ঢাকা, বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

ফরিদপুরের ১১ ইউপিতে আ’লীগের ৬ ও বিএনপির ৩ প্রার্থী জয়ী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ২৯, ২০১৮
ফরিদপুরের ১১ ইউপিতে আ’লীগের ৬ ও বিএনপির ৩ প্রার্থী জয়ী

ফরিদপুর: ফরিদপুর সদর উপজেলার ১১ ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের ছয়জন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী দুইজন ও বিএনপির তিন প্রার্থী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোম মহান প্রাথমিকভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

এর মধ্যে ঈশানগোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগের মনোনীত শহিদুল ইসলাম মজনু নৌকা প্রতীক নিয়ে ৭ হাজার ৫৫২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী নুরুজ্জামান চৌধুরী পংকজ ধানের শীষ প্রতীকে ৪ হাজার ৮৮৬ ভোট পেয়েছেন।

গেরদা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের জাহিদুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৭ হাজার ৮০৬ ভোট পেয়ে জয় পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রেজাউল করিম পেয়েছেন ৬ হাজার ২৩৩ ভোট।

আলিয়াবাদ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ওমর ফারুক ডাবলু ৪ হাজার ৫৩৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সামসুল আলম বাবলু ২ হাজার ২৯২ ভোট পেয়েছেন।

অম্বিকাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের আবু সাইদ বারী চৌধুরী পেয়েছেন ৩ হাজার ৯৬৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির জয়নাল আবেদীন চৌধুরী পেয়েছেন ২ হাজার ৭৫৮ ভোট।

কানাইপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বেলায়েত ফকির পেয়েছেন ১১ হাজার ২৩১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আহিদ মিয়া পেয়েছেন ৮ হাজার ৮১৪ ভোট।

কৈজুরী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ইফতেখার আহম্মেদ ইকু পেয়েছেন ১০ হাজার ২৭৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির নাজিম উদ্দিন ৫ হাজার ৭৬ ভোট পেয়েছেন।

ডিক্রীরচর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী যুবলীগ নেতা মেহেদী হাসান মিন্টু পেয়েছেন ৪ হাজার ৬১২ ভোট। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের সাদেকুজ্জামান মিলন পাল পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৩৮ ভোট।

মাচ্চর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জাহিদ মুন্সী পেয়েছেন ৬ হাজার ৮৫৯ ভোট। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের সরোয়ার হোসেন সন্টু পেয়েছেন ৬ হাজার ৭৬৮ ভোট।

এছাড়া নর্থচ্যানেল ইউনিয়নে বিএনপির মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক ৬ হাজার ৪০৬ ভোট পেয়ে জয় পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মোফাজ্জেল হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ৫২১ ভোট।

চরমাধবদিয়া ইউনিয়নে বিএনপির মির্জা আজম ৫ হাজার ৪০২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাফিজ মন্ডল ৫ হাজার ৩৬৭ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তুহিন মন্ডল পেয়েছেন ৪ হাজার ১০ ভোট।

কৃষ্ণনগর ইউনিয়নে বিএনপির গোলাম মোস্তফা জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বাদশা মিয়া।

বাংলাদেশ সময়: ০৪৪৭ ঘণ্টা, মার্চ ৩০, ২০১৮
টিএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa