ঢাকা, বুধবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৯, ২৯ মার্চ ২০২৩, ০৬ রমজান ১৪৪৪

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ত্রিপুরার স্টেট পোল্ট্রি ফার্মে কালিংয়ের পর জীবাণুনাশ প্রক্রিয়া শুরু

আগরতলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০১৬
ত্রিপুরার স্টেট পোল্ট্রি ফার্মে কালিংয়ের পর জীবাণুনাশ প্রক্রিয়া শুরু ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আগরতলা: তিন দিনের কালিং প্রক্রিয়ায় মুরগি ও ডিম শূন্য হলো ত্রিপুরার পশ্চিম জেলার গান্ধীগ্রামের স্টেট পোল্ট্রি ফার্ম। এই তিন দিনে ফার্মের প্রায় ৮ হাজার মুরগি ও ১০ হাজার ডিম নষ্ট করে মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়েছে।

ফার্মটিতে হঠাৎ করে বার্ডফ্লু’র প্রকোপ দেখা দেওয়ায় এই অভিযান চালানো হয়।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) থেকে শুরু হচ্ছে ফার্মটির জীবাণুনাশ প্রক্রিয়া। সমগ্র পোল্ট্রি ফার্ম চত্বরে ওষুধ স্প্রে করা হচ্ছে। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে লাগবে দুই থেকে তিন দিন।

এখন থেকে টানা তিন মাস ফার্মটি মুরগি শূন্য থাকবে। তিন মাস পর নতুন করে উৎপাদন শুরু করা হবে।

কালিংয়ের জন্য গঠিত র‌্যাপিড রেসপন্স টিম মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) থেকে দ্বিতীয় ধাপে ফার্মের পার্শ্ববর্তী ১ কিলোমিটার এলাকায় বসবাসকারী জনসাধারণের বাড়ি বাড়ি গিয়ে গৃহপালিত হাঁস-মুরগির কালিং শুরু করেছে। কালিংয়ের সঙ্গে সঙ্গেই গ্রামবাসীদের তাদের হাঁস-মুরগির দাম দিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

সরকারি মূল্য অনুযায়ী, ৮ সপ্তাহের কম বয়সী প্রতিটি মুরগির জন্য ২০ ভারতীয় রুপি ও ৮ সপ্তাহের বেশি বয়সী প্রতিটি মুরগির জন্য ৯০ রুপি করে দেওয়া হচ্ছে। একইভাবে ৮ সপ্তাহের কম বয়সী প্রতিটি হাঁসের জন্য ৩৫ রুপি ও ৮ সপ্তাহের বেশি বয়সী প্রতিটি হাঁসের জন্য ৭০ রুপি করে দেওয়া হচ্ছে।

পাশাপাশি ফার্মের ১০ কিলোমিটার এলাকার মধ্যের হাঁস-মুরগি নজরদারিতে রাখা হচ্ছে। এ আওতার মধ্যে যদি বার্ডফ্লু’তে একটি হাঁস বা মুরগির মৃত্যুর ঘটনা ঘটে তবে ১০ কিলোমিটার এলাকার মধ্যের সব হাঁস-মুরগি কালিং করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৯, ২০১৬
আরএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa