ঢাকা, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিক্ষা

হলের তালা ভেঙে মধ্যরাতে খুবি ছাত্রীদের বিক্ষোভ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১০৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
হলের তালা ভেঙে মধ্যরাতে খুবি ছাত্রীদের বিক্ষোভ

খুলনা: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজিতা হলের এক ছাত্রী রাইস কুকার ব্যবহার করায় তাকে হলের প্রভোস্ট শোকজ করে, এর প্রতিবাদে দুটি ছাত্রী হলের ছাত্রীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করছেন।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০টার দিকে অপরাজিতা হল’র ছাত্রীরা বিক্ষোভ শুরু করে।

পরে খুবি শিক্ষকরা পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য হলে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানায়, হলের প্রোভোস্ট, সহকারী প্রোভোস্ট ছাত্রীদের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ধমক দেওয়া থেকে শুরু করে সিট বাতিলের হুমকি দেয়। মঙ্গলবার দুপুরে আইন ডিসিপ্লিনের এক ছাত্রী ওই হলে বটি দিয়ে গলা কাটার চেষ্টা করলেও হাসপাতালে নিয়ে গেলে বেঁচে যায়। এর পরিপেক্ষিতে ছাত্রীদের রান্না করার সরঞ্জাম জব্দ করার নিদের্শ দেয় হল কর্তৃপক্ষ। নির্দেশনায় বলা হয়- ইলেকট্রনিক ডিভাইস, রাইস কুকার, হিটারসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি না সরালে যার রুমে এগুলো পাওয়া যাবে তার সিট বাতিল হয়ে যাবে।

রান্নার সরঞ্জাম জব্দ করার নোটিশের প্রতিবাদে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজিতা হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা রাতে হলের তালা ভেঙে আন্দোলন শুরু করেন।

তবে গভীর রাত হওয়ায় এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে, অপরাজিতা হলের ছাত্রীদের সঙ্গে বিক্ষোভে যোগ দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরাও ওই হলের ফটকে অবস্থান নিয়েছেন। তারা হলের ফটকের তালা ভেঙে বের হওয়ার চেষ্টা করছেন।

রাত সাড়ে ১২টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ছাত্রীদের বিক্ষোভ চলছিল।

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ১০ দফা দাবি তুলেছেন, তাদের দাবিগুলো হচ্ছে-  
১. রাইসকুকার ও রান্নার সরঞ্জাম ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে হবে, 
২. সেস্কুয়াল হ্যারাজমেন্ট এর প্রতিবাদে সোসাল মিডিয়ায় লেখালেখি করায় ব্যাক্তিগত আক্রমন ও পরিবার তুলে কথা বলার জন্য ক্ষমা চাইতে হবে, 
৩. হলে প্রয়োজনে অভিভাবক ও মহিলা আত্মীয় থাকার অনুমতি দিতে হবে, 
৪. পানিতে পোকা ও খাবারের সমস্যা স্থায়ী সমাধান করতে হবে, 
৫. প্রভোষ্টদের দ্বারা তার ডিসিপ্লিনের ছাত্র-ছাত্রীদের ব্যাক্তিগত ও একাডেমিক আক্রমন বন্ধ করতে হবে ও ক্ষমা চাইতে হবে, 
৬. হলের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের দুব্যাবহার বন্ধ করতে হবে, 
৭. যে কোন পরিস্থিতিতে হলের সিট বাতিল বন্ধ করতে হবে, 
৮. যে কোন পরিস্থিতিতে হলের ছাত্রীদের মতামত নিতে হবে, 
৯. আজকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে কোন প্রকার হুমকি দেওয়া যাবে না শিক্ষার্থীদের, 
১০. উপরোক্ত দাবী সমূহ না মানলে প্রভোষ্ট এর পদত্যাগ দাবী করেছেন তারা।

বাংলাদেশ সময়: ০১০৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa