ঢাকা, সোমবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

রেলপথে ভারতে পণ্য রপ্তানির বাধা দুর্বল অবকাঠামো

জিসান আহমেদ রাব্বি, উপজেলা করেসপন্ডেন্ট     | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
রেলপথে ভারতে পণ্য রপ্তানির বাধা দুর্বল অবকাঠামো

বেনাপোল (যশোর): বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে দিন দিন পণ্য রপ্তানির চাহিদা বাড়লেও দুর্বল অবকাঠামোর কারণে রেলপথে পণ্য রপ্তানি করতে পারছেন না বন্দর ব্যবহারকারী ও ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে ভারত থেকে ঠিকই রেলপথে বাংলাদেশে পণ্য আমদানি হচ্ছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) গত বছর রেলপথে পণ্য রপ্তানির অনুমতি দিলেও রেল কর্তৃপক্ষ বলছে, ট্রেনে করে পণ্য রপ্তানিতে দুই দেশের বন্দরে রেল ব্যবস্থাপনার আরও উন্নয়ন দরকার, আরও আলোচনা দরকার।  

জানা যায়, দেশে স্থলপথে ভারতের সঙ্গে যে বাণিজ্য হয়, তার ৭০ শতাংশ হয় বেনাপোল বন্দর দিয়ে রেল ও সড়ক পথে। বাংলাদেশি পণ্যের গুণগত মান ভালো হওয়ায়, আগে আমদানি হতো এমন অনেক পণ্য এখন রপ্তানি হচ্ছে ভারতে।

আমদানি বাণিজ্য সহজ করতে বেশ আগে থেকেই বেনাপোল বন্দর দিয়ে সড়কপথের পাশাপাশি রেলপথে ভারত থেকে পণ্য আমদানি হচ্ছে। এতে আমদানি বাণিজ্যে গতি ফিরলেও রপ্তানি বাণিজ্যে রয়েছে নানা প্রতিবন্ধকতা। গত বছর এনবিআর রেলপথে পণ্য রপ্তানির অনুমতি দিলেও এখনো পর্যন্ত তা চালু করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া রপ্তানি পণ্যবাহী ট্রাক পার্কিংয়ের জন্য বন্দরের টার্মিনাল ব্যবহারের সুযোগ না থাকায় সড়কে পণ্যজটের কারণে রপ্তানিতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে।  

এদিকে ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে রেলপথে বেনাপোল বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি করা হয়। রেলের অবকাঠামো উন্নয়ন না হওয়ায় ট্রেন থেকে পণ্য বেনাপোল বন্দরে নামাতে নানা সমস্যায় পড়তে হয়।

তারা আরও জানান, অবকাঠামো উন্নয়নের মাধ্যমে রেলপথে রপ্তানি চালু করা গেলে দিনে দিনে যেমন পণ্য পৌঁছাবে কলকাতায়, তেমনি খরচ অর্ধেকে কমে আসবে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের বন্দর বিষয়ক সম্পাদক সুলতান মাহমুদ বিপুল জানান, ভারত থেকে বেনাপোল বন্দরে আমদানি পণ্য নিয়ে যে ট্রেন আসে, তা খালি ফিরে যায়।  ওই খালি ট্রেনেই যদি পণ্য রপ্তানির ব্যবস্থা করা যায়, তাহলে খরচ কমে আসবে। একসঙ্গে বিপুল পরিমাণ পণ্য ভরতে রপ্তানি করা সম্ভব হবে।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান জানান, গত বছর এনবিআর রেলপথে পণ্য রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে। তবে দুই দেশে রেলের অবকাঠামোতে সমস্যা রয়েছে। তাছাড়া দুই দেশের রেল কর্তৃপক্ষের মধ্যে আলোচনা দরকার। আশা করছি, দ্রুত দুই দেশের রেল কর্তৃপক্ষের মধ্যে আলোচনা সাপেক্ষে বেনাপোল বন্দর দিয়ে রেলপথে পণ্য রপ্তানি শুরু করা সম্ভব হবে।  

বেনাপোল বন্দর দিয়ে রপ্তানি পণ্যের মধ্যে রয়েছে পাট ও পাটজাত দ্রব্য, মাছ, তৈরি পোশাক, কেমিকেল, টিস্যু পেপার, মেলামাইনসহ শতাধিক ধরনের পণ্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।