ঢাকা, শনিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ শাবান ১৪৪৫

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

মৌলভীবাজারে বিষ প্রয়োগে ১৩ শকুনের মৃত্যু

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৩ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২৩
মৌলভীবাজারে বিষ প্রয়োগে ১৩ শকুনের মৃত্যু

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারে মানুষ কর্তৃক বিষ মিশ্রিত মৃত ছাগল খেয়ে বিপন্ন প্রজাতির ১৩টি শকুনের (Vulture) মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও মৃত্যুর এই তালিকায় রয়েছে কয়েকটি শিয়াল, কুকুর ও বিড়াল।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) মৌলভীবাজার বন্যপ্রাণী বিভাগ সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়নের বড়কাপন গ্রামের বুড়িকোনা ক্ষেতের মাঠে ৩টি মৃত শকুন, ২টি শিয়াল, ২টি কুকুরকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। ১টি বিড়ালের শরীরের বিভিন্ন অংশও তারা পায়। মৃত শকুনের পাশে সেমকাপ নামের ৩টি কীটনাশকের বোতল পড়ে থাকতেও দেখা যায়।  

স্থানীয়রা জানান, কিছুদিন ধরে এই এলাকায় শিয়ালদের উৎপাত বেড়েছে। অনেক ছাগল খেয়েছে শিয়াল। তাই কে বা কারা মৃত ছাগলের উপর বিষটোপ প্রয়োগ করে শিয়াল নিধন তরতে গিয়ে এমন ঘটনা ঘটেছে।

শকুন, শিয়াল এবং কুকুর মারা যাওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের  লোকজন ঘটনাস্থলে ঘটনার সত্যতা পায়।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা প্রকৃতি ও সংরক্ষণ বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক শ্যামল কুমার মিত্র বাংলানিউজকে বলেন, প্রায় দু-তিন সপ্তাহ ধরে শকুন, শিয়াল এবং কুকুর এখানে মারা যাচ্ছে। এলাকার বিভিন্ন লোকের সাথে কথা বলে যেটা জানলাম তা হলো, মোট ১৩টার মতো শকুন ইতোমধ্যে মারা গেছে। আমরা ৩টি শকুনের মৃতদেহ শনাক্ত করেছি।

শুকুনগুলো উদ্ধার করে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সিলেট ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এমন নিষ্ঠুর কাজ যারা করেছেন তাদের পরিচয় জানা যায়নি বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে ধারণা করছি, বিষ প্রয়োগ করায় ১৩টি শুকুনের মৃত্যু হয়েছে। আরো নিশ্চিত হতে পারবো সিলেট থেকে রিপোর্ট এলে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বোঝা গেছে মৃত ছাগলের ওপর কে বা কারা বিষ দিয়েছে। আর বিষ খেয়ে শকুন ও অন্যান্য পশুর মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৩ ঘণ্টা, মার্চ ২৩, ২০২৩
বিবিবি/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।