ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বিল পরিশোধে রেকর্ড

শাহেদ ইরশাদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০২১
মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বিল পরিশোধে রেকর্ড

ঢাকা: করোনা সংক্রমণ এড়াতে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) মাধ্যমে বিল পরিশোধে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে মানুষ। এমএফএসের মাধ্যমে চলতি বছরের আগস্ট মাসে রেকর্ড ১ হাজার ৩২৩ কোটি টাকার ইউলিটি (গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি) বিল পরিশোধ করেছেন গ্রাহকরা।

২০২০ সালের মার্চে মহামারি শুরুর আগে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে ইউলিটি বিল পরিশোধ প্রতিমাসে গড়ে ৫০০ কোটি টাকার নিচে ছিল।

মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের পরে ইউলিটি বিল পরিশোধ সেবা বিস্তৃত করায় মানুষ দ্রুত সেবা নিতে আগ্রহী হয়ে ওঠে।

এমএফএস অপারেটরদের মাধ্যমে গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি, ইন্টারনেট, টেলিফোন ও ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করা যাচ্ছে। এছাড়াও ডিটিএইচ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফি ও বিভিন্ন সরকারি সেবার ফি পরিশোধ করা যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনের তথ্য মতে, চলতি বছরের আগস্ট মাসে ইউলিটি বিল পরিশোধ আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৪৫ দশমিক ৬৫শতাংশ বা ৪১৪ কোটি ৯ লাখ টাকা বেড়েছে। ২০২০ সালের আগস্ট মাসে এমএফএসের মাধ্যমে ইউলিটি বিল পরিশোধ হয়েছিল ৯০৮ কোটি ৮ লাখ টাকা।

প্রতি মাসের হিসাবে জুলাই মাসের তুলনায় আগস্টে এমএফএসের মাধ্যমে বিল পরিশোধ ৩৩ দশমিক ৩ শতাংশ বা ৩৩০ কোটি ৭ লাখ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরের জুলাই মাসে এমএফএসের মাধমে ৯৯৩ কোটি টাকার ইউলিটি বিল পরিশোধ হয়েছে।

এ বিষয়ে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী বিকাশের কর্পোরেট কমিউনিকেশন প্রধান শামসুদ্দিন হায়দার ডালিম বাংলানিউজকে বলেন, সেবার বৈচিত্র্য এবং বিকাশের বিশাল গ্রাহক সংখ্যা মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের ব্যবহার বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে গ্রাহকরা সারাদেশে বিকাশের মাধ্যমে বিদ্যুৎ, গ্যাস, টেলিফোন, পানি, ইন্টারনেট কেবল, সিটি ব্যাংকের আমেরিকান  এক্সপ্রেস এবং সব ধরনের ভিসা ক্রেডিট কার্ডের বিলসহ সব ধরনের ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে পারছেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে, চলতি বছরের আগস্ট মাসে এমএফএসের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১ কোটি ১৭ লাখ বিল পরিশোধ হয়েছে, যা ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে ছিল ৩৬ লাখ ৬ হাজার।

সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে, দিন দিন প্রযুক্তির উন্নয়নের সঙ্গে জীবনকে সহজ করার জন্য মানুষ ডিজিটালে প্লাটফর্মের মাধ্যমে লেনদেন করতে আগ্রহী হচ্ছে। মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস কোম্পানিগুলো গ্রাহকের চাদিার কথা মাথায় রেখে অনেক উদ্ভাবনী সেবা নিয়ে এসেছে। যেগুলো তাদের দৈনন্দিন প্রয়োজন পূরণে সাহায্য করছে। ইউলিটি বিল পরিশোধ ছাড়াও মহামারির কারণে এমএফএসের মাধ্যমে সামগ্রিক লেনদেনও বেড়েছে।

ইউলিটি বিল পরিশোধ বৃদ্ধি পেলেও মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের মাধ্যমে সামগ্রিক লেনদেন আগেস্টে কমে দাঁড়িয়েছে ৬২ হাজার ২৩০ কোটি ২ লাখ টাকায়। আগের মাস জুলাইয়ে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৬৬ হাজার ৩৮৭ কোটি ৫ লাখ টাকা। তবে মহামারি করোনা প্রাদুর্ভাবের আগে মাসে গড় লেনদেন হয়েছে ৪০ হাজার কোটি টাকার নিচে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০২১
এসই/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa