ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

‘আপাতত বাড়ছে না ভোজ্য তেলের দাম’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০২২
‘আপাতত বাড়ছে না ভোজ্য তেলের দাম’ তেল

ঢাকা: আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভোজ্য তেলের দাম বাড়ছে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বুধবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‌‘সবকিছু বিবেচনা করে যেটা সুবিধাজনক হয় সেটি করা হবে। আপাতত বাড়ছে না ভোজ্য তেলের দাম, তারা নিজেরা নিজেরা কিছু দাম বাড়িয়েছিলেন আমাদের না জানিয়ে। সেটাও তারা বলেছেন যে, কনসিডার করবেন’।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ভোজ্য তেল আমদানিকারকরা বার বার বলছেন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বাড়ছে। সে ক্যালকুলেশনে এটা ফিক্সআপ করি, সেখানে নতুন করে ভাবার সময় এসেছে। আমার অসুস্থতার জন্য তারা অপেক্ষা করেছেন। আজকের আলোচনায় তেমন কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারিনি। আমরা বলেছি, এখন যে দাম আছে তার থেকে কিছুটা হলেও কমাতে চেষ্টা করুন। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করব। এজন্য আন্তর্জাতিক মার্কেট, ডিউটি স্ট্রাকচার ঠিক করে সিদ্ধান্ত নেবো।  

সামনে তেলের দাম কমার সম্ভবনা আছে কিনা জানতে চাইলে টিপু মুনশি বলেন, ‘এটা এই মুহূর্তে বলা ঠিক হবে না। সেজন্য এক্সপার্ট আছে। আমাদের প্রতিবেশি দেশ ভারতও তেল আমদানি করে। তাদের দাম কত? তাদের মার্কেটে আজকে তেল ১৭০ বিক্রি হচ্ছে বলে শুনেছি। এমন কিছু গ্রো করতে পারি না, যাতে জনগণ ভোগান্তিতে পড়ে। ভারতের সুবিধা তাদের ডিউটি স্ট্রাকচার আমাদের তুলনায় কম। আমাদের এখানে ১৮ থেকে ২০ শতাংশ সেখানে তাদের ৫ শতাংশ’।  

টিসিবি অপারেশন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘টিসিবির অপারেশন রমজান মাসে ৪০০ ট্রাক করি, এবার ৭ থেকে ৮শ করছি। বিশ্ববাজারে তেলের দামটা একই রকম আছে। বিভিন্ন ফ্যাক্টর আছে, যদি এই কয়দিনে দেখি দাম ৫০ ডলার কমেছে সেভাবেই আমরা সিদ্ধান্ত নেবো’।

রোজার সময় দামের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সামনে রমজান-ঈদও আছে। সেজন্য তাদেরকে অনুরোধ করেছি, তারা স্বাভাবিকভাবে এলসি ওপেন করবে। এরপর বসে একটা সিদ্ধান্ত নেবো। আমরা কথায় কথায় আল্লাহ খোদার কথা বলি, কাজের সময় উল্টোটা করি। এতে মানুষের ভোগান্তি হয়। পৃথিবীজুড়ে এসব ধর্মীয় অনুষ্ঠানের সময় ডিসকাউন্ট চলে। আমাদের এখানে উল্টোটা, ঈদ এলেই দাম বাড়ে’।

বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনারস অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফেকচারার অ্যাসোসিয়েশন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ভোজ্য তেল সয়াবিন ও পাম তেলের বাড়ানোর জন্য চিঠি দিয়েছে। চিঠিতে আগামী ৮ জানুয়ারি থেকে দাম বাড়ানোর বিষয়ে জানানো হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণলায় বিষয়টি যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ট্যারিফ কমিশনে পাঠায়।

এখন এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১শ ৬০ টাকা এবং খোলা সয়াবিন তেলের দাম ১শ ৩৬ টাকা নির্ধারিত আছে। ৮ টাকা দাম বাড়িয়ে ১শ ৬৮ টাকা দাম নির্ধারণের দাবি জানানো হয় চিঠিতে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০২২/আপডেট: ১৩২০ ঘণ্টা
জিসিজি/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa