ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

পশ্চিমবঙ্গে প্রথম ওমিক্রন রোগী শনাক্ত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০২১
পশ্চিমবঙ্গে প্রথম ওমিক্রন রোগী শনাক্ত

কলকাতা: ভারতের পশ্চিমবঙ্গে মিলেছে করোনা ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সন্ধান।

বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) মুর্শিদাবাদ জেলার ফরাক্কা থানার বেনিয়াগ্রামে এক শিশুর (৭) শরীরে ওমিক্রনের খোঁজ মিলেছে বলে নিশ্চিত করেছে পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য দফতর।

গত ১০ ডিসেম্বর সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি থেকে হায়দ্রাবাদে পৌঁছায় ওই শিশু ও তার পরিবার। সেখানে তাদের করোনা পরীক্ষা হয়। এরপর ১১ তারিখ তারা বিমানে করে পশ্চিমবঙ্গে ফেরেন। পরে ট্রেনে করে পৌঁছান মালদহ জেলায়। পরে নমুনা রির্পোটে জানা যায়, ওই শিশুর দেহে ওমিক্রন ভাইরাস পাওয়া গেছে। তেলেঙ্গানা স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে বিষয়টি পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে জানানো হয়।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ওই শিশু আপাতত আইসোলেশনে রয়েছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। তার শরীরে মৃদু উপসর্গ থাকলেও অবস্থা স্থিতিশীল। তবে শিশুটির পরিবারের সদস্যদের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এছাড়া শিশুটির সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের খোঁজ চলছে। শিশুটির অভিভাবক ও সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের সাতদিন আইসোলেশনে থাকতে বলতে পারে স্বাস্থ্য দফতর।

মুর্শিদাবাদ জেলার এক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেছেন, খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি শিশুটি এখন মালদহে মামার বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছে। এখন মালদহ প্রশাসনই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্র জানিয়েছে, প্রোটোকল মেনে আবারও ওই শিশুর লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে রাজ্যের কল্যাণীতে অবস্থিত করোনা মেডিক্যালে পাঠানো হবে। সেখানেই হবে সবার জিনোম সিকোয়েন্সিং টেস্ট। শিশুটির অভিভাবকদেরও আর একবার আরটি পিসিআর পরীক্ষা করা হবে। তাতে রিপোর্ট পজেটিভ হলে তাদের নমুনাও কল্যাণীর জিনোম সিকোয়েন্সিং ল্যাবে পাঠানো হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৫ ঘণ্টা, ১৫ ডিসেম্বর ২০২১
ভিএস/এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa