিবির সদস্যরা।

লকডাউনের শুরু থেকেই বিভিন্ন জায়গায় টহল দিতে দেখা গেছে তাদের। রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্টে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

গত ছয় দিনের তুলনায় রাজধানী ঢাকার সড়কগুলোতে মানুষের উপস্থিতি কিছুটা বেড়েছে। সড়কে কর্মজীবী মানুষের সংখ্যা কিছুটা বেশি দেখা গেছে। তবে চেকপোস্টে কড়াকড়ি ছিল চোখে পড়ার মতো।

দুপুরে শাহবাগ, কাকরাইল, মৎস্য ভবন, রমনা, পুরানা পল্টন, গুলিস্তান, মতিঝিল এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে রিকশা আর ভ্যানে করে মানুষ নিজের গন্তব্যে যাচ্ছে। তাদের মধ্যে অনেকেই ছিলেন বিভিন্ন ব্যাংক কর্মকর্তা ও কর্মচারী। রিকশা ও ভ্যানের পাশাপাশি ব্যক্তিগত গাড়িও দেখা গেছে। সকাল থেকে নগরীর ফকিরাপুল, রাজারবাগ, মালিবাগ, চৌধুরী পাড়া, বাড্ডা, দৈনিক বাংলা, বাংলা মোটর, কারওয়ান বাজার, মগবাজারসহ বিভিন্ন এলাকাতেও এমন চিত্র দেখা গেছে।

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে বের হলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে গ্রেফতার ও জরিমানা করা হচ্ছে। এছাড়া জরুরি পরিষেবায় নিয়োজিতরা পরিচয়পত্র দেখানো ও প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি তল্লাশির সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানালে, তারা তাদের গন্তব্যে বা কর্মস্থলে যেতে পারছেন।

এর আগে গতকাল ৬ষ্ঠ দিনে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়ায় রাজধানী ঢাকায় ৪৬৭ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। ডিএমপি’র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ডিএমপি’র আটটি ক্রাইম ও ট্রাফিক বিভাগ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছে। মোবাইল কোর্টে ৩০৫ জনকে ২ লাখ ২৭ হাজার ৪৮০ টাকা এবং সড়ক পরিবহন আইনে ১০৮৭টি গাড়িকে ২৫ লাখ ২৯ হাজার ২৫ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

লকডাউনের শুরুতে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া অযৌক্তিক কারণে বাইরে বের হওয়ায় রাজধানীতে প্রথম দিন ৫৫০ এবং দ্বিতীয় দিন ৩২০ জন, তৃতীয় দিনে ৬২১ জন, চতুর্থ দিনে ৬১৮ জন, পঞ্চম দিনে ৫০৯ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫৮ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০২১
এইচএমএস/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa