ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

নির্বাচন ও ইসি

চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন শনিবার 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ৯, ২০২০
চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন শনিবার  প্রতীকী ছবি

চাঁদপুর:  ইভিএম পদ্ধতিতে শনিবার (১০ অক্টোবর) চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পৌরসভার ১৫ ওয়ার্ডে ৫২টি ভোটকেন্দ্রে চলবে ভোটগ্রহণ।

 

নিরাপত্তা ও শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে নির্বাচন গ্রহণে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে নির্বাচন কমিশন, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিন জন মেয়র প্রার্থী। এরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের আক্তার হোসেন মাঝি ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাতপাখা প্রতীকের মামুনুর রশিদ বেলাল।  

সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ৫০ ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৪ জন। সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড সংখ্যা পাঁচটি, ভোট কক্ষ সর্বমোট ৩০৫টি ও অস্থায়ী ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ২৩টি।  
 
চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চাঁদপুরে ইভিএম পদ্ধতিতে দ্বিতীয়বার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর আগে হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ইভিএম পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়।  

নির্বাচনে সর্বমোট ভোটার সংখ্যা ১লাখ ১৬ হাজার ৪৮৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৮ হাজার ১৪৪ জন ও নারী ভোটার ৫৮ হাজার ৩৪৩ জন।
 
নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চাঁদপুর নির্বাচন কমিশন ও রিটার্নিং অফিসার মো. তোফায়েল।  

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, নিয়মানুযায়ী বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) দিনগত রাত ১২টার মধ্যে সব ধরনের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ হয়েছে। নির্বাচন শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে এবং ভোটগ্রহণের ৪৮ ঘণ্টা পর পর্যন্ত সব রকম নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা বন্ধ থাকবে।  

ভোটকেন্দ্র ও নির্বাচনী এলাকায় ভোটগ্রহণের দিন এবং পূর্ববর্তী দুই দিন ও পরবর্তী এক দিন মোট চার দিনের জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মোহাম্মদ জামাল হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, নির্বাচনের ১৫টি ওয়ার্ডে জেলা প্রশাসনের ১৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়াও দায়িত্ব পালন করবেন পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ান আনসারের সমন্বয়ে মোবাইল ফোর্স তিনটি, স্ট্রাইকিং ফোর্স একটি। র‌্যাবের ছয়টি মোবাইল টিম ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের দুই প্লাটুন সদস্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৯, ২০২০
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।