ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

প্রজাপতি মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়

জাবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬১১ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০১৭
প্রজাপতি মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড় প্রজাপতি মেলায় এসেছে শিশুরাও

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) শুরু হয়েছে দিনব্যাপী প্রজাপতি মেলা। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দর্শনার্থীরা মেলায় ভিড় জমিয়েছেন।

রাজধানীর ব্যস্ত জীবন থেকে একটু নিরিবিলি পরিবেশে জীবনকে প্রজাতির নানা রঙে রাঙাতে পরিবার নিয়ে ছুটে এসেছেন শত শত মানুষ। সঙ্গে রয়েছে কোলের শিশুটিও।

ঢাকার উত্তরা থেকে পরিবারসহ প্রজাপতি মেলা দেখতে এসে আব্দুর সাত্তার বলেন, ইট-পাথরের এ শহরে মন চায় পরিবার নিয়ে কোথাও নিরিবিলি পরিবেশে প্রকৃতির সঙ্গে একটু সময় পার করি। তাই পরিবারের সবাইকে নিয়ে প্রজাপতি মেলা দেখতে এসেছি।

এছাড়া ঢাকা ও আশপাশের অনেক স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা দল বেধে এসেছে প্রজাপতি মেলায়।

‘উড়লে আকাশে প্রজাপতি, প্রকৃতি পায় নতুন গতি’- স্লোগানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের আয়োজনে অষ্টমবারের মতো এ প্রজাপতি মেলার আয়োজন করা হয়েছে।  

শনিবার (০৪ নভেম্বর) সকাল সাড়ে দশটায় মেলার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

মেলায় দশনার্থীদের ভিড়উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রজাপতির সঙ্গে প্রকৃতির কি সম্পর্ক, পরাগায়নে প্রজাপতি কি সাহায্য করে তা আমরা এ প্রজাপতি মেলার মাধ্যমে জানতে পারছি। প্রজাপতি প্রকৃতির কোনো উপকার করে কিনা, তা না জেনেই আমরা প্রজাপতির পেছনে ছুটি, ভালো লাগার কারণে। এ মেলার কারণে প্রজাপতি ও প্রজাপতির উপকার সম্পর্কে মানুষের মধ্যে জানার আগ্রহ তৈরি হচ্ছে।

এ সময় তিনি প্রজাপতি মেলার আয়োজক ও প্রজাপতিপ্রেমীদের ধন্যবাদ জানান।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক  শেখ মো. মনজুরুল হক, আইইউসিএন’র (ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজারভেশন অব ন্যাচার) বাংলাদেশ প্রতিনিধি ইশতিয়াক উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

মেলায় ‘ইয়াং বাটারফ্লাই এনথ্যুসিয়াস্ট অ্যাওয়ার্ড’ দেওয়া হয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যায়ের লোক প্রশাসনের শিক্ষার্থী আফলাতুন কায়সারকে।

এছাড়া প্রজাপতির চোখ এবং কালার ভিশনের গবেষণায় সার্বিক অবদানের জন্য জাপানের গ্রাজুয়েট ইউনিভার্সিটি ফর অ্যাডভান্সড স্টাডিজের অধ্যাপক কেনটারো আরিকাওয়াকে ‘বাটারফ্লাই অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’ দেওয়া হয়।

এবারের মেলায় দিনব্যাপী আয়োজনের মধ্যে রয়েছে- র‌্যালি, প্রজাপতি বিষয়ক ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা (শিশু-কিশোরদের জন্য), প্রজাপতির আলোকচিত্র প্রদর্শনী, প্রজাপতি বিষয়ক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা, হাট দর্শন (জীবন্ত প্রজাপতি প্রদর্শন), অরিগামি প্রজাপতি, প্রজাপতির আদলে ঘুড়ি উড্ডয়ন, বারোয়ারী বিতর্ক (প্রজাপতি ও জলবায়ু পরিবর্তন), প্রজাপতি চেনা প্রতিযোগিতা, প্রজাপতি বিষয়ক ডকুমেন্টারি প্রদর্শনী, পুরস্কার বিতরণ ও সমাপনী অনুষ্ঠান।

২০১০ সাল থেকে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের উদ্যোগে ধারাবাহিকভাবে এ মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

জাবি সেজেছে প্রজাপতির রঙিন ডানায়

বাংলাদেশ সময়: ১২১০ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৪, ২০১৭
জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।