ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯ মহররম ১৪৪৬

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

কলকাতার অ্যাপোলোয় রোবোটিক প্রযুক্তিতে প্রথম রেনাল টিউমার অপসারণ

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০২ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
কলকাতার অ্যাপোলোয় রোবোটিক প্রযুক্তিতে প্রথম রেনাল টিউমার অপসারণ ...

কলকাতা: ইনফিরিয়র ভেনা কাভা (IVC) থ্রম্বেক্টমি দ্বারা রোবোটিক র‍্যাডিক্যাল নেফ্রেক্টমির মাধ্যমে সত্তর বছর বয়সী দুলাল দত্ত নামে এক রোগীর রেনাল টিউমার বাদ দিতে সমর্থ হয়েছেন কলকাতার অ্যাপোলো ক্যান্সার সেন্টারের (ACC) চিকিৎসকরা।  

ক্যান্সার জয়ী দুলাল দত্ত কিডনি ফেইলিওর, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ছিলেন।

কিন্তু তার পরেও এ পদ্ধতিতে অস্ত্রোপচার করায় মাত্র চার দিনের মধ্যে হাসপাতাল থেকে বাড়ি যেতে পেরেছেন। এ পদ্ধতির ব্যবহার পূর্ব ভারতে এই প্রথম। সেটি ইউরো-অনকোলজি এবং রোবোটিক অনকোলজি ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি হিসেবে দেখা হচ্ছে।  

জানা যায়, দুলাল দত্তের পরিবার এই টিউমারের জন্য কলকাতার আশেপাশের অন্যান্য সমস্ত ক্যান্সার সেন্টারে গিয়েছেন। কিন্তু সবাই সেখানে ওপেন অস্ত্রোপচারের প্রস্তাব দেন যা একটি অত্যন্ত কঠিন পদ্ধতি। তাই তাঁর পরিবার বিকল্প পদ্ধতির খোঁজে কলকাতার অ্যাপোলো ক্যান্সার সেন্টারের এসেছিলেন। পরে সেন্টারের সিনিয়র কনসালটেন্ট তরুণ জিন্দালের নেতৃত্বে এবং রোবোটিক সার্জনরা জটিল অস্ত্রোপচার পরিচালনা করন। রোবোটিক পদ্ধতির মাধ্যমে সফলভাবে কিডনি এবং IVC থেকে টিউমারটি অপসারণ করেন।  

এ পদ্ধতিতে ব্যবহৃত হয় উন্নত রোবোটিক প্ল্যাটফর্মটি উন্নত ভিজ্যুয়ালাইজেশন এবং ম্যাগনিফিকেশন সহ অতুলনীয় সুবিধা প্রদান করে, যা সার্জনদের এমনকি ক্ষুদ্রতম টিউমার ইমপ্লান্টকেও সঠিকভাবে শনাক্ত করতে সক্ষম।  

দুলাল দত্তের ছেলে দেবজিৎ দত্ত বলেন, ডাক্তারদের ব্যতিক্রমি পরিচর্যা এবং উন্নত চিকিৎসার আমার বাবা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছে। মেডিক্যাল দলের দক্ষতা এবং নিবেদন সত্যিই একটি পার্থক্য তৈরি করেছে। যা রোগীদের সুস্থতা নিশ্চিত করার অঙ্গীকার হিসেবে অ্যাপোলো ক্যান্সার সেন্টার কলকাতার প্রতি আমাদের আস্থাকে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছে।

কলকাতা অ্যাপোলো ক্যান্সার সেন্টারের সিনিয়র কনসালটেন্ট ইউরো-অনকোলজি ও রোবোটিক সার্জন ডা. তরুণ জিন্দাল বলেন, রেনাল টিউমার অপসারণে রোবোটিক প্রযুক্তি জটিল টিউমার অপসারণে অতুলনীয় নির্ভুলতা দেখিয়েছে। রোবোটিক সার্জারি টিউমার নির্মূল নিশ্চিত করার জন্য একটি অসাধারণ সম্ভাবনা প্রদান করে। যা অস্ত্রোপচারের কঠিন ধরন থাকা সত্ত্বেও তার দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠা এবং চিকিৎসার পরে একটি স্বাভাবিক জীবনযাপনে ফিরে যেতে সাহার্য করে। উদ্ভাবনী পদ্ধতিটি শুধুমাত্র অস্ত্রোপচারের ফলাফলই বাড়ায় না বরং এটি অপারেটিভ জটিলতাও কমিয়ে দেয়, যা অনকোলজিকাল কেয়ারে একটি পরিবর্তনের ইঙ্গিত দেয়।

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট ডা. অংশুমান রায় বলেন, অস্ত্রোপচারের সময় IVC ক্ল্যাম্পিংয়ের সময় অ্যানেস্থেশিয়ার সঠিক ডোজ, ফ্লুইড ম্যানেজমেন্ট এবং রক্ত সঞ্চালনের ব্যবস্থাপনার জটিলতাগুলি এই ক্ষেত্রেগুলিকে অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং করে তোলে। রোবোটিক সার্জারির একত্রীকরণ এই ধরনের জটিল ক্ষেত্রে উন্নত চিকিৎসা এবং সুস্থ হয়ে ওঠার প্রক্রিয়াগুলিতে উল্লেখযোগ্যভাবে অবদান রেখেছে। ট্রেলব্লেজিং রোবোটিক কৌশলগুলিকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে, আমরা এই চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতি মোকাবেলায় যথার্থতা এবং দক্ষতাকে অপ্টিমাইজ করেছি, যা শেষ পর্যন্ত আমাদের রোগীদের দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে উৎসাহিত করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৩ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
পিডি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।