ঢাকা, শুক্রবার, ২২ আশ্বিন ১৪২৯, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিনোদন

তারেক মাসুদের ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণের ইচ্ছা ক্যাথরিনের

বিনোদন ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫২ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২২
তারেক মাসুদের ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণের ইচ্ছা ক্যাথরিনের তারেক মাসুদ স্মরণ ও ‘চলচ্চিত্রযাত্রা’ গ্রন্থের পাঠ-পর্যালোচনা অনুষ্ঠানে কথা বলছেন ক্যাথরিন মাসুদ

প্রয়াত চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদের অসমাপ্ত ‘কাগজের ফুল’ সিনেমাটি নির্মাণ করে মুক্তি দেওয়ার ইচ্ছা ক্যাথরিন মাসুদের।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) রাজধানীর পাঠক সমাবেশ কেন্দ্রে তারেক মাসুদের ১১তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভার অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে উপস্থিত থেকে এমনটাই জানান তারেক মাসুদের শিল্প-সহচর ও সহধর্মিণী ক্যাথরিন মাসুদ।  

ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটি আয়োজিত এই সভার নাম রাখা হয় তারেক মাসুদ স্মরণ ও ‘চলচ্চিত্রযাত্রা’ গ্রন্থের পাঠ-পর্যালোচনা।

২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জের জোকায় এক ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ, চিত্রগ্রাহক ও সাংবাদিক মিশুক মুনীরসহ আরো তিনজন চলচ্চিত্রকর্মী নিহত হন। সেদিন তারা ‘কাগজের ফুল’ সিনেমার লোকেশন দেখতে গিয়েছিলেন তারা। তবে ফিরেছিলেন লাশ হয়ে। ক্যাথরিনও আহত হন সেই দুর্ঘটনায়।

এরপর বিপর্যস্ত সময় পার করতে হয়েছে জানিয়ে ক্যাথরিন বলেন, বাইরে থেকে অনেকে হয়ত বুঝতে পারে না, সেই দুর্ঘটনার পর আমাকে কতটা চাপ নিতে হয়েছে। এক বছরের বাচ্চা তখন আমার হাতে। টিমের সবাই তারেক-মিশুককে হারিয়ে দুঃখের মধ্যে আটকে আছে। এই অবস্থায় ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণ সম্ভব হয়নি।  

তিনি আরো বলেন, চলচ্চিত্রের কাজ তো এককভাবে হয় না, একটা টিম লাগে। বছরের বছর কাজ করতে করতে সেই টিমটা শক্ত অবস্থানে যায়। আমরা শুরু করেছিলাম ‘আদম সুরত’ দিয়ে। এরপর ৩০ বছরে একটা টিম হয়ে উঠতে পেরেছিলাম। সেই টিমটা এক মুহূর্তে ধ্বংস হয়ে গেল। মুহূর্তের মধ্যে ৩০ বছরের স্বপ্নগুলো শেষ হয়ে গেল। টিমের প্রধান দু’জনকে হুট করে হারানো অনেক বড় ধাক্কা ছিল।

‘কাগজের ফুল’ নির্মাণ না হলেও এর মধ্যে কিছু কাজ করেছেন বলে জানিয়ে ক্যাথরিন বলেন, আমরা ইতিমধ্যে তারেক মাসুদের লেখাগুলো নিয়ে বই বের করেছি। আদম সুরত এর ডিভিডি বের করেছি। এখনও যারা আমার পাশে আছেন, তাদেরকে নিয়ে ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণ করার ইচ্ছা আছে। বর্তমান বাংলাদেশে চলচ্চিত্র অনেক এগিয়েছে। ‘কাগজের ফুল’ নির্মাণ করা সম্ভব হবে বলে মনে করি।

সিনেমাটির চিত্রনাট্য এবং কিছু কাজ এগিয়েছিলেন তারেক মাসুদ। তবে বাজেট নিয়ে চিন্তিত ছিলেন বলেও জানান তার সহধর্মিনী ক্যাথরিন। তিনি বলেন, এটা অনেক বাজেটের সিনেমা হতে যাচ্ছিল। ওই সময় চিন্তিত ছিলাম যে, এত বড় বাজেটের সিনেমা করতে পারব কি না? আমরা তখন মাত্র চিত্রনাট্য লিখেছি এবং প্রি-প্রোডাকশনের কিছু কাজ এগিয়েছি। কোথায় শুটিং করবো, তার জন্য কিছু লোকেশন চূড়ান্ত করেছি। তারপরও অনেক কাজ বাকি ছিল। এখন হয়তো একটা সম্ভাবনা আছে, কাজটা নতুন করে শুরু করার। যতদিন জগতে থাকি আমার শেষ ইচ্ছা- এই কাজটি আমি সমাপ্ত করে যাবো।

তারেক মাসুদ স্মরণ ও ‘চলচ্চিত্রযাত্রা’ গ্রন্থের পাঠ-পর্যালোচনা অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ম্যুভিয়ানা ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও লেখক বেলায়াত হোসেন মামুন। সঞ্চালনা করেন চলচ্চিত্র নির্মাতা অদ্রি হৃদয়েশ। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন প্রাবন্ধিক ও লেখক অধ্যাপক মোহাম্মদ আজম, চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রসূন রহমান, চলচ্চিত্র সমালোচক মুনিরা শরমিন।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫২ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২২
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa