ঢাকা, রবিবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৪ শাওয়াল ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

এসএমই খাতের উন্নয়নে অর্থ বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি উদ্যোক্তাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২৪
এসএমই খাতের উন্নয়নে অর্থ বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি উদ্যোক্তাদের

ঢাকা: দেশের এসএমই খাতের উন্নয়নে এবং কর্মসংস্থান বৃদ্ধিতে এই খাতে অর্থ বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের। এছাড়া গত অর্থবছরে এসএমই ফাউন্ডেশনের কর্মসূচির সরাসরি সুবিধাভোগী ২৮ হাজারের বেশি উদ্যোক্তা।

শনিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁও পর্যটন ভবনে এসএমই ফাউন্ডেশনে ১৮তম বার্ষিক সাধারণ সভায় এ দাবি জানানো হয়। এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) সালাহউদ্দিন মাহমুদসহ সকল কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় ২০২২-২৩ অর্থবছরে এসএমই ফাউন্ডেশনের কার্যক্রমের ওপর পরিচালক পর্ষদের প্রতিবেদন উপস্থাপন ও গ্রহণ, নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী ও নিরীক্ষকের প্রতিবেদন অনুমোদন এবং ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন ও অনুমোদন করা হয়। পরিচালক পর্ষদের প্রতিবেদনের ওপর মতামত ও সুপারিশ প্রদান করেন সাধারণ পর্ষদের সদস্যরা।  

সাধারণ সভায় উদ্যোক্তারা বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে এসএমই ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন কর্মসূচি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। তবে আরো এসএমই উদ্যোক্তাকে এসব কর্মসূচির আওতায় আনতে এসএমই ফাউন্ডেশনের অনুকূলে অর্থ বরাদ্দেরও দাবি জানান তারা।

এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমান বলেন, গত অর্থবছরে এসএমই ফাউন্ডেশনের বিভিন্ন কর্মসূচির সরাসরি সুবিধাভোগী ২৮ হাজারের বেশি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা। এরমধ্যে  ২৮০১৬ জন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার মধ্যে পুরুষ ১৩৬৯৮ জন এবং নারী ১৪৩১৮জন। করোনা ভাইরাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে প্রথম দফায় ৩১০৮জন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তার মাঝে সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের ৩০০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ শেষে প্রত্যাবর্তনকৃত অর্থে গঠন করা ‘রিভলভিং তহবিল’ থেকে দ্বিতীয় দফায় মাত্র ৪ শতাংশ সুদে আরো ২৯৪ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, গত অর্থবছরে ঋণপ্রাপ্ত ২৯৭৮জন উদ্যোক্তার মধ্যে ৭৫ শতাংশ পুরুষ (২২৪২জন) ও ২৫ শতাংশ নারী-উদ্যোক্তা (৭৩৬জন)। ১৯১৭জন ঋণপ্রাপ্ত উদ্যোক্তা উৎপাদন খাতের। ব্যবসা ও ভ্যালুচেইন খাতের ৭৪০জন এবং ৩২১জন সেবা খাতের উদ্যোক্তা।

এসএমই ফাউন্ডেশনের ১৮তম বার্ষিক সাধারণ সভায় পরিচালক পর্ষদ এবং সাধারণ পর্ষদের সদস্যদের কাছে ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাস্তবায়িত কর্মসূচির ওপর বিভিন্ন পরিসংখ্যান তুলে ধরেন ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) সালাহউদ্দিন মাহমুদ। তিনি জানান, ২০২২-২৩ অর্থবছরে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে ৭৪৫টি কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে এসএমই ফাউন্ডেশন।  

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, ১০ম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা ২০২২ এবং সিলেট, বরিশাল, রাজশাহী ও দিনাজপুরে ৪টি ‘বিভাগীয় এসএমই পণ্য মেলা ২০২৩’ আয়োজন আয়োজন, জাতীয় এসএমই উদ্যোক্তা পুরস্কার ২০২২ প্রদান, ‘এসএমই ফাইন্যান্সিং ফেয়ার ২০২৩’ আয়োজন, এসএমই ক্লাস্টার ডিরেক্টরি প্রকাশ, এবং নতুন ক্লাস্টার চিহ্নিত করে পুরাতন ও নতুন ক্লাস্টারভিত্তিক বিশেষ কর্মসূচি বাস্তবায়ন এবং দু’টি ক্লাস্টারের ক্যাটালগ প্রকাশ, ৬টি ক্লাস্টারের ফেসবুক পেজ এবং ‘ডিজিটাল অ্যাডভাইজরি সার্ভিস প্ল্যাটফর্ম’ তৈরি ইত্যাদি।

এছাড়াও সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ বিতরণ, পণ্য বাজারজাতকরণ, দক্ষতা উন্নয়ন এবং দেশে ও বিদেশে উৎপাদিত পণ্যের বাজার সম্প্রসারণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময় : ১৮২৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি১৭,২০২৪
জিসিজি/এমএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।