ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

বিনোদন

তমা মির্জা ও তার স্বামীর পাল্টাপাল্টি মামলা

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০
তমা মির্জা ও তার স্বামীর পাল্টাপাল্টি মামলা তমা মির্জা ও হিশাম চিশতি

পাল্টাপাল্টি অভিযোগে চিত্রনায়িকা তমা মির্জা এবং তার স্বামী হিশাম চিশতি পরস্পরের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।  

গত ৬ ডিসেম্বর রাজধানীর বাড্ডা থানায় ফৌজদারি মামলা করেন হিশাম চিশতি।

মামলায় তমা মির্জা ছাড়াও তার পরিবারের কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার ধারা নং ৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩০৭/১০৯।

এর আগে, তমা মির্জাও তার স্বামীর নামে বাড্ডা থানায় একটি মামলা করেন। তিনি গত ৫ ডিসেম্বর বাড্ডা থানায় মামলাটি করেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এবং যৌতুকের জন্য মারপিটসহ হুমকি দেওয়ার অভিযোগে মামলা করেন নায়িকা।

মামলার বিষয়ে তমা মির্জা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘যৌতুকের জন্য আমাকে নির্যাতন করতো হিশাম। শুধু তাই নয়, আমাকে মারধরও করেছে একাধিকবার। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও আমার সুনাম ক্ষুণ্ণ করার চেষ্টা করেছে। বিভিন্ন জনের কাছে আমার নামে আপত্তিকর কথা বলেছে হিশাম। বাধ্য হয়ে আমার নিরাপত্তার জন্য আমি আইনের দ্বারস্থ হয়েছি। ’

এদিকে, তমা মির্জার মামলার পরই বাড্ডা থানায় মামলা করেছেন তার স্বামী হিশাম চিশতী। ৬ ডিসেম্বর হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে মামলাটি করেছেন তিনি। এ মামলায় তমা মির্জাকে এক নম্বর আসামি, তার বাবা-মা, ভাইসহ চারজনকে আসামি করা হয়েছে। জানা গেছে, মামলা করার কয়েকদিন পরেই কানাডা চলে গেছেন হিশাম চিশতি।

হিশামের করা মামলার এজাহারে বলা হয়, ‘বিয়ের পর বাবা-মায়ের প্ররোচনায় হিশামের কাছ থেকে মোট ২০ লাখ টাকা ধার হিসেবে নেন তমা। গত ৫ ডিসেম্বর রাতে তমা মির্জার বাবার বাড্ডার বাসায় এসে ২০ লাখ টাকা চাইলে বাসার সদস্যদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় হিশামের। এর একপর্যায়ে বাড়ির সদস্যরা ওড়না দিয়ে পেঁচিয়ে তাকে খুন করার চেষ্টা করে। ’

২০১৯ সালের ৭ মে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক হিশাম চিশতীকে বিয়ে করেন তমা মির্জা। দুবাইয়ে হানিমুনও করেছিলেন তারা। সেখান থেকে ফেরার পর তাদের বিচ্ছেদের গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। সেই গুঞ্জন এখন বাস্তবতার দিকেই এগোচ্ছে...!

বাংলাদেশ সময়: ১০০২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০২০
ওএফবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।