ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

সন্দেহ থাকলে ইভিএম পরীক্ষা করে যান: ইসি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯
সন্দেহ থাকলে ইভিএম পরীক্ষা করে যান: ইসি

ঢাকা: ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে স্বচ্ছতা নিয়ে কোনো সন্দেহ থাকলে যন্ত্রটি পরীক্ষা করে দেখার আহ্বান জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)

আগামী ২৫ ও ২৬ জানুয়ারি কেন্দ্রে কেন্দ্রে ইভিএম প্রদর্শনীর ব্যবস্থা থাকবে উল্লেখ করে এ আহ্বান জানান ইসির এনআইডি অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাইদুল ইসলাম।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শতভাগ কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ইভিএমের পক্ষ নিলেও তাতে বরাবরই আপত্তি জানিয়ে আসছে বিএনপি ও তাদের রাজনৈতিক মিত্ররা। তাদের বক্তব্য, ইভিএমে স্বচ্ছ নির্বাচন সম্ভব নয়। এই যন্ত্রে সহেজেই কারচুপি করা যায়। তাই ইভিএম ব্যবহার করে নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্য ফল পাওয়া অসম্ভব।  

নির্বাচন ভবনে রোববার (২৯ ডিসেম্বর) বিএনপির ইভিএম নিয়ে অভিযোগের প্রসঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভোটযন্ত্রটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করে কাস্টমাইজ করা হয়। তবে দলের বিষয়ে আমি মন্তব্য করতে পারবো না। ব্যবস্থাপনার দিক থেকে বলতে পারি, ইভিএমে অনৈতিক কার্যক্রম করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। তারপরেও কেউ যদি রিচেক করতে চায় তাদের আমরা স্বাগত জানাই। ’

‘আমরা ইভিএম প্রদর্শনীর আয়োজন করবো। কারো সন্দেহ থাকলে, তারা এসে দেখতে পারেন। আমরা যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করছি, তাতে আমরা কনফিডেন্ট কোনো অনৈতিক কর্মকাণ্ড কারো পক্ষে করা সম্ভব হবে না। কারো কনফিউশন থাকলে আমরা তাদের কাছে পৌঁছে যাবো। '

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনী এলাকায় ইভিএম নিয়ে কেউ অপব্যবহারের চেষ্টা করছে আমাদের কাছে এ ধরনের কোনো তথ্য নেই। যদি কোনো তথ্য থাকে, সুনির্দিষ্ট তথ্য থাকে প্রমাণসহ, আমরা সেক্ষেত্রে যথাযথ ব্যবস্থা নেবো। নির্বাচনে ইভিএমের অপব্যবহার হলে প্রয়োজনে সেসব কেন্দ্র বা বুথ বন্ধ করে দেওয়া হবে। কেউ অপব্যবহার করার চেষ্টা করলে আইনগত ব্যবস্থা নিতে কমিশন বদ্ধপরিকর। ’

এনআইডি মহাপরিচালক বলেন, ‘উত্তর ও দক্ষিণ সিটি ভোটে ২ হাজার ৬শ ভোটকেন্দ্র রয়েছে। ভোটকক্ষ থাকবে ১৪ হাজার ৬শ বা তার বেশি। প্রতি কক্ষে একটি করে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। আর একটি করে ব্যাকআপ থাকবে। ইভিএম ব্যবহারে কারিগরি সহায়তার জন্য প্রতি কেন্দ্রে মোতায়েন থাকবে দু’জন করে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য। ’

তিনি বলেন, ‘ভোটাররা ইভিএমে যাতে ভোট দেওয়ার সম্পূর্ণ ধারণা পেতে পারে, সেজন্য বিভিন্ন স্থানে লিফলেট বিতরণ করা হবে। সেখানে সহজেই লেখা থাকবে মাত্র দুই বোতামে চাপ দিয়ে ভোট দেওয়ার বিষয়ে এবং কীভাবে ভোট দিতে হবে। ’

এছাড়া ভোটের আগে ২৫ এবং ২৬ জানুয়ারি প্রত্যেক কেন্দ্র ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় কীভাবে ভোট দিতে হবে সে বিষয়ে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হবে।

ইভিএমে পুনঃগণনার ব্যবস্থা নিয়ে তিনি বলেন, ‘লক সিস্টেম থাকবে। কেউ আবেদন করলে সেই সুযোগ রয়েছে। কেউ পুনরায় গণনা করতে চাইলে কমিশনে আবেদন করতে হবে, পরে কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে। কেউ যদি ভবিষ্যতে এটি দেখতে চায় সেক্ষেত্রে ব্যবস্থা রয়েছে। ’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা মহানগরে শতভাগ স্মার্টকার্ড বিতরণের জন্য আমরা ব্যবস্থা করেছি। প্রত্যেকের কাছে যেন স্মার্টকার্ড পৌঁছে যায় সেজন্য থানা নির্বাচন অফিসারদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এরপরেও তার ভোটার নম্বর দিয়েও নির্বাচনে ভোটারকে চিহ্নিত করতে পারবো। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯
ইইউডি/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa